এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > এবার শোভনের অবস্থান নিয়ে বৈশাখীর মন্তব্য , ফের বাড়লো জল্পনা

এবার শোভনের অবস্থান নিয়ে বৈশাখীর মন্তব্য , ফের বাড়লো জল্পনা



রত্না চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে গন্ডগোলের জন্য মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরাগভাজন হয়েছিলেন তিনি। যারপরেই কোনমতেই তিনি বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়কে ছাড়তে পারবেন না বলে দলের সঙ্গে বিদ্রোহ ঘোষণা করে ভারতীয় জনতা পার্টিতে যোগ দিয়েছিলেন। তবে শোভন চট্টোপাধ্যায় ভারতীয় জনতা পার্টিতে যোগ দেওয়ায় তিনি সেখান থেকে তৃণমূলকে অনেকটাই বিপাকে ফেলবে বলে মনে করা হয়েছিল।

কিন্তু তার কিছুই হয়নি। উল্টে বিজেপির তরফেও শোভন চট্টোপাধ্যায় ও বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়ের জুটিকে নিয়ে নানা কথা শুনতে পাওয়ায় কার্যত ঘরেই বসে যান শোভন চট্টোপাধ্যায়। এমনকি ভাইফোঁটার দিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়িতে গিয়ে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের ফোটা নেওয়ায় রাজ্য রাজনীতিতে তীব্র জল্পনা বাড়িয়ে দেয়। অনেকেই মনে করতে থাকেন, বিজেপিতে গুরুত্ব না পেয়ে হয়ত আবার নিজের প্রাক্তন দল তৃণমূল কংগ্রেসে ফিরে যাবেন কলকাতা পৌরসভার প্রাক্তন মেয়র।

আর এই পরিস্থিতিতে সম্প্রতি যার সঙ্গে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের মূল বিবাদ এবং যার কারণে তিনি তৃণমূল কংগ্রেস ছাড়লেন, সেই রত্না চট্টোপাধ্যায়ের তৃণমূল কংগ্রেসে উত্থানে বেজায় ক্ষেপেছেন শোভন চট্টোপাধ্যায়। তাই একদিকে তৃণমূলে যাওয়ার চিন্তাভাবনা করলেও, রত্না চট্টোপাধ্যায়ের উত্থানে এখন তৃণমূলের প্রতি আরও ক্ষুদ্ধ কলকাতা পৌরসভার প্রাক্তন মেয়র। পাশাপাশি বিজেপিতেও সেভাবে তিনি সক্রিয় নন। তাহলে তার রাজনৈতিক ভবিষ্যৎ কি? এখন এই প্রশ্নই উঠতে শুরু করেছে বঙ্গ রাজনীতির আকাশে বাতাসে।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

সূত্রের খবর, মঙ্গলবার পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বাড়িতে গিয়ে তার সঙ্গে দু ঘণ্টা বৈঠক করেন শোভন চট্টোপাধ্যায়ের বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। আর সেখানেই শোভন চট্টোপাধ্যায়কে নিয়ে নানা আলোচনা হয় বলে খবর। পরে বাইরে বেরিয়ে এসে বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “শোভনকে নিয়ে তৃণমূল ভাবছে না। আসলে তৃণমূলের একটা অংশ চাইছে না, শোভন আবার সক্রিয় হন। একটা অংশ অবশ্যই চাইছেন। কিন্তু তাকে সক্রিয় হওয়ার সুযোগ দেওয়া হচ্ছে না। তৃণমূল যদি আগ্রহ না দেখায়, তবে বিজেপিতে সক্রিয় হওয়া ছাড়া কোনো পথ খোলা থাকবে না।” তাহলে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি কি! কোন দিকে তিনি যাবেন?

এদিন এই প্রসঙ্গে তার বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “শোভন চট্টোপাধ্যায়কে নিয়ে তৃণমূলের এখনও দ্বন্দ্ব কাটেনি। অথচ বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পরেও শোভন চট্টোপাধ্যায় একটিবারের জন্যও তাদের মঞ্চে ওঠেননি। যোগদেননি কোনো অনুষ্ঠানে। আদতে তিনি কোনো দলেই নেই। তৃণমূলেও না, বিজেপিতেও না।” বিশেষজ্ঞরা বলছেন, তৃণমূলের রত্না চট্টোপাধ্যায়ের উত্থান শোভন চট্টোপাধ্যায়কে তৃণমূলের প্রতি আরও বীতশ্রদ্ধ করে তুলেছে। তাই সেদিক থেকে এখন পৌরসভা নির্বাচনে বিজেপিতে সক্রিয় হয়ে তৃণমূলকে বিপাকে ফেলা ছাড়া কোনো উপায় নেই শোভন চট্টোপাধ্যায়ের। এখন তিনি তার পরবর্তী রাজনৈতিক পদক্ষেপ কি নেন, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!