এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > টেন্ডার দুর্নীতি রুখতে এবার বড় পদক্ষেপ নিল রাজ্য সরকার

টেন্ডার দুর্নীতি রুখতে এবার বড় পদক্ষেপ নিল রাজ্য সরকার



সম্প্রতি রাজ্য মন্ত্রীসভার বৈঠকে সরকারের বিভিন্ন দপ্তরকে খরচ কমানোর নির্দেশ দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এবার রাজ্যের পুরসভাগুলির টেন্ডারের পেছনে লুকিয়ে থাকা ঘুঘুর বাসা ভাঙতে তৎপর হল রাজ্য সরকার। সূত্রের খবর, বেশ কিছুদিন ধরেই রাজ্যের বিভিন্ন পুরসভাগুলির টাকা নয়ছয় এমনকী নিজের কাজ পুরসভার নিজস্ব দপ্তর দিয়ে করানোর জন্য কাজের নিম্নমানতা ও টাকা গরমিলের অভিযোগে ঘনিষ্ট মহলে অসন্তোষ প্রকাশ করেছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

 এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

এবারে এই সমস্ত অভিযোগকে সম্পূর্নরুপে বিলীন করার উদ্দেশ্যেই বাড়তি খরচ ও সরকারি প্রকল্পের অর্থের নয়ছয় রুখতে এক নতুন নির্দেশিকা জারি করল নবান্ন। তবে এই নতুন কমিটির কাজ কী হবে? সূত্রের খবর, এবার থেকে পুরসভাগুলিকে বিভিন্ন কাজের গন্য অর্থ দপ্তরের অনুমতি নিতে হবে। যদি অর্থদপ্তরের সম্মতি মেলে তবেই শুরু হবে এই কাজ।

এখানেই শেষ নয়, নির্দেশিকায় স্পষ্ট ভাষায় বলা আছে যে, সরকারি সংস্থা নয় এবার থেকে নির্দিষ্ট টেন্ডার ডেকে উপযুক্ত সংস্থাকেই দেওয়া হবে বিভিন্ন কাজের বরাত। ইতিমধ্যেই পঞ্চায়েত ও পুরসভার অর্থ ঠিকমত খরচ করা হচ্ছে কি না তা খতিয়ে দেখতে একটি স্থানীয় তহবিল কমিটিও গঠন করা হয়েছে।

অনেকেই মনে করছেন, নতুন এই কমিটির ফলে রাজ্যের পুরসভাগুলিতে যেভাবে টেন্ডারের জন্য ‘হরির লুট’ পড়ত, তা অনেকটাই কমতে শুরু করবে। এমনকী এই নির্দেশিকার ফলে বিভিন্ন পুরসভা এমন কিছু কাজ নিজেদের হাতে নেবে যা জনসাধারনের জন্য প্রয়োজনীয় এবং যাতে সরকারের অর্থদপ্তরের সবুজ সংকেত মেলে। সব মিলিয়ে পুরসভার টেন্ডারের দুর্নীতি রুখে দিগন্তকারী পদক্ষেপ নিল রাজ্য সরকার।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!