এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > শুধুই কি চ্যালেঞ্জ? নাকি অন্য কোনো কারনে ভবানীপুর ছেড়ে দিলেন মুখ্যমন্ত্রী?

শুধুই কি চ্যালেঞ্জ? নাকি অন্য কোনো কারনে ভবানীপুর ছেড়ে দিলেন মুখ্যমন্ত্রী?



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – তেখালির জনসভা থেকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছিলেন যে, আগামী বিধানসভা নির্বাচনে নন্দীগ্রাম থেকে লড়াই করার ইচ্ছা প্রকাশ করছেন তিনি। তবে নিজের কেন্দ্র ভবানীপুরকেও নিরাশ করবেন না তিনি। সম্ভব হলে দুটি আসন থেকেই তিনি লড়াই করবেন। তাঁর এই ঘোষণার পর শুভেন্দু অধিকারী জানিয়েছিলেন যে, দুটি নয় একটি আসন থেকেই তাঁকে লড়াই করতে। সেইসঙ্গে তিনি বলেছিলেন যে, নন্দীগ্রামে মুখ্যমন্ত্রীকে ৫০ হাজার ভোটে পরাজিত করবেন তিনি।

এরপর গতকাল ঘোষিত হল তৃণমূলের প্রার্থী তালিকা। যেখানে দেখা গেল, মুখ্যমন্ত্রী নন্দীগ্রাম থেকেই লড়াই করছেন। ভবানীপুর আসনটি ছেড়ে দিয়েছেন তৃণমূল নেতা শোভন দেব চট্টোপাধ্যায়কে। অর্থাৎ, চ্যালেঞ্জ আকসেপ্ট করে নিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। তবে, চ্যালেঞ্জ এর কারণেই কি তিনি ভবানীপুর ছেড়ে দিলেন? নাকি এর পেছনে অন্য কোনো কারণ আছে?

প্রসঙ্গত, গত ২০১৬ সালে ভবানীপুর কেন্দ্র থেকে দ্বিতীয়বারের জন্য জয়লাভ করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু ২০১১ সালের তুলনায় ২০১৬ সালে ভোট কমে গেছে ২৯.৬৯ শতাংশ। আবার লোকসভা নির্বাচনে ভবানীপুরে জয়ের ব্যবধান আরও কমে এসেছে। দেখা যাচ্ছে তৃণমূল মাত্র ৩১৬৮ ভোটে এগিয়ে আছে। লোকসভা ভোটের ফলাফলের দিকে বিচার করলে ভবানীপুর বিধানসভাতে মুখ্যমন্ত্রীর নিজের ৭৩ নম্বর ওয়ার্ডে তৃণমূলকে ছাপিয়ে গেছে বিজেপি। ৭৩ ওয়ার্ড ছাড়াও ভবানীপুর বিধানসভার ৬৩, ৭০, ৭১, ৭২, ৭৪ নম্বর ওয়ার্ডেও তৃণমূলকে পিছনে ফেলে এগিয়ে গেছে বিজেপি।


ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

আবার, ভবানীপুর কেন্দ্রে বাঙ্গালীদের সঙ্গে সঙ্গে ব্যাপক পরিমাণে অবাঙালি ভোটারও রয়েছেন। অনেকে মনে করছেন গত লোকসভা নির্বাচনে এই অবাঙালি ভোটারদের একটা বড় অংশ বিজেপিকে ভোট দিয়েছিলেন। এবার, তার ওপর নির্ভর করেই আগামী বিধানসভা নির্বাচনে ভবানীপুরে তৃণমূলকে পরাস্ত করতে উঠে পড়ে লেগেছে বিজেপি। এই কেন্দ্রে বিজেপির কর্মসূচি পালন করেছিলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জে পি নাড্ডা। এখানে তাঁর বৈঠক হয়েছিল স্থানীয় নেতৃত্বের সঙ্গে।

এবার ভবানীপুর থেকে তৃণমূলের প্রার্থী হলেন শোভন দেব চট্টোপাধ্যায়। তৃণমূলের প্রার্থী তালিকা প্রকাশের পর বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ জানালেন যে, পরাজয়ের ভয়ে ভবানীপুর থেকে নন্দীগ্রামে একলাফে চলে গিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। তবে, তিনি দৌড়োতে পারবেন, কিন্তু লুকিয়ে থাকতে পারবেন না। তিনি জানালেন, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের জন্য নন্দীগ্রাম কেন, রাজ্যের কোন আসনই নিরাপদ নয়। তিনি ১০ বছর মা, মাটি, মানুষের নামে রাজ্যজুড়ে অত্যাচার আর লুটপাট চালিয়েছেন। এবার মুখ্যমন্ত্রীর ছেড়ে যাওয়া আসনে ও নন্দীগ্রামে কি ফলাফল দাঁড়ায়? সেদিকে কৌতুহল থাকবে সকলের।

 

 

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!