এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > তৃণমূলের ভরা বাজারেও সংগঠন ‘ব্যর্থ’? ব্যর্থতার দায় নিয়ে জল্পনা বাড়ালেন হেভিওয়েট মন্ত্রী

তৃণমূলের ভরা বাজারেও সংগঠন ‘ব্যর্থ’? ব্যর্থতার দায় নিয়ে জল্পনা বাড়ালেন হেভিওয়েট মন্ত্রী



সাংগঠনিক শক্তির বিচারে তৃণমূল কংগ্রেস যে রাজ্যের সমস্ত রাজনৈতিক দলগুলোকে ছাপিয়ে উপরে উঠেছে সে কথা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। লোকসভা ভোটের আগেই বিভিন্ন রাজনৈতিক দল থেকে ঝাঁক বেঁধে বিরোধীরা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উন্নয়নে যোগ দিচ্ছেন। সে বিজেপি হোক বা কংগ্রেস কিংবা সিপিএম সব দল থেকে বিরোধীরা জনসমক্ষে দাঁড়িয়ে জোড়াফুল পতাকা তুলে নিচ্ছেন। লোকসভা ভোটের আগেই যেন জয়ের দিকে দু কদম এগিয়েই রয়েছে রাজ্যের শাসকদল। যেখানে গোটা রাজ্যেই দাপিয়ে বেড়াচ্ছে তৃণমূল সেখানে সম্পূর্ণ ভিন্ন নজির তৈরি করছে উপত্যকা। কথা হচ্ছে দার্জিলিং জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের। জয়ের লক্ষ্য স্থির থাকলেও,এখনো সাংগঠনিক দূর্বলতা কাটিয়ে উঠতে পারেনি তাঁরা। সাংগঠনিকভাবে বা জনপ্রতিনিধি নির্বাচনের ক্ষেত্রে এই জেলার অবস্থান রয়েছে সবথেকে পিছনে,এমনটাই স্বীকার করে নিলেন এদিন জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি গৌতম দেব। সাথেই এই ব্যর্থতার দায়ভার নিজের কাঁধেই তুলে নেন তিনি।

এদিন দার্জিলিং জেলা মহিলা তৃণমূল কংগ্রেসের রাজনৈতিক কর্মশালার আয়োজন করা হয় শিলিগুড়ির মিত্র সম্মেলনি হলে। সেখানেই উপস্থিত ছিলেন জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি গৌতম দেব। এছাড়া প্রধান বক্তা ছিলেন মহিলা তৃণমূল কংগ্রেসেী সভানেত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য। এখানেই বক্তব্য রাখতে উঠে গৌতম বাবু জানান,রাজ্যের লাগাম তৃণমূল কংগ্রেসের হাতে থাকলেও এখনো দার্জিলিং তৃণমূল কংগ্রেস বিরোধীদের ভূমিকাই পালন করছে। বুথ ভিত্তিক সংগঠন তৈরি করতে হবে এ দূর্বলতা কাটিয়ে ওঠার জন্য কিন্তু হাতে সময় একদম নেই। আর কয়েক মাসের ফারাকেই রয়েছে লোকসভা ভোট। তার আগেই সাংগঠনিক শক্তি বৃদ্ধির লক্ষ্যকে স্থির করে ‘ডু অর ডাই’ মনোভাব নিয়ে কাজ করার পরামর্শ দিলেন তিনি দলীয় কর্মী সদস্যদের। আর এ কাজ করতে স্যোশাল মিডিয়াকে ভালোভাবে কাজে লাগিয়ে  কোমর বেঁধে কর্মযজ্ঞে ঝাপিয়ে পড়ার বার্তাও দিলেন তিনি এদিন।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

ওদিকে,অনুষ্ঠানের প্রধান বক্তা হিসাবে চন্দ্রিমা দেবী কর্মশালার শুরুতেই কর্মঠ মনোভাব নিয়ে কাজ করার বার্তা দেন তৃণমূল কর্মী সমর্থকদের। গৌতম দেবের মতো তিনি বুথ লেভেল থেকে সংগঠন শক্তিশালী করার কথা জানান। তবেই জয়ের লক্ষ্যে পৌছানো যাবে বলে তিনি মনে করেন। পাশাপাশি তিনি আরো বলেন, রাজ্যসরকারের চালু করা প্রকল্পগুলোর প্রচার কর্মসূচিতে আরো ওয়াকিবহাল হওয়ার প্রয়োজন। সেগুলি নিয়ে দলের প্রতিটি কর্মীকে পড়াশুনোর করার পরামর্শ দিলেন তিনি। এই প্রকল্পের কথা সাধারণ মানুষের মধ্যে ছড়িয়ে দিলেই তৃণমূল কংগ্রেসের ভাবমূর্তি স্পষ্ট হবে আমজনতার কাছে। তারপর সাফল্য পেতে আর অসুবিধা হবে না। এসব পরিকল্পনাকে সামনে রেখে লোকসভা ভোটের আগে উপত্যকায় ঘাসফুলের মাটি আরো শক্ত হয় কিনা এখন সেটাই দেখার!

 

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!