এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > তৃণমূল অফিসে হামলার অভিযোগ ৩০ জনের বিরুদ্ধে, গ্রেপ্তার ৬ বিজেপি কর্মী

তৃণমূল অফিসে হামলার অভিযোগ ৩০ জনের বিরুদ্ধে, গ্রেপ্তার ৬ বিজেপি কর্মী



রাজ্যের পঞ্চায়েত নির্বাচনের মরশুম সন্ত্রস্ত করার অভিযোগে জেরবার যখন শাসকদল তখনই তাদের সাথে পাল্লা দিতেই একই পথে হাঁটছে পদ্মশিবিরও। অভিযোগ উঠছে তৃণমূলের পক্ষ থেকেও যে বিজেপি কর্মীরা সন্ত্রাস ছড়াচ্ছ,তাও তাঁদের লক্ষ করেই। রাজনৈতিক সূত্রের খবর থেকে জানা গেলো, সম্প্রতি খেজুরির  বিদ্যামন্দির এলাকার ৬ বিজেপি কর্মীকে হেফাজতে নিয়েছে তালপাটিঘাট কোস্টল থানার পুলিশ তৃণমূলের দলীয় কার্যালয়ে হামলা ও মারধোরের অভিযোগে। এদিন রাতে পঞ্চায়েত নির্বাচনীকার্য উপলক্ষে খেজুরির বিদ্যামন্দির এলাকায় তৃণমূলের দলীয় বৈঠক চলছিল। সেই সময় বিজেপির দুষ্কৃতিরা নাকি তাঁদের উপর হামলা চালায়। এমনটাই অভিযোগে জানায় স্থানীয় তৃণমূল কর্মীরা। এই  ঘটনার জেরে ৩০ জন বিজেপি কর্মীর নামে এফআইআর করেন তৃণমূলের স্থানীয় নেতা চিত্তরঞ্জন মাইতি।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

অভিযোগ দায়েরের পরই তদন্ত শুরু করে তালপটিঘাট কোস্টাল থানার পুলিস। ইতিমধ্যেই গ্রেফতার হয়েছে খেজুরি গ্রামের প্রণব সামন্ত এবং দীপক জানা এবং খেজুরিরই ওলিচক গ্রামের দেবেন আড়ি,ঝন্টু মাঝি,পবিত্র মাঝি ও গুরুপদ আড়ি। বুধবার সকালে  কাঁথি মহাকুমা আদালতে হাজিরা হয় তাঁদের। ধৃতদের বিরুদ্ধে পুলিশ অতর্কিতে হামলা,মারধোর ও খুনের চেষ্টার অভিযোগে কেস ফাইল করেন। তদন্তের জন্যে প্রণব সামন্তকে ৩ দিনের পুলিশ হেফাজতে রাখার নির্দেশ দিলোন বিচারক এবং বাকিদের কপালে জুটলো ১৪ দিনের কারাবাস। এ ব্যাপারে মুখ খোলেন বিজেপির কাঁথি সাংগঠনিক জেলার সভাপতি সোমনাথ রায়। তাঁর বক্তব্য,”হামলা চালাল তৃণমূলীরা আর গ্রেপ্তার করা হল বিজেপির কর্মীদের। যাঁদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে, তারা সকলেই নিরপরাধ। আসলে পুলিস-প্রশাসন শাসক দলের অঙ্গুলিহেলনে চলছে। আগামী দিনে ভোটের বাক্সেই এর প্রতিফলন ঘটবে।”

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!