এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > শুভেন্দু অধিকারী কি আসছেন বিজেপিতে? মুখ খুলে জল্পনা বাড়ালেন খোদ অমিত শাহ!

শুভেন্দু অধিকারী কি আসছেন বিজেপিতে? মুখ খুলে জল্পনা বাড়ালেন খোদ অমিত শাহ!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – গোটা বাংলা জুড়ে এখন চর্চার চর্চিত কেন্দ্রবিন্দুতে রয়েছে তৃণমূলের শীর্ষ নেতা তথা রাজ্যের পরিবহনমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী। দল কিংবা সরকারের সঙ্গে ক্রমাগত দূরত্ব বাড়াতে দেখা যাচ্ছে তাকে। স্বাভাবিক ভাবেই এমত পরিস্থিতিতে গোটা রাজ্য জুড়ে জল্পনা তৈরি হচ্ছে, শুভেন্দু অধিকারী কি তাহলে আগামী বিধানসভা নির্বাচনের আগে যোগ দেবেন ভারতীয় জনতা পার্টিতে! গুঞ্জন ক্রমশ বাড়তে শুরু করেছিল যখন রাজ্যে আসার কথা শোনা গিয়েছিল বিজেপির সর্বভারতীয় চাণক্য তথা কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের।

স্বাভাবিক ভাবেই অমিত শাহ রাজ্যে আসলে বিজেপির এই শীর্ষ নেতার হাত ধরেই শুভেন্দু অধিকারী গেরুয়া শিবিরে নাম লেখাতে পারেন বলে দাবি করেছিলেন একাংশ‌। যদিও বা প্রথম থেকেই শুভেন্দু অধিকারী জানিয়ে দিয়েছিলেন, তার মুখ থেকে কিছু না শুনে কেউ যেন কোনো মন্তব্য না করেন। তবে এখনও পর্যন্ত শুভেন্দু অধিকারীর দলবদলের কোনো খবর পাওয়া যায়নি। এমতাবস্তায় এবার রাজ্যে এসে সেই শুভেন্দু অধিকারীকে নিয়ে জল্পনা ক্রমশ বাড়িয়ে দিলেন বিজেপির কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ।

সূত্রের খবর, এদিন নিউটাউনে সাংবাদিক বৈঠকে শুভেন্দু অধিকারীকে নিয়ে প্রশ্ন করা হলে অমিত শাহ বলেন, “শুভেন্দু অধিকারীর সঙ্গে আমার কোনো কথা হয়নি। তবে অনেকেই বিজেপিতে যোগ দিতে ইচ্ছুক। ভোটের পরেও কেউ বিজেপিতে এলে স্বাগত জানানো হবে।” একাংশ বলছেন, অমিত শাহ শুভেন্দু অধিকারী সম্পর্কে নির্দিষ্টভাবে কোনো কিছু না বলে কার্যত বুঝিয়ে দিলেন, তৃণমূলের অনেকেই বিজেপির সঙ্গে যোগাযোগ রাখতে শুরু করেছেন। স্বাভাবিকভাবেই এই তালিকায় শুভেন্দু অধিকারী পড়েন কিনা, সেই বিষয়টা অমিত শাহ স্পষ্ট না করলেও, তার ইঙ্গিত যে কার্যত জল্পনা বাড়িয়ে দিয়েছে, তা বলাই যায়।

বলা বাহুল্য, শুভেন্দু অধিকারীকে নিয়ে জল্পনার মাঝেই কৈলাস বিজয়বর্গীয় থেকে শুরু করে দিলীপ ঘোষ, সৌমিত্র খাঁ, এমনকি অগ্নিমিত্রা পালের গলায় নানা জল্পনা সূচক মন্তব্য শোনা গেছে। অনেকেই শুভেন্দু অধিকারীকে বিজেপিতে আসবার আহ্বান জানিয়েছেন। স্বাভাবিক ভাবেই এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে অমিত শাহ রাজ্যে আসার পরই এই ব্যাপারে বড় কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে বলে দাবি করেছিলেন একাংশ। কিন্তু এদিন সাংবাদিক বৈঠকে সেই ব্যাপারে মন্তব্য করে “তালিকা অনেক লম্বা” বলে তৃণমূলের অস্বস্তি বাড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা করলেন বিজেপির সর্বভারতীয় চাণক্য।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, শুভেন্দু অধিকারীকে বড় কোনো জায়গা দেওয়া হবে বলে তৃণমূলের অন্দরে দীর্ঘদিন ধরেই জল্পনা চলছিল। কিন্তু সাংগঠনিক বৈঠকে শুভেন্দু অধিকারীকে জায়গা দেওয়া তো দূরের কথা, উল্টে তিনি যে সমস্ত জেলার দায়িত্বে ছিলেন, সেখান থেকে তাকে সরিয়ে দিয়ে পর্যবেক্ষক পদই তুলে দিয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস। দলের সঙ্গে ক্রমাগত দূরত্ব বজায় রাখতে দেখা যাচ্ছে শুভেন্দু অধিকারীকে। বিভিন্ন অরাজনৈতিক কর্মসূচিতে গিয়ে ইঙ্গিতপূর্ণ মন্তব্য করছেন তিনি। যাকে কেন্দ্র করে জল্পনা আরও বাড়ছে।

বিভিন্ন জায়গায় শুভেন্দু অধিকারীর ছবি দিয়ে “দাদার অনুগামী” বলে পোস্টার টাঙানো হচ্ছে। আর এই পরিস্থিতিতে শুভেন্দু অধিকারী নিজের অনুগামীদের সংগঠিত করে নতুন কোনো রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত নিতে পারেন বলে জল্পনা তৈরি হয়েছিল। সেদিক থেকে তিনি হয় নতুন কোনো দল খুলতে পারেন, তা না হলে তিনি গেরুয়া শিবিরে যোগদান দিতে পারেন বলে দাবি করেছিলেন একাংশ। আর এই অবস্থায় সেই শুভেন্দু অধিকারী সম্পর্কে মন্তব্য করে অমিত শাহ তৃণমূলের অস্বস্তিকে দ্বিগুণভাবে বাড়িয়ে দিলেন বলেই দাবি বিশ্লেষকদের।

শুভেন্দু অধিকারী বিজেপিতে যোগ দেবেন কিনা, এখন তা বড় প্রশ্ন বাংলার রাজনীতিতে। কিন্তু তার মাঝেই তার সঙ্গে শুভেন্দু অধিকারীর কথা হয়নি বলে অমিত শাহ জানিয়ে দিয়ে অনেকেই বিজেপিতে যোগ দিতে চাইছেন বলে মন্তব্য করলেন। স্বাভাবিকভাবেই বড় কোনো নেতার নাম অমিত শাহ নিতে না চাইলেও, তিনি তার কথার মধ্যে দিয়ে বার্তা দিতে চাইলেন যে, আগামীদিনে বড় কোনো পরিবর্তন হতে পারে বঙ্গ রাজনীতিতে। সব মিলিয়ে অমিত শাহের এই বক্তব্য কতটা ইঙ্গিতবাহী এবং এর সঙ্গে আগামীদিনে শুভেন্দু অধিকারীর রাজনৈতিক সিদ্ধান্তের কোনো মিল পাওয়া যায় কিনা, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!