এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > রাজ্যের দুই হেভিওয়েট নেতা-সাংসদের তরজায় উত্তাল সোশ্যাল মিডিয়া! জোর চাঞ্চল্য

রাজ্যের দুই হেভিওয়েট নেতা-সাংসদের তরজায় উত্তাল সোশ্যাল মিডিয়া! জোর চাঞ্চল্য



নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন লাগু হবার পর থেকেই বিজেপির বিরুদ্ধে বিভিন্ন সংগঠন বিদ্রোহ ঘোষণা করতে শুরু করেছে। সম্প্রতি যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তন মঞ্চে দেবস্মিতা চৌধুরী নামে এক ছাত্রী নিজের ডিগ্রি নেওয়ার পর সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের প্রতিলিপি ছিঁড়ে প্রতিবাদ জানান। যা নিয়ে তোলপাড় হয়ে ওঠে রাজ্য রাজনীতি।

জানা যায়, এই ঘটনার নিন্দা করে সম্প্রতি সেই শিক্ষার্থীর ব্যাপারে প্রশ্ন তুলে ফেসবুকে একটি পোস্ট করেন সঞ্জয় সোম নামে এক ব্যক্তি। যে পোস্ট নিজের ফেসবুক পেজে শেয়ার করেন আসানসোলের বিজেপি সাংসদ তথা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়। আর এর পরেই একের পর এক ধেয়ে আসতে শুরু করে বিতর্ক।

সূত্রের খবর, বাবুল সুপ্রিয়র শেয়ার করা সেই পোস্টে কিছু সমর্থনমূলক মন্তব্য এবং কিছু বিরোধিতা মূলক মন্তব্য দেখা যায়। যেখানে মোস্তাফিউর রহমান নামে এক কলেজ পড়ুয়া বলেন, “বাবুলদা আপনি কতটা শিক্ষিত, আর আপনার গুরু দিলীপ কতটা শিক্ষিত, যে কিনা গরু থেকে সোনা বের করে।” আর এই পড়ুয়ার বিজেপি বিরোধী মন্তব্য দেখেই সেখানে কমেন্টবক্সে একটি বিতর্কিত মূলক মন্তব্য করে বসেন বিজেপির কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়।


ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

তিনি বলেন, “আগে তোমায় তোমার দেশে ফেরত পাঠাই। তারপর পোস্টকার্ডে জবাব দেব।” যা নিয়ে চরম বিতর্ক তৈরি হয়। তাহলে কি শুধুমাত্র নাম দেখেই বাবুল সুপ্রিয় এই পড়ুয়ার দেশ চিহ্নিত করে ফেললেন! তা নিয়ে প্রশ্ন তুলতে শুরু করে একাংশ। পরিস্থিতি এমন জায়গায় গড়ায় যে, বাবুল সুপ্রিয়র এহেন মন্তব্যের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতে গিয়ে ফের আরও একটি বিতর্কিত মূলক মন্তব্য করে বসেন সিপিএমের তরুণ নেতা শতরূপ ঘোষ।

যেখানে তিনি লেখেন, “বাবুলদা এটাই ওর দেশ। ও এই দেশেই থাকবে। কারও বাবার ক্ষমতা থাকলে ওকে বার করে দেখাক।” এদিকে সিপিএমের শতরূপ ঘোষ বাবুল সুপ্রিয়র বিরুদ্ধে এই ধরনের মন্তব্য করায় পাল্টা তার বিরুদ্ধে সুর চড়ান বিজেপির বাবুল সুপ্রিয়। বিজেপি সাংসদ তথা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বলেন, “বড় বড় বড় কথা বলছো শতরূপ ঘোষ। সেটাও মেনে নেওয়া যায়। কিন্তু ব্যক্তিগত পর্যায়ে বিলো দ্যবেল্ট আক্রমণ করছ। তোমাকে এখনও আমি কোনো জবাব দিইনি। দেবও না।” সব মিলিয়ে এবার ফেসবুক পেজে সিপিএম এবং বিজেপির দুই নেতার তরজা চরম আকার ধারণ করল।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!