এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > শুভ্রাংশুর 6 বছরের সাসপেন্ড নিয়ে জোরদার রসিকতা করে জল্পনা বাড়ালেন মুকুল রায়

শুভ্রাংশুর 6 বছরের সাসপেন্ড নিয়ে জোরদার রসিকতা করে জল্পনা বাড়ালেন মুকুল রায়



বিগত দেড় বছর আগে তৃণমূলের সেকেন্ড-ইন-কমান্ড বলে পরিচিত বঙ্গ রাজনীতির চাণক্য মুকুল রায় মমতা বন্দোপাধ্যায়ের সঙ্গ ত্যাগ করে বিজেপিতে যোগ দেন। আর এরপরই বিভিন্ন মহলে জল্পনা তৈরি হয় যে তাহলে কি পুত্রকে বিজেপিতে নিয়ে এসেই প্রথমে তৃণমূলকে মাস্টারস্ট্রোক দেবেন তিনি! কিন্তু না, বাবা বিজেপিতে যোগ দিলেও প্রথম থেকেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তার আদর্শ, তিনি তৃণমূল ছেড়ে অন্য কোথাও যাবেন না বলে জানিয়ে দেন বীজপুরের তৃণমূল বিধায়ক তথা মুকুল রায়ের পুত্র শুভ্রাংশু রায়।

আর এরপরই বিভিন্ন সময়ে তৃণমূলের অন্দরে চোরাস্রোত বইতে থাকে যে, বাবা বিজেপিতে গেলেও মুকুল পুত্র শুভ্রাংশু রায় তৃণমূলে থাকায় আদতে দলেরই ক্ষতি করছেন তিনি। তবে সমালোচক মহলের এই কথায় কান না দিয়ে দলের প্রতি নিষ্ঠা, আনুগত্যকেই দেখিয়ে এসেছিলেন শুভ্রাংশু রায়।

কিন্তু এবার লোকসভা নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা হতে না হতেই ফের কিছুটা বিস্ফোরক হয়ে ওঠায় সেই দলীয় বিধায়ক তথা মুকুল রায়ের পুত্র শুভ্রাংশু রায়কে 6 বছরের জন্য দল থেকে সাসপেন্ড করল তৃণমূল। যা নিয়ে এবার রাজ্য রাজনীতিতে ছড়িয়ে পড়েছে চাঞ্চল্য। বস্তুত, লোকসভা নির্বাচনে ব্যারাকপুরের তৃণমূল প্রার্থী দীনেশ ত্রিবেদীর পরাজয়ের পর এদিন সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন তৃণমূল বিধায়ক শুভ্রাংশু রায়। আর সেখানেই তিনি চাঞ্চল্যকর ভাবে জানান, যে বাবার কাছে তিনি হেরে গিয়েছেন।

আর প্রকাশ্যে বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের প্রতি পুত্র তথা তৃণমূল বিধায়ক শুভ্রাংশু রায়ের এহেন মন্তব্যকে ঠিকঠাক মেনে নিতে পারেনি তৃণমূল। তড়িঘড়ি দল থেকে শুভ্রাংশু রায়কে বরখাস্ত করার কথা জানিয়ে তৃণমূল মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন, “দীর্ঘদিন ধরেই বিজপুরের বিধায়ককে পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। কখনও সোশ্যাল মিডিয়াতে বিতর্কিত পোস্ট, আবার কখনও বা বেফাঁস মন্তব্যে দলকে তিনি অস্বস্তিতে ফেলেছেন। তাই তার বিরুদ্ধে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হল।”


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

এদিকে তৃণমূল থেকে শুভ্রাংশু রায়কে বরখাস্ত করার পরই এবার এই ব্যাপারে মুখ খুললেন শুভ্রাংশুর পিতা তথা বঙ্গ বিজেপির হেভিওয়েট নেতা মুকুল রায়। শুভ্রাংশু রায়কে তৃণমূল থেকে 6 বছর সাসপেন্ড করা প্রসঙ্গে এদিন এই বিজেপি নেতা বলেন, “তৃনমুল তো 6 বছর থাকবেই না। আর 6 বছরের জন্য সাসপেন্ড!” আর বঙ্গ রাজনীতির চাণক্য তথা হেভিওয়েট বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের “তৃণমূল 6 বছর না থাকার” কথা নিয়েই এবার তৈরি হয়েছে জল্পনা।

অনেকেই বলছেন, নির্বাচনী প্রচারে এসে বারে বারেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেছেন, রাজ্যের 40 জন তৃণমূল বিধায়ক বিজেপির সঙ্গে যোগাযোগ রাখছে। অন্যদিকে মুকুল রায়, দিলীপ ঘোষের মতো নেতারাও দাবি করেছেন, তৃণমূলের সিংহভাগ বিধায়ক, মন্ত্রী, নেতারাও বিজেপিতে আসার জন্য পা বাড়িয়ে রয়েছেন।

আর এহেন একটা পরিস্থিতিতে লোকসভা ভোটে বাংলায় বিজেপির অভূতপূর্ব ফলের পরই তৃণমূলের কে কে বিজেপিতে যেতে পারে, তা নিয়ে যখন রাজ্য রাজনীতিতে জল্পনা চলছে, ঠিক তখনই পুত্র শুভ্রাংশু রায়কে তৃণমূল 6 বছরের জন্য সাসপেন্ড করায় তৃণমূল 6 বছর থাকবেই না বলে মুকুল রায় তৃণমূলকে ভাঙিয়ে দিয়ে রাজ্য রাজনীতিতে ঝড় তুলতে পারেন বলে মনে পড়ছে বিশেষজ্ঞ মহলের একাংশ। তবে শেষ পর্যন্ত কি হয় তা দেখবার জন্য অপেক্ষা করতেই হবে সকলকে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!