এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > মুখ্যমন্ত্রীর দেখানো পথেই প্রতিবাদ করে তৃণমূলকে চাপে ফেলার কৌশল বিজেপির

মুখ্যমন্ত্রীর দেখানো পথেই প্রতিবাদ করে তৃণমূলকে চাপে ফেলার কৌশল বিজেপির



গত বৃহস্পতিবারই রাজ্য মন্ত্রীসভার বৈঠকে অহেতুক খরচ কমানোর ব্যাপারে সকলকে নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর মুখ্যমন্ত্রীর দখানো পথেই এবার তৃনমূল পরিচালিত কোলকাতা পৌরসভার অহেতুক খরচ নিয়ে সেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের তৃনমূলকেই চাপে ফেলতে তৈরি বিজেপি। জানা যায়,শুক্রবারই এনিয়ে পুরসভার মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায়কে একটি স্মারকলিপিও দেয় বিজেপি প্রভাবিত পুরকর্মী সংগঠন “শ্রমিক কর্মচারী সংঘ”। এ প্রসঙ্গে তাঁদের প্রশ্ন, স্বশাসিত সংস্থা হলেও রাজ্য সরকারের দেখানো পথেই চলে কোলকাতা পৌরসভা। তাহলে মুখ্যমন্ত্রী যখন সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রী ও দপ্তরের সমস্ত আধিকারিকদের খরচ কমানো সহ খাওয়া দাওয়া ও বিলাসবহুল ব্যাপার বন্ধ করার নির্দেশ দিচ্ছেন তখন তা কোলকাতা পুরসভার ওপর বলবৎ হবে না কেন? স্মারকলিপিতে তাঁরা দাবি করেছে, কোলকাতা পুরসভা অর্থনৈতিক সঙ্কটের মধ্যে দিয়ে চলছে।অবসর নেওয়ার 6-8 মাস পরে পেনশন পাচ্ছেন কর্মীরা।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

 এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

তাই পুরসভার এই অত্যাধিক মাত্রার খরচও কমানো দরকার। এ প্রসঙ্গে এদিন বিজেপি প্রভাবিত শ্রমিক সংগঠনের সাধারন সম্পাদক অশোক সিনহা বলেন,  “পুরসভার গাড়ি পাওয়ার কথা না থাকলেও বেশ কিছু ব্যাক্তি দিনের পর দিন এই সুবিধা ভোগ করেন। এছাড়াও কোনো অনুষ্টান হলেই 100 র বেশি প্যাকেট অর্ডার দেওয়া হয়। তাই যেহেতু রাজ্য সরকার ও পুরসভা দুজায়গাতেই তৃনমূল রয়েছে তাই মুখ্যমন্ত্রীর করা নিয়ম পুরসভাতেও বলবৎ করা হোক।” অন্যদিকে এ নিয়ে বিজেপিকে কটাক্ষ করতে ছাড়েননি রাজ্যের বিদ্যুৎমন্ত্রী তথা আইএনটিটিইউসি অনুমোদিত ইউনিয়নের নেতা শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়। তিনি বলেন, “ওরা যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অনুগামী হয়েছেন তাতে আমি খুশি। তবে যাদের দলের প্রধানমন্ত্রী মোটা টাকার জহর কোট পড়েন তাদের মুখে এসব মানায় না। সরকারের নির্দেশ খুব শীঘ্রই পুরসভাতে কার্যকর হবে।” তবে এই রাজনৈতিক তরজায় না ঢুকে অতীতের মতই খেলা, মেলাতে টাকা খরচ করবার জন্য রাজ্য সরকারকে কটাক্ষ করেন সিপিএম প্রভাবিত কেএমসি ক্লার্কস ইউনিয়নের সাধারন সম্পাদক অমিতাভ ভট্টাচার্য। তবে কোলকাতা পুরসভা সূত্রের খবর, শুক্রবারই এনিয়ে তারা একটি সিদ্ধান্তও নিয়েছে। যেখানে অধিবেশন, বরো মিটিং, মেয়র পরিষদের বৈঠকের ভুরিভোজ এবং ফুল দিয়ে সাজানো,উপহার দেওয়ার মত বিষয়গুলিকে বাদ দিচ্ছে তাঁরা। সব মিলিয়ে রাজ্য সরকারের পরে এবার অর্থসঞ্চয় ও ব্যায়সঙ্কোচের পথে কোলকাতা পৌরসভাও।

 

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!