এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > সংখ্যালঘু মহিলা ভোট নিজেদের দিকে আনতে তিন তালাকের পর নতুন পথে বিজেপি

সংখ্যালঘু মহিলা ভোট নিজেদের দিকে আনতে তিন তালাকের পর নতুন পথে বিজেপি



রাজ্যে সংখ্যা লঘু ভোট বৃদ্ধির লক্ষ্যে নয়া কৌশল রাজ্য বিজেপির। তিন তালাক প্রথার বিরুদ্ধে দেশ জুড়ে যখন তীব্র আন্দোলন চলছে সেই সময়েই এই আন্দোলনকে অস্ত্র করে ইতিবাচক ভূমিকা দেখিয়ে উত্তরপ্রদেশে বিধানসভা নির্বাচনে দলের সাফল্য এসেছিলো বলে মনে করে গেরুয়া শিবির। এবার সেই একই পথে হেঁটে পিতার সম্পত্তিতে মুসলিম মহিলাদের পুরুষের সমান এবং অনায়াস অধিকারের দাবিকে অস্ত্র করে আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের আগে সরব হতে চলেছে পশ্চিমবঙ্গ বিজেপি। রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস যদিও এতে ইতিবাচক কিছু খুঁজে পাচ্ছেনা। বরং তাদের মতে এটা গেরুয়া শিবিরের ‘বিভাজনের কৌশল’ ভিন্ন অন্য কিছু না। এই প্রসঙ্গে রাজ্য বিজেপি-র সাধারণ সম্পাদক প্রতাপ বন্দ্যোপাধ্যায় ব্যখ্যা করে বললেন, ”এ বিষয়ে প্রচার আন্দোলন শুরু করেছি।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

 এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

ধীরে ধীরে বিক্ষোভ আন্দোলনে যাওয়া হবে। অন্য রাজ্যে মুসলিম পার্সোনাল ল-র বাইরে গিয়ে মহিলাদের বাবার সম্পত্তিতে পুরুষের সমান অধিকার দেওয়া হয়। এ রাজ্যেও এই ব্যবস্থা চালু করতে চাই।” রাজ্য বিজেপি-র একাংশের ব্যাখ্যা, দলীয় নেতৃত্ব বুঝতে পারছেন, এ রাজ্যের প্রায় ৩০% মুসলিম ভোটকে সম্পূর্ণ উপেক্ষা করে নির্বাচনে জেতা সম্ভব নয়। উল্লেখ্য গত ২৭ শে জুন বিজেপির সর্ব ভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ’র রাজ্য সফর কালে কলকাতা এবং হাওড়ায় একাধিক দলীয় বৈঠকে ‘উত্তরপ্রদেশ মডেল’-এর উদাহরণ দিয়েছিলেন তিনি রাজ্য নেতৃত্বকে উজ্জ্বীবিত করতে চেষ্টা করেছিলেন। এদিন প্রতাপবাবু আরোও বললেন, ”লোকসভা ভোটের ময়দানে আমরা এটাও বলব যে, বিধানসভায় জিতলে আমাদের সরকার এ রাজ্যের মুসলিম মহিলাদের পৈতৃক সম্পত্তিতে পুরুষের সমান অধিকার দেবে।” যদিও রাজ্যের মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম তাঁর ব্যক্তিগত প্রতিক্রিয়া জানিয়ে বললেন, ”আমাদের রাজ্যে এ রকম কোনও সামাজিক সমস্যা নেই। সাম্প্রদায়িক তাস খেলা ছাড়া বিজেপি-র আর কোনও কাজ নেই। তাই ওরা জোর করে এ সব সমস্যা দেখাতে চাইছে। কিন্তু এ সব বিভাজনের কৌশল করে বাংলায় ভোট জেতা যাবে না।” এখন গেরুয়া শিবিরের নয়া কৌশল রাজ্যের বর্তমান পরিস্থিতিতে কতটা সার্থক হয় তার উত্তরের জন্যে লোকসভা নির্বাচন অবধি অপেক্ষা করতেই হবে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!