এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > তৃণমূল > সরকারি জায়গা দখল করে বেআইনি নির্মাণ প্রভাবশালী তৃণমূল নেতার! অভিযোগ পেয়েও নিশ্চুপ প্রশাসন!

সরকারি জায়গা দখল করে বেআইনি নির্মাণ প্রভাবশালী তৃণমূল নেতার! অভিযোগ পেয়েও নিশ্চুপ প্রশাসন!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – তৃণমূল নেতাদের বিরুদ্ধে নানা জায়গায় নানা বেআইনি নির্মাণের অভিযোগ উঠেছে দীর্ঘদিন ধরে। কোনরকম অনিয়ম যে বরদাস্ত করা হবে না, তা বারবার প্রশাসনিক বৈঠক থেকে বার্তা দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু তা সত্ত্বেও এবার তৃণমূলের এক নেতার বিরুদ্ধে ডোবা বুজিয়ে বেআইনি নির্মাণের অভিযোগ উঠল। সূত্রের খবর, গলসি 2 পঞ্চায়েত সমিতির কর্মাধক্ষ তথা ব্লক তৃণমূল যুব সভাপতি সুজন কুমার মন্ডলের বিরুদ্ধে এই অভিযোগ উঠেছে।

জানা গেছে, গলসি বাজারের পঞ্চায়েত সমিতির মার্কেটের পাশে ডোবা বুঝিয়ে তিনি অবৈধ নির্মাণ করেছেন। কিন্তু কেন তিনি এই কাজ করলেন, এখন তা নিয়ে নানা মহলে তৈরি হয়েছে প্রশ্ন। জানা গেছে, গলসির উদয়নপল্লীর বাসিন্দা পার্থসারথি সাম গত মাসে এই বিষয়টি নিয়ে জেলাশাসকের দপ্তরে অভিযোগ জানিয়েছিলেন।

তার অভিযোগ ছিল, “ভূমি এবং ভূমি সংস্কার দপ্তর যা রিপোর্ট দিয়েছে, তাতে বোঝাই যাচ্ছে জমিটা পুরোটাই ডোবা। সুজনবাবু ভূমির শ্রেণী পরিবর্তন না করে অবৈধভাবে নির্মাণ কাজ করেছেন। নির্মাণের নকশা পাস করেছেন বিডিও। যা আইনত অনৈতিক এবং আইনত দণ্ডনীয়। আমি চাই এই বেআইনি নির্মাণ বন্ধ হোক।” কিন্তু কেন তিনি এই কাজ করলেন?

যেখানে জলাজমি ভরাট করা কার্যত বেআইনি বলে গণ্য হয়, যেখানে বারবার প্রশাসনের পক্ষ থেকে এই ব্যাপারে কড়া বার্তা দেওয়া হচ্ছে, সেখানে তৃণমূল নেতার বিরুদ্ধে এই অভিযোগ থাকা সত্ত্বেও কেন প্রশাসন সঠিক পদক্ষেপ নিচ্ছে না, তা নিয়ে উঠতে শুরু করেছে প্রশ্ন।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

এদিন এই প্রসঙ্গে সুজন মন্ডল বলেন, “আমি আমার জায়গায় নির্মাণ করছি। ওই জায়গা যখন নির্মাণ করছি, তখন শালি শ্রেণীর ছিল। তার আগে যিনি মালিক ছিলেন, তখনও জমির শ্রেণী শালী। আর এর পরচাতেও শালি। তারপরে শ্রেণী পরিবর্তন করে বাস্তু করে নির্মাণ করছি। জেলা প্রশাসনের শুনানিতে সমস্ত প্রমান আমি দাখিল করেছি। রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ আনা হয়েছে।”

তবে তৃণমূল নেতা যে কথাই বলুন না কেন, গোটা ঘটনায় যে ব্যাপক অনিয়ম হয়েছে, তা বলার অপেক্ষা রাখে না। এদিকে এই প্রসঙ্গে গলসি টু এর বিডিও শঙ্খ বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “আপাতত নির্মাণকাজ বন্ধ রাখতে বলা হয়েছে।” সব মিলিয়ে এবার তৃণমূল নেতার বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে প্রশাসন কবে সঠিক ব্যবস্থা নেয়, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!