এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > সুপ্রিম কোর্টে পঞ্চায়েত মামলা – কে কি বললেন? কবে হবে রায়দান? জেনে নিন বিস্তারিত

সুপ্রিম কোর্টে পঞ্চায়েত মামলা – কে কি বললেন? কবে হবে রায়দান? জেনে নিন বিস্তারিত



শুনানি শেষ হলেও পঞ্চায়েত মামলার রায়দান করল না সুপ্রিম কোর্ট। ফলে স্বভাবতই রাজ্যের পঞ্চায়েত নির্বাচনে যে ২০,০০০ এরও বেশি আসনের প্রতিদ্বন্দ্বীতা হয়নি সেই ভবিষ্যত অনিশ্চয়তার অন্ধকার থেকে এখনও আলোর দিশা দেখলো না রাজ্য । এদিন সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্র আগামী কয়েকদিনের মধ্যেই এই মামলার রায়দান হবে এই বিষয়ে আশ্বাস দিলেন বটে কিন্তু একই সাথে এই মামলায় আদালতের মূল সংশয়ের বিষয় ইঙ্গিত করে জানালেন ঐ আসনে পুননির্বাচন আদৌ বিধিসম্মত কি না সেই বিষয়ে এখনও ভাবনা চিন্তা চলছে।

এদিন রাজ্যের পক্ষ থেকে সুপ্রিম কোর্টে আর্জি জানানো হয় যে ১৮ই অগষ্ট ৩ হাজারের বেশি গ্রাম পঞ্চায়েতের মেয়াদ শেষ হয়ে গিয়েছে। ফলে উন্নয়নের ২২ হাজার কোটি টাকা ফেরৎ চলে যাচ্ছে। এই প্রসঙ্গে রাজ্যের আইনজীবী বিকাশ সিংহ বললেন,‘‘গত দু’দিন বিচারপতিরা না থাকায় শুনানি হয়নি। আজই রায় ঘোষণার মিনতি জানাচ্ছি।’’ প্রসঙ্গত পঞ্চায়েত দফতরের কর্তারা জানিয়েছেন, রাজ্যের মোট ৩,২০৭টি গ্রাম পঞ্চায়েতের মেয়াদ শেষ গিয়েছে।যার মধ্যে ১,৫১৫টিতে গ্রাম পঞ্চায়েত গঠন করা সম্ভব হচ্ছে এবং অবশিষ্ট  ১,৬৯২টি পঞ্চায়েত গঠন করা সম্ভব হচ্ছেনা। তবে এখনও কোনো পঞ্চায়েত সমিতি বা জেলা পরিষদের মেয়াদ শেষ হয়নি।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

আদলতের প্রধানবিচারপতি এদিন মামলাকারীদের আনা অভিযোগের ভিত্তিতে তাদের উদ্দেশ্যে সওয়াল করে বললেন,”আপনারা বলতে চাইছেন, গণতন্ত্রের মূল মন্ত্র যে বহুদলীয় ব্যবস্থা, সেটা এখানে কাজ করেনি।” তাঁর ব্যাখ্যায়, এই মামলায় প্রধান বিচার্য বিষয় হলো নির্বাচনের নিরপেক্ষতা ও সততা। রাজ্যে যখন কোনও নির্বাচনী প্রতিদ্বন্দ্বিতা হচ্ছে না, তখন নির্বাচনের সততা বজায় থাকছে কি না সেই বিষয়েও তিনি সংশয় প্রকাশ করেন। আর যেখানে মনোনয়নপত্র পেশ করার ক্ষেত্রেই বাধা দেওয়া হয়েছে সেখানে নির্বাচনের বৈধতা নিয়েও তিনি সওয়াল করলেন। অবশ্য রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে সাংসদ কল্যান বন্দ্যোপাধ্যায় বললেন, ‘‘বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জেতা প্রার্থীরা শংসাপত্র পেয়ে গিয়েছেন। তাঁদের কথা না শুনে কি আদালত তাঁদের নির্বাচন খারিজ করে দিতে পারে?’’

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!