এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মেদিনীপুর > বিজেপি-তৃণমূলের সংঘর্ষে ‘নেপো’ হয়ে দই খেলো সিপিআইএম,জোর চাপানউতোর রাজ্যে

বিজেপি-তৃণমূলের সংঘর্ষে ‘নেপো’ হয়ে দই খেলো সিপিআইএম,জোর চাপানউতোর রাজ্যে



লোকসভা নির্বাচনের ফলাফল প্রকাশের পর থেকেই রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় শাসক দল তৃণমূল বনাম বিরোধী দল বিজেপি একে অপরের বিরুদ্ধে পার্টি অফিস দখল এবং হামলার অভিযোগের সুর চওড়া করতে শুরু করেছে। আর এবার এই ঘটনাতেই উত্তপ্ত হয়ে উঠল অধিকারী গড় বলে পরিচিত পূর্ব মেদিনীপুর জেলার খেজুরির কন্ঠিবাড়ি এলাকা।

আর তৃণমূল বনাম বিজেপির এই সংঘর্ষে নিজেদের অফিস পুনরুদ্ধার করে নিল বামেরা। বিজেপির অভিযোগ, প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নরেন্দ্র মোদী যেদিন শপথ নেয়, সেদিন এলাকায় বিজয় মিছিল করা হয়েছিল। আর সেখানেই তাদের এক কর্মী সনৎ মাইতিকে তৃণমূলের কার্যালয় আটকে রাখা হয়। এদিকে এই ঘটনার পরই তৃণমূলের সেই কার্যালয় ভাংচুরের অভিযোগ ওঠে বিজেপির বিরুদ্ধে। আর এতেই উত্তপ্ত হয়ে ওঠে পরিস্থিতি।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

গত শনিবার দুপুরে এই ঘটনাতেই পূর্ব মেদিনীপুরের খেজুরির কন্ঠিবাড়ি এলাকায় শাসক দল তৃণমূল এবং বিরোধী দল বিজেপির সংঘর্ষে প্রায় 6 জন আহত হন।

এদিন এই প্রসঙ্গে বিজেপির পক্ষ থেকে তৃণমূলের বিরুদ্ধে অভিযোগ করলেও পাল্টা স্থানীয় তৃণমূল বিধায়ক রনজিত মন্ডল বলেন, “তৃণমূল নেতা বিশ্বজিৎ বেড়ার বাড়িতে সনৎ মাইতির নেতৃত্বে বিজেপির লোকেরা হামলা চালিয়ে আগুন লাগানোর চেষ্টা করেছে। আসলে যারা একসময় সিপিএম ছিল, তারাই এখন বিজেপিতে নাম লিখিয়ে এলাকায় অশান্তি তৈরির চেষ্টা করছে।”

এদিকে তৃণমূল আর বিজেপির মধ্যে যখন এই দ্বন্দ্ব চলছে, ঠিক তখনই গত 2016 সালে তৃনমূলের পক্ষ থেকে দখল করে নেওয়া পাঁশকুড়ার রাতুলিয়ার পার্টি অফিস এদিন জেলা সম্পাদক নিরঞ্জন সিহির নেতৃত্বে তা পুনরুদ্ধার করল সিপিএম।আর তাই রসিকতা মিশিয়ে রাজনৈতিকমহলের দাবি- তৃণমূল বিজেপি-তৃণমূলের সংঘর্ষেসুযোগ বুঝে ক্ষীর খেলো সিপিআইএম

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!