এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > সৌরভকে কার্যত রাজনীতিতে অনভিজ্ঞ বলে দাবি তৃণমূল সংসদের, দেব, মিমি, নুসরাতকে নিয়ে একের পর এক পোস্ট সোশ্যাল মিডিয়ায়,

সৌরভকে কার্যত রাজনীতিতে অনভিজ্ঞ বলে দাবি তৃণমূল সংসদের, দেব, মিমি, নুসরাতকে নিয়ে একের পর এক পোস্ট সোশ্যাল মিডিয়ায়,



আপনাদের সুবিধার্থে খবরের শেষে বিধানসভা ২০২১ উপলক্ষে আমাদের করা সর্বশেষ সমীক্ষার প্রতিটির লিঙ্ক দেওয়া আছে।

আপনার মতামত জানান -

প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – সাম্প্রতিককালে বাঙালির আবেগে আঘাত করার অভিযোগ উঠেছে তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায়ের বিরুদ্ধে। সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় শুধু একটি নাম নয়, তিনি বাঙালিকে অনেক কিছু দিয়েছেন। বাংলা তথা ভারতবর্ষকে বিশ্বের মানচিত্রে পৌঁছে দিয়েছেন নিজের ব্যাটিংয়ের মধ্যে দিয়ে। সম্প্রতি সেই সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় রাজনীতিতে নামতে পারেন বলে জল্পনা তৈরি হয়েছিল। এমনকি তিনি বিজেপির হয়ে রাজনীতির নতুন ইনিংসে ব্যাটিং করতে পারেন বলেও দাবি করেছিল একাংশ।

আর এই পরিস্থিতিতে সেই সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের রাজনীতিতে নামা নিয়ে বিস্ফোরক মন্তব্য করতে করেন বর্ষিয়ান তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায়। যেখানে তিনি বলেন, “ও বড় বাড়ির ছেলে। দু’চারটে বল পিটিয়েছে। ও রাজনীতিতে এসে কি উন্নতি করবে!” আর এরপরই বাঙালির আবেগের প্রাণকেন্দ্র সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় সম্পর্কে সৌগত রায় এই ধরনের মন্তব্য করার সাথে সাথেই প্রতিবাদের ঝড় উঠতে শুরু করে গোটা রাজ্য জুড়ে।

অনেকেই প্রশ্ন করেন, সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় সম্পর্কে একজন বর্ষীয়ান নেতার এই ধরনের মন্তব্য করা কি সত্যিই উচিত? আর সৌরভ গাঙ্গুলীকে নিয়ে যখন সৌগত রায় এই ধরনের মন্তব্য করছেন, তখন বিশিষ্ট অভিনেতা, অভিনেত্রীদের সম্পর্কে বিভিন্ন ফেসবুক থেকে শুরু করে হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে শেয়ার হতে শুরু করল নানা কটাক্ষমূলক ছবি। যেখানে দেব থেকে শুরু করে মিমি-নুসরাতদের ছবি মহাত্মা গান্ধীর সঙ্গে পোস্ট করে সৌগত রায়কে কটাক্ষ করেছেন সোশ্যাল মিডিয়ার অনেকে।

অনেকেই প্রশ্ন করতে শুরু করেছেন, সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের না হয় রাজনীতিতে কোনো দাম নেই। উনি রাজনীতিতে এসে কিছু করতে পারবেন না, একথা বলেছেন সৌগত রায়। কিন্তু তাহলে তৃণমূলের টিকিটে জিতে দেব, মিমি, নুসরাতরা রাজনীতিতে এসে কোন উন্নতিটা করেছে? আসলে নিজের বেলায় আটিশুটি, পরের বেলায় চিমটি কাটি। সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় রাজনীতিতে না থেকেও, সমাজসেবার সঙ্গে যুক্ত ছিলেন।

ফলে তাকে নিয়ে এইভাবে কটাক্ষ করা সৌগত রায়ের পক্ষ থেকে একেবারেই মানায় না বলে দাবি করতে শুরু করেছেন নেটিজনেরা। তবে এই ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট হলেও, তা কারা তৈরি করেছে, সেই সম্পর্কে কোনো খবর পাওয়া যায়নি। কিন্তু সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় সম্পর্কে সৌগত রায় কড়া ভাষায় আক্রমণ করার পরেই যেভাবে সৌগত রায়কে পাল্টা আক্রমণ করতে শুরু করল নেটিজনদের অনেকে, তাতে ব্যাপক চাপে তৃণমূল কংগ্রেস।


দেশে যে কোনো দিন ব্যান হয়ে যেতে পারে হোয়াটস্যাপ। তাই এখন থেকে আমরা শুধুমাত্র টেলিগ্রাম ও সিগন্যাল অ্যাপে। প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার নিউজ নিয়মিতভাবে পেতে যোগ দিন –

টেলিগ্রাম গ্রূপটাচ করুন এখানে

সিগন্যাল গ্রূপটাচ করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

অনেকে এটাও বলছেন, “সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় রাজনীতিতে এলে সেটা দোষের হয়ে দাঁড়াচ্ছে! তাহলে কি মিমি-নুসরাত, দেবরা রাজনীতিতে আসার অনেক আগে থেকে মহাত্মা গান্ধীর সঙ্গে রাজনীতি করেছিলেন! তাই তারা রাজনীতিতে এলে দোষের কিছু হয় না সৌগত বাবুদের কাছে?” পর্যবেক্ষকরা বলছেন, যদি সত্যি সত্যিই সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় রাজনীতির ব্যাট ধরেন, তাহলে তা যে তৃণমূলের পক্ষ থেকে আটকানো অত্যন্ত কঠিন, তা বুঝতে পেরেই সৌগত রায় এই ধরনের মন্তব্য করেছেন।

কিন্তু তিনি স্বপ্নেও কল্পনা করতে পারেননি, বাংলার মহারাজকে নিয়ে এই ধরনের মন্তব্য করলে কী পরিমাণে প্রতিবাদ হতে পারে! তাই তো এবার সৌগত রায় এই মন্তব্য করার সাথে সাথেই সোশ্যাল মিডিয়ায় তাকে কটাক্ষ করে তৃণমূলের অনেক জনপ্রতিনিধি সম্পর্কে পাল্টা পোস্ট হতে শুরু করল! যাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক অস্বস্তি তৈরি হয়েছে শাসকদলের অন্দরমহলে।

 

বিধানসভা নির্বাচনের আগে সৌরভ গাঙ্গুলী সম্পর্কে সৌগত রায়ের এই মন্তব্য তৃনমূলের কংগ্রেসকে বাংলার যুব সমাজের কাছে যে অনেকটাই ব্যাকফুটে দিল, তা বলার অপেক্ষা রাখে না। এখন গোটা পরিস্থিতি কোথায় গিয়ে দাঁড়ায়, কিভাবে এই পরিস্থিতিকে সামাল দেয় তৃণমূল নেতৃত্ব, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

 

একনজরে দেখে নিন আমাদের সর্বশেষ বিধানসভা ২০২১ ওপিনিয়ন পোল –

# মুর্শিদাবাদ জেলার ওপিনিয়ন পোল – দ্বিতীয় পর্ব – 

# মুর্শিদাবাদ জেলার ওপিনিয়ন পোল – প্রথম পর্ব – 

# মালদহ জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# উত্তর দিনাজপুরে জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# জলপাইগুড়ি ও কালিম্পঙ জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# আলিপুরদুয়ার ও দার্জিলিং জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# কুচবিহার জেলার ওপিনিয়ন পোল –

আপনার মতামত জানান -
আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!