এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > তৃণমূল ছাত্র পরিষদকে টেক্কা দিতে এবার নয়া রূপে নামছে এবিভিপি, জেনে নিন বিস্তারিত !

তৃণমূল ছাত্র পরিষদকে টেক্কা দিতে এবার নয়া রূপে নামছে এবিভিপি, জেনে নিন বিস্তারিত !



 

নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের বিরুদ্ধে নিজের দলের ছাত্রসংগঠনকে ময়দানে নামিয়ে দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। টানা 10 দিন ধরে ধর্মতলার রানী রাসমণি রোডে অবস্থান-বিক্ষোভ চালিয়েছে তৃণমূল ছাত্র পরিষদ। আর শাসকদলের ছাত্র সংগঠন এভাবে নাগরিকত্ব আইনৈর বিরুদ্ধে বিরোধিতা করায়, কিছুটা হলেও ব্যাকফুটে পড়ে গিয়েছে ভারতীয় জনতা পার্টি।

আর তাই এই পরিস্থিতিতে এবার নিজেদের ছাত্র সংগঠনকে শক্তিশালী করতে নয়া পদক্ষেপ গ্রহণ করল সঙ্ঘের অখিল ভারতীয় বিদ্যার্থী পরিষদ। সূত্রের খবর, এবার রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘের কায়দাতেই বাংলায় নিজেদের সাংগঠনিক ক্রিয়া-কলাপ চালানোর সিদ্ধান্ত নিল এবিভিপি। যেখানে উত্তর এবং দক্ষিণবঙ্গ ভাগ করে নিজেদের সাংগঠনিক কার্যকলাপ চালানোর সিদ্ধান্ত গ্রহণ করল তারা।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

জানা গেছে, রবিবার অখিল ভারতীয় বিদ্যার্থী পরিষদের 37 তম রাজ্য সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। আর সেখানেই এই সংগঠন ভেঙ্গে দুটি শাখা করা হয়। এক্ষেত্রে উত্তরবঙ্গের সাধারণ সম্পাদক করা হয় বিরাজ বিশ্বাসকে এবং সভাপতি করা হয় আশিস মণ্ডলকে। একইভাবে দক্ষিণবঙ্গের সাধারণ সম্পাদক করা হয় সুরঞ্জন সরকারকে এবং সভাপতি করা হয় সুদীপ মুখোপাধ্যায়কে। আর নিজেদের সাংগঠনিক ক্রিয়া-কলাপকে দ্বিধা বিভক্ত করে এদিনের এই রাজ্য সম্মেলন থেকে এনআরসির পক্ষে বার্তা দিতে দেখা যায় এবিভিপির নেতাদের।

শুধু তাই নয়, এনআরসির বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলোকেও এদিনের এই রাজ্য সম্মেলন থেকে তুলোধোনা করা হয়। এনআরসির বিরুদ্ধে যেভাবে শিক্ষকদের একাংশ পথে নেমেছে, এদিন তাঁর প্রবল সমালোচনা করেন আখিল ভারতীয় বিদ্যার্থী পরিষদের রাষ্ট্রীয় সংগঠন সম্পাদক সুনীল আম্বেকর। তিনি বলেন, “শিক্ষকরা পড়ুয়াদের ভুল পথে পরিচালিত করছে। যারা এমন করছে, তাদের তালিকা প্রকাশ করা হবে।”

অন্যদিকে জেএনইউয়ের ঘটনা প্রসঙ্গে এদিন এই এবিভিপি নেতা বলেন, “ওই বিশ্ববিদ্যালয়ের এবিভিপি কর্মীদের ওপর বাম ছাত্রনেতারা আক্রমণ করেছেন। সেখানকার হোস্টেল ওয়ার্ডেনকে জোর করে পদত্যাগ করানো হয়েছে।” পাশাপাশি গোটা রাজ্যজুড়ে এই এনআরসির স্বপক্ষে তারা প্রচার করবেন বলেও জানিয়ে দিয়েছে এবিভিপি। সব মিলিয়ে বিজেপির পাশাপাশি নিজেদের সংগঠনকে ভাগ করে এনআরসির স্বপক্ষে প্রচারে ঝাঁপিয়ে পড়তে চলেছে অখিল ভারতীয় বিদ্যার্থী পরিষদ।

আপনার মতামত জানান -

ট্যাগড
Top
error: Content is protected !!