এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > তৃণমূল > শুভেন্দু দলবদল করতেই রাজনীতি থেকে সরে দাঁড়ালেন হেভিওয়েট নেতা, বাড়ছে জল্পনা!

শুভেন্দু দলবদল করতেই রাজনীতি থেকে সরে দাঁড়ালেন হেভিওয়েট নেতা, বাড়ছে জল্পনা!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – সম্প্রতি মেদিনীপুরের মাটি থেকে অমিত শাহের হাত ধরে বিজেপিতে যোগদান করেছেন তৃণমূল কংগ্রেসের শীর্ষ নেতা তথা রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী। স্বাভাবিক ভাবেই শুভেন্দু অধিকারী দলবদল করতে না করতেই যে সমস্ত জেলায় তিনি তৃণমূল কংগ্রেসের পর্যবেক্ষকের দায়িত্বে ছিলেন, সেই সমস্ত জেলায় ব্যাপক ভাঙ্গন ধরতে পারে বলে মনে করেছিলেন একাংশ।

আর এই পরিস্থিতিতে এবার জল্পনা বাড়িয়ে নিজের রাজনৈতিক জীবন থেকে সরে দাঁড়ানোর গুঞ্জন তৈরি হল মালদহ জেলা তৃণমূলের সাধারণ সম্পাদক তথা জেলা পরিষদের সদস্য সামিউল ইসলামের একটি পদক্ষেপকে কেন্দ্র করে। সূত্রের খবর, সোমবার সামিউল ইসলাম চাচোল বিএড কলেজে ভর্তি হতেই নতুন করে জল্পনা তৈরি হতে শুরু করেছে।

কিন্তু তিনি তো মালদহ জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের অন্যতম নেতা। সেক্ষেত্রে রাজনীতির বাদেও আবার নতুন করে শিক্ষাঙ্গনে কেন প্রবেশ করলেন তিনি! তাহলে কি রাজনীতি থেকে ধীরে ধীরে সরে দাঁড়ালেন তিনি? এখন তা নিয়ে নানা মহলে তৈরি হয়েছে প্রশ্ন। তবে সামিউল ইসলাম শিক্ষাঙ্গনের সঙ্গে যুক্ত হবেন বলে জানা গেলেও, তিনি যে রাজনীতি ছাড়ছেন না, তা জানিয়ে দিয়েছেন তিনি।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

এদিন এই প্রসঙ্গে সামিউল ইসলাম বলেন, “বিএড কলেজে ভর্তি হলেও জনগণের স্বার্থে আমি রাজনীতিতে থাকব। মানুষের হয়ে কাজ করে যাব। শিক্ষকতা পবিত্র পেশা। তাই রাজনীতির পাশাপাশি ভবিষ্যতে এই পেশাতে নিজেকে নিয়োজিত করে জীবিকা নির্বাহ করতে চাই।” একাংশ বলছেন, পারিবারিক সূত্রেই শিক্ষকতা সঙ্গে জড়িত এই সামিউল ইসলাম। তবে শুভেন্দু অধিকারী দলবদল করার পর হঠাৎ করেই তার বিএড কোর্সে ভর্তি হয়ে যাওয়া রাজনৈতিক মহলের চাঞ্চল্যকে অনেকাংশেই বাড়িয়ে দিতে শুরু করেছে।

কেননা শুভেন্দু অধিকারী বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পর মালদহ জেলা তৃণমূলের অন্দরে ভাঙ্গন ধরবে বলে দাবি করেছিল একাংশ। আর এই পরিস্থিতিতে এই হেভিওয়েট তৃণমূল নেতার শিক্ষক জগতে পা বাড়ানো নতুন করে আশঙ্কা তৈরি করল রাজনৈতিক মহলে। তবে সামিউল ইসলামের অন্য জগতে পা বাড়ানোর সঙ্গে রাজনৈতিক জগৎ থেকে সরে যাওয়ার কোনো সম্পর্ক নেই বলেই দাবি করছেন তার ঘনিষ্ঠজনরা। সব মিলিয়ে গোটা পরিস্থিতি কোথায় গিয়ে দাঁড়ায়, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!