এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > সঠিক সময়ে বেতন নেই; সংসারে অভাব অনটনে এবার আশার আলো দেখাচ্ছে দিদিকে বলো!

সঠিক সময়ে বেতন নেই; সংসারে অভাব অনটনে এবার আশার আলো দেখাচ্ছে দিদিকে বলো!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – গত দুই মাস ধরে উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন কলেজের শিক্ষকদের ব্যাপক সমস্যা দেখা দিয়েছে। যেখানে 56 টি কলেজের শিক্ষকরা বেতন পাওয়ার ক্ষেত্রে ব্যাপক সমস্যায় রয়েছেন। যার ফলে সেই সমস্ত কলেজগুলোর শিক্ষক-শিক্ষিকাদের মধ্যে তীব্র ক্ষোভ ছড়াতে শুরু করেছে। তবে এবার গোটা সমস্যা সমাধানের জন্য শিলিগুড়ির এক অধ্যাপক তৃণমূলের “দিদিকে বলো” তে ফোন করে এই ব্যাপারে তাঁর অভিযোগ জানিয়েছেন। যার ফলে এখন তীব্র জটিলতা তৈরি হয়েছে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, জলপাইগুড়িতে অবস্থিত আঞ্চলিক শিক্ষা দপ্তরের আওতায় উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন জেলার 56 টি কলেজ রয়েছে যে কলেজগুলো শিক্ষকদের বেতন এই দপ্তর এর মাধ্যমে সম্পন্ন হয়। কিন্তু অ্যালটমেন্টের কোনো সমস্যা না থাকলেও বর্তমানে এই কলেজের শিক্ষকদের বেতন পেতে অনেকটাই দেরি হচ্ছে। পরপর দুই মাস ধরে তাদের বেতন পাওয়ার ক্ষেত্রে এই দীর্ঘসূত্রিতা ক্ষোভের সঞ্চার করেছে সেই সমস্ত শিক্ষকদের মধ্যে। একদিকে লকডাউন এবং অন্যদিকে যদি এইভাবে বেতন পাওয়ার ক্ষেত্রে দেরি হয়, তাহলে তারা কিভাবে দিনযাপন করবেন? তা নিয়ে সংশয় তৈরি হয়েছে সেই সমস্ত শিক্ষকদের মধ্যে।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

তাই বাধ্য হয়ে শিলিগুড়ির মুন্সি প্রেমচাঁদ কলেজের অধ্যাপক নিতাইচন্দ্র সাহা দিদিকে বলো-তে ফোন করে এই ব্যাপারে তাঁর অভিযোগ জানিয়েছেন। এদিন তিনি বলেন, “রাজ্যের বাকি সব কলেজের শিক্ষকদের বেতন সময় মত হয়ে গিয়েছে। কিন্তু উত্তরবঙ্গের এই কলেজগুলোতে গত মাসেও দেরিতে বেতন হয়েছে। সেজন্যই দিদিকে বলোতে ফোন করে অভিযোগ জানিয়েছি।” কিন্তু কেন এমনটা হচ্ছে? কেন সঠিক সময়ে বেতন পাচ্ছেন না শিক্ষকরা?

এদিন এই প্রসঙ্গে অল বেঙ্গল প্রিন্সিপাল কাউন্সিলের সম্পাদক সমীরেন্দ্র সরকার বলেন, “বিষয়টি নিয়ে আঞ্চলিক শিক্ষা দপ্তরের অধিকর্তার সঙ্গে কথা হয়েছে।” অন্যদিকে এই ব্যাপারে আঞ্চলিক শিক্ষা দপ্তরের জলপাইগুড়ি বিভাগের অধিকর্তা অনিলরঞ্জন সরকার বলেন, “শিক্ষকদের বেতনের ক্ষেত্রে একটা অস্পষ্টতা তৈরি হয়েছিল। তা কেটে গিয়েছে। সেজন্য মঙ্গলবার ছুটি থাকলেও কর্মীরা দপ্তরে গিয়ে প্রায় 20 টি কলেজের শিক্ষকদের বেতন ছেড়ে দিয়েছেন। বাকিরা চলতি সপ্তাহের মধ্যেই বেতন পেয়ে যাবেন বলে আশা করছি।” সব মিলিয়ে এবার উত্তরবঙ্গের 56 টি কলেজের শিক্ষকদের বেতন নিয়ে যে সমস্যা তৈরি হয়েছে, তার কবে সমাধান হয়, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!