এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মালদা-মুর্শিদাবাদ-বীরভূম > স্ত্রী বিয়োগের দুঃখ কাটিয়ে ফের ময়দানে অনুব্রত মণ্ডল! জেনে নিন বিস্তারিত!

স্ত্রী বিয়োগের দুঃখ কাটিয়ে ফের ময়দানে অনুব্রত মণ্ডল! জেনে নিন বিস্তারিত!



একসময় বীরভূম জেলায় তৃণমূলের শেষ কথা ছিলেন অনুব্রত মণ্ডল। বিরোধীদের উদ্দেশ্যে চরাম চরাম ঢাক দেওয়া থেকে শুরু করে, নকুলদানা খাওয়ানোর কথা বলে বিতর্কের শিরোনামে চলে আসেন তিনি। তবে সম্প্রতি কিছুদিন আগে তার সহধর্মিণীর মৃত্যু হয়েছে। তারপর থেকে সেভাবে আর কোনো রাজনৈতিক কর্মসূচিতে দেখা যায়নি অনুব্রত মণ্ডলকে। তবে এবার স্ত্রীর মৃত্যুর দুঃখকে কাটিয়ে উঠে অবশেষে ফের ময়দানে নামলেন বীরভূম জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল।

সূত্রের খবর, মঙ্গলবার বোলপুর গীতাঞ্জলি প্রেক্ষাগৃহে বীরভূম জেলা তৃণমূলের পক্ষ থেকে একটি বিশেষ বর্ধিত সভার আয়োজন করা হয়। যেখানে উপস্থিত ছিলেন বীরভূম জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল, মন্ত্রী আশিস বন্দ্যোপাধ্যায়, চন্দ্রনাথ সিনহা, সহ সভাপতি তথা মেন্টর অভিজিৎ সিনহা, সভাধিপতি বিকাশ রায় চৌধুরী সহ অন্যান্যরা। এদিন এই অনুষ্ঠানে এসে আগামী 2 তারিখ নেতাজি ইন্ডোরে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের যে সমাবেশ রয়েছে, তার প্রাসঙ্গিকতা সকলের সামনে তুলে ধরেন অনুব্রত মণ্ডল।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

এমনকি আগামী দিনে পৌরসভা নির্বাচনে কিভাবে লড়াই করতে হবে এবং এখন থেকেই তার জন্য বেশি করে জনসংযোগ করার নির্দেশ দেন তিনি। অনেকে বলছেন, দীর্ঘদিন পর অনুব্রত মণ্ডলকে ফের এই ভূমিকায় দেখা গেল। কেননা স্ত্রীর মৃত্যুর পর থেকে তিনি কার্যত হতাশ হয়ে পড়েছিলেন। যার পড়ে অনেকের মনেই আশঙ্কা তৈরি হয়েছিল যে, অতীতের মত আর অনুব্রতবাবুকে ময়দানে দেখা যাবে কিনা। কিন্তু সকলের আশঙ্কাকে দূরীভূত করে এদিনের সভায় উপস্থিত হয়ে তিনি ফের শক্ত হাতে দলের হাল ধরলেন বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

এদিন সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে অনুব্রত মণ্ডল বলেন, “আমরা 2021 সালে বিধানসভা নির্বাচন নিয়ে চিন্তা করছি। পৌরসভা নির্বাচন নিয়ে আমাদের কোনো চিন্তা নেই। যে উন্নয়ন হয়েছে, তা নিয়ে পৌরসভার চেয়ারম্যানরা ভাববেন। পৌরসভার কাউন্সিলরহ চেয়ারম্যানরা করবেন। এতে মন্ত্রীরাও যাবেন না। আমরা পঞ্চায়েতেও যাইনি। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাতিও উন্নয়ন। তবে মানুষ যাকে চাইবেন, তিনিই কাউন্সিলর হবেন। দলের কোর কমিটির বৈঠক করে প্রার্থী তালিকা ঠিক হবে।” সব মিলিয়ে এবার পৌরসভা নির্বাচনের আগে স্ত্রী বিয়োগকে কাটিয়ে উঠে ফের ময়দানে অনুব্রত মণ্ডল।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!