এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > যে কোন মুহূর্তে গ্রেপ্তার হতে পারেন রাজ্যের এই বিধায়ক? আশঙ্কার চোটে রাজ্যছাড়া!

যে কোন মুহূর্তে গ্রেপ্তার হতে পারেন রাজ্যের এই বিধায়ক? আশঙ্কার চোটে রাজ্যছাড়া!



লোকসভা নির্বাচনের ফলাফল সামনে আসতেই অভাবনীয় পরিস্থিতির সামনে দাঁড়িয়ে রাজ্য রাজনীতি। নির্বাচনী প্রচারে যে বিজেপিকে গোল্লা দিতে চেয়েছিলেন তৃণমূল নেত্রী, সেই বিজেপিই ১৮ টি আসন ছিনিয়ে নিয়ে ঘাড়ের কাছে নিঃশ্বাস ফেলছে। শুধু তাই নয়, রাজ্য-রাজনীতিতে পরিবর্তনের পরিবর্তন উস্কে দিয়ে শাসকদল ছাড়ার রীতিমত হিড়িক পড়ে গেছে। ঘাসফুল ছেড়ে পদ্মশিবিরে নাম লেখাতে তৎপর একের পর এক শাসকদলের নেতা-বিধায়ক।

এই পরিস্থিতিতে রাজ্যের পুলিশ-প্রশাসনকে ব্যবহার করে বিরোধীদের কণ্ঠরোধের চেষ্টার বিস্ফোরক অভিযোগ সামনে এল। প্রসঙ্গত, দক্ষিণবঙ্গে তো বটেই, তৃণমূল নেত্রীর বড় আদরের দার্জিলিঙেও দ্রুত পায়ের তলার মাটি সরছে তৃণমূলের। লোকসভা ভোটে ভরাডুবির পাশাপাশি, দার্জিলিং বিধানসভাটিও হাতছাড়া হয়েছে তৃণমূলের। আর তারপরেই বুকে সাহস সঞ্চার করে তৃণমূল নেত্রীর স্নেহের বিনয় তামাং গোষ্ঠীর হাত থেকে দার্জিলিং পুনরুদ্ধারে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন বিমল গুরুং পন্থীরা।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

ইতিমধ্যেই, পুলিশকে দিয়ে দার্জিলিং পুরাসভায় অনাস্থা আনতে চলা বিপি বাজগেইনকে আটকানোর মরিয়া চেষ্টা চলছে। তাঁর বিরুদ্ধে একাধিক ভুয়ো মামলা করে আটকে দিয়ে অনাস্থা আনার প্রক্রিয়া আটকে দিয়েছে পুলিশ বলে অভিযোগ উঠেছে। পুলিশের বিরুদ্ধে আরও অভিযোগ, পুরাসভাতে ঢোকা থেকে আটকে দেওয়া হচ্ছে ‘বিদ্রোহী’ কাউন্সিলরদের। তাঁদের বিরুদ্ধে বেছে বেছে কেস দেওয়ার পাশাপাশি, পুরোনো কেস খুঁচিয়ে তুলে আটকানোর চেষ্টা চলছে! যা নিয়ে রীতিমত সরগরম পাহাড় রাজনীতি।

আর এসবের মাঝেই নিজের গ্রেপ্তারির আশঙ্কা করছেন দার্জিলিঙের নবনির্বাচিত বিধায়ক তথা বিজেপি নেতা নীরাজ তামাং জিম্বা। তিনি জানিয়েছেন, যেভাবে পুলিশকে ব্যবহার করে রাজ্য বিরোধীদের উপর অত্যাচার চালাচ্ছে তাতে অসুরক্ষিত বোধ করছি। কাউন্সিলর বিপি বাজগেইন রাজ্যের সঙ্গে সহমত পোষণ করেন না বলে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে, মামলা অজুহাত মাত্র!

তাঁর আরও অভিযোগ, ত্রিলোকচন্দ্র রোকা নামে আরও এক কাউন্সিলরকে পুরসভায় অস্ত্র নিয়ে হামলা ও চেয়ারপার্সন প্রতিভা রাইকে জখম করার অভিযোগে গ্রেপ্তার করেছেঃ পুলিশ। এইসব মামলায় তাঁর নামও জুড়ে দেওয়ার চেষ্টা চলছে। সমগ্র পরিস্থিতি নিয়ে দার্জিলিংয়ের সাংসদ রাজু সিং বিস্তের সঙ্গে কথা বলে প্রধানমন্ত্রীর দ্বারস্থ হতে চান তিনি। আতঙ্কে আপাতত দিল্লিতেই আছেন, রাজ্যে ফিরতে রীতিমত ভয় পাচ্ছেন এই বিধায়ক বলে সূত্রের খবর।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!