এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > এবার কি বিজেপিতে আসতে চলেছেন শুভেন্দু অধিকারী? বিজেপি নেতার মন্তব্যে জোর জল্পনা

এবার কি বিজেপিতে আসতে চলেছেন শুভেন্দু অধিকারী? বিজেপি নেতার মন্তব্যে জোর জল্পনা



 

রাজ্যে আইনের শাসন নেই বলে মাঝেমধ্যেই দাবি করতে দেখা যায় গেরুয়া শিবিরকে। পুলিশ ছাড়া তৃণমূলের পাশে আর কেউ নেই বলেও দাবি করেন রাজ্যের বিজেপি নেতারা। এমনকি কিছু কিছু ক্ষেত্রে যে সমস্ত পুলিশকর্মীরা শাসকদলের অঙ্গুলিহেলনে চলছেন “ক্ষমতায় এলে তাদের দেখে নেওয়া হবে” বলেও বিস্ফোরক মন্তব্য শোনা গেছে বিজেপি নেতাদের গলায়। যা নিয়ে বিভিন্ন মহলে নানা সময় নানা প্রশ্ন উঠেছে।

আর এবার পুলিশকে ধমক দিয়ে প্রবর বিতর্কে জড়িয়ে পড়লেন রাজ্য বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসু। বস্তুত, হাতে আর মাত্র কিছুদিন বাকি। তারপরেই খড়গপুর বিধানসভা কেন্দ্রের উপনির্বাচনের অনুষ্ঠিত হবে। ইতিমধ্যেই সেখানে জোর প্রচার চলছে। তবে এই উপনির্বাচনকে কেন্দ্র করে বেশ কিছু এলাকায় শাসক-বিরোধী সংঘর্ষ লক্ষ্য করা গেছে।

মেদিনীপুর সদর ব্লকের ছেরুয়া, বামুনডিহি সহ একাধিক এলাকায় তৃণমূল দুষ্কৃতীর তাদের ওপর হামলা চালাচ্ছে বলে অভিযোগ করেছে বিজেপি।তাদের দাবি, ইতিমধ্যেই তৃণমূলের সন্ত্রাস বাহিনীর আতঙ্কে তাদের 400 কর্মী ঘরছাড়া হয়ে গিয়েছেন। আর এই পরিস্থিতিতে দলের কর্মীদের পাশে দাঁড়াতে বৃহস্পতিবার মেদিনীপুরে যায় বিজেপির একটি প্রতিনিধিদল। যে প্রতিনিধি দলে ছিলেন রাজ্য বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসু।

 


ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

 

জানা যায়, এদিন নিরাপত্তার কারণে বেশ কিছুটা আগেই সায়ন্তন বসু এবং অন্যান্য বিজেপি নেতাদের আটকে দেয় পুলিশ। আর এরপরই রীতিমতো ক্ষোভে ফেটে পড়েন সেই সায়ন্তনবাবু। সূত্রের খবর, কর্তব্যরত ডিএসপি পদমর্যাদার এক পুলিশ আধিকারিককে হুমকি দিয়ে তিনি বলেন, “শুভেন্দু অধিকারীর কথায় চলছেন! দুদিন পর যখন শুভেন্দু বিজেপিতে যোগ দেবেন, তখন কোথায় যাবেন!” আর বিজেপির সায়ন্তন বসুর এই মন্তব্য নিয়েই এখন শুরু হয়ে গিয়েছে জল্পনা।

অনেকে বলছেন, পুলিশকে হুমকি দেওয়ার পর শুভেন্দু অধিকারীকে নিয়ে সায়ন্তন বসু যে মন্তব্য করলেন, তা কি সত্যি হতে চলেছে! রাজ্যে তৃণমূল থেকে বিজেপিতে যোগদান শুরু হয় মুকুল রায়ের হাত ধরে। এরপর একে একে তৃণমূলের সংসদ, বিধায়করা বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন ও দিচ্ছেন ও। জল্পনা বাড়িয়ে বিজেপি নেতারা বার বার দাবি করছেন যে ১০৭ জন বিধায়ক তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিতে চলেছেন।

আর এখন তৃণমূলের যার উপরে সবচেয়ে বেশি ভরসা নেত্রীর সেই শুভেন্দু অধিকারীকে যদি বিজেপিতে টানা যায় তাহলে তো কেল্লা ফতে – ফলে তাঁর বিজেপিতে যোগ দেওয়া নিয়েও বার বার জল্পনা ছড়িয়েছে। তবে শুভেন্দুবাবু বার বার বিজেপিতে যোগ দেওয়ার কথা অস্বীকার করেছেন।

উপনির্বাচনের মুখে শুভেন্দুবাবুর বিজেপিতে যোগদান জল্প কিছু হলেও থিতিয়ে ছিল। এবার ফের সেই জল্পনায় ঘি ঢাললেন বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসু। ফলে ফের ঝড় উঠলো রাজনৈতিকমহলে। যদিও এই নিয়ে এখনো পর্যন্ত শুভেন্দুবাবুর কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি। এখন দেখার আগে কি হয় ? সব মিলিয়ে এবার বিজেপির হেভিওয়েট নেতা সায়ন্তন বসুর মন্তব্যে রাজ্য রাজনীতিতে ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ল।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!