এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > শুভেন্দু অধিকারীর বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ দিয়ে পড়ল ফ্লেক্স, জোর চাঞ্চল্য!

শুভেন্দু অধিকারীর বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ দিয়ে পড়ল ফ্লেক্স, জোর চাঞ্চল্য!



তিনি তৃণমূলের হেভিওয়েট নেতা। পূর্ব মেদিনীপুর জেলায় তাঁর দাপটে কার্যত বাঘে গরুতে একঘাটে জল খায়। বর্তমানে শুভেন্দু অধিকারী যেমন রাজ্যের একাধিক দপ্তরের মন্ত্রী, ঠিক তেমনই দক্ষ সংগঠক হিসেবে বিভিন্ন জেলায় পর্যবেক্ষকের ভূমিকা পালন করতে দেখা যাচ্ছে তাকে। কিন্তু সেই শুভেন্দু অধিকারীর বিরুদ্ধেই এবার তার নিজের গড় পূর্ব মেদিনীপুরে ফেস্টুন পড়ায় রীতিমতো চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ল।

প্রসঙ্গত, প্রায় এক সপ্তাহ আগে কোলাঘাট তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের এক আধিকারিককে মার ধরে নাম জড়ায় তৃণমূলের হেভিওয়েট নেতা তথা শুভেন্দু অধিকারীর ঘনিষ্ঠ বলে পরিচিত দিবাকর জানার। আর এর পরেই দিবাকরবাবুর সঙ্গে কোনো সম্পর্ক নেই বলে বোঝাতে তাকে তৃণমূলের তরফে সাসপেন্ড করা হয়। দিবাকরবাবুও থানায় আত্মসমর্পণ করেন। তবে তারপরেও শুভেন্দু অধিকারীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাতে ভোলেননি সেই অভিযুক্ত তৃণমূল নেতা দিবাকর জানা। তবে বরাবরই তৃণমূল দোষীদের আশ্রয় দেবে না বলে জানিয়ে দিয়েছে তৃণমূল নেতৃত্ব।

কিন্তু শুভেন্দু অধিকারী দিবাকর জানার সঙ্গে তার যোগকে ছেড়ে ফেলতে চাইলেও, তা সম্ভব হল না‌। সূত্রের খবর, রবিবার সকালে পূর্ব মেদিনীপুরের মেচেদা বাজারে জাতীয় সড়কের ধারে দিবাকর জানাকে নিয়ে যে ঘটনা ঘটেছে, তার মূল কান্ডারী শুভেন্দু অধিকারী বলে একটি ব্যানার পড়তে দেখা গেছে। যেখানে সেই ব্যানারে শুভেন্দু অধিকারীর পাশাপাশি আরও বেশ কয়েকজন তৃণমূল নেতার বিরুদ্ধে করা হয়েছে দুর্নীতির অভিযোগ। আর যা নিয়ে এখন তীব্র গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়েছে গোটা মুর্শিদাবাদ জেলা জুড়ে। জানা যায়, ফ্লেক্সে লেখা ছিল, “কেটিপিপির নির্ভীক জিএমকে জব্দ করার জন্য লালু ও সেলিম দ্বারা একান্ত নাটক রচয়িতা ও জামিনের পর রাজকীয় বরণ। ছাই খাদানে নতুন তোলাবাজির গ্রুপ টুটুল মল্লিক, লক্ষন মাইতি, সুবর্ণ সামাই প্রভৃতি খাদানে প্রত্যহ 7 লক্ষ 20 হাজার টাকা তোলার কান্ডারী শুভেন্দু অধিকারী। ছিঃ শুভেন্দু ছিঃ ছিঃ ছিঃ।”

 

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

 

আর যে শুভেন্দু অধিকারীর বিরুদ্ধে কেউ মুখ খুলতে পারে না, সেই তার গড়েই যেভাবে তার বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ তুলে পোস্টার পড়ল, তাতে নিঃসন্দেহে বিপাকে পড়ল অধিকারী পরিবার বলেই মনে করছে একাংশ। ইতিমধ্যেই এই ফ্লেক্সটি সোশ্যাল-মিডিয়ায়-ভাইরাল হয়ে গিয়েছে। তবে এই ফ্লেক্স কোথাও দেখা যায়নি বলে দাবি করেছেন পূর্ব মেদিনীপুর জেলার তৃণমূলের সভাপতি তথা সাংসদ শিশির অধিকারী। তবে তৃণমূলের একাংশ আবার এই ঘটনায় বিজেপির বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের অভিযোগ তুলছেন। এদিকে ইতিমধ্যেই এই ব্যাপারে তৃণমূল কংগ্রেসকে চেপে ধরেছে ভারতীয় জনতা পার্টি।

এদিন এই প্রসঙ্গে শুভেন্দু অধিকারীকে কটাক্ষ করে জেলা বিজেপির সভাপতি নবারুণ নায়েক বলেন, “তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রে এই ধরনের কাজে কারা জড়িত ছিল, সবাই জানেন। নিজেদের দলের কোন্দল ঢাকা দিতে এখন তৃণমূলের পক্ষ থেকে আমাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ করা হচ্ছে।” তবে যে যাই বলুন না কেন, যেভাবে তৃণমূলের শক্ত ঘাঁটি পূর্ব মেদিনীপুর জেলায় তৃণমূলের দক্ষ সংগঠক তথা মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীর বিরুদ্ধে পোস্টার পড়ল, তাতে এখানে শাসক দল এবং অধিকারী পরিবারের চিন্তা অনেকটাই বৃদ্ধি পেল বলে দাবি ওয়াকিবহাল মহলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!