এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > ‘ছোড়দা’ সভাপতির চেয়ারে বসতেই বদলে গেল সমীকরণ? লোকসভায় জোট নিয়ে বড় ঘোষণা সিপিএমের

‘ছোড়দা’ সভাপতির চেয়ারে বসতেই বদলে গেল সমীকরণ? লোকসভায় জোট নিয়ে বড় ঘোষণা সিপিএমের



রাজ্য প্রদেশ কংগ্রেসের সভাপতি পদে অধীর চৌধুরী থাকার সময় 2019 এর লোকসভা ভোটে এই রাজ্যে তৃণমূল এবং বিজেপির বিরুদ্ধে যে বাম-কংগ্রেস হাতে হাত ধরে লড়বে তাতে আলিমুদ্দিন ও বিধান ভবন দু’পক্ষই সীলমোহর দিয়েছিল।

কিন্তু হঠাৎই এরকম একটা পরিস্থিতিতে কংগ্রেস হাইকমান্ডের পক্ষ থেকে রাজ্য প্রদেশ কংগ্রেসের সভাপতি পদে অধীর চৌধুরীকে সরিয়ে আনা হয় সোমেন মিত্রকে। আর তখনই রাজনৈতিক মহলে জল্পনা ছড়ায় যে, তাহলে কি সর্বভারতীয় ক্ষেত্রে মোদি বিরোধী মহাজোটে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে কাছে পেতে এই রাজ্যে তৃণমূলের সঙ্গে জোট করতে চাইছেন রাহুল গান্ধীরা?

কিন্তু সেই সমস্ত জল্পনায় জল ঢেলে হাইকমান্ডের পক্ষ থেকে প্রদেশ কংগ্রেসের নেতাদের নিয়ে এক বৈঠকে স্পষ্ট জানানো হয় যে, নিজেদের সম্মান বিক্রি করে কখনো কারো সাথে জোটে যাওয়া ঠিক নয়। আর এতেই বাড়তি অক্সিজেন পায় রাজ্যে ক্ষয়িষ্নু দল হিসেবে পরিচিত সিপিএম।

দলীয় স্তরে আগামী লোকসভা ভোটে তারা এই রাজ্যে কংগ্রেসের সঙ্গে জোটের ব্যাপারে বিস্তর আলোচনাও চালায়। কিন্তু সিপিএমের বঙ্গ ব্রিগেডের এহেন প্রস্তাবে আপত্তি জানায় দলের অনেক নেতাই। কিন্তু শেষ পর্যন্ত নিজেদের অবস্থান থেকে একচুলও নড়লেন না সূর্যকান্ত মিশ্ররা। রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল এবং বর্তমানে দ্বিতীয় স্থানে থাকা কেন্দ্রের শাসকদল বিজেপিকে সরাতে আগামী লোকসভা ভোটে এই রাজ্যে কংগ্রেস-সিপিএম জোটের ব্যাপারে সওয়াল করলেন তিনি।

সূত্রের খবর, রাফাল কেলেঙ্কারি ও সিবিআইয়ের ডামাডোল ইস্যুতে এদিন উত্তর 24 পরগনা জেলা পার্টির ডাকে সল্টলেকের সিজিও কম্প্লেক্সের সামনে এক সভায় প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত হন সিপিএমের রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্র। আর সেখানেই কেন্দ্রের বিজেপি এবং রাজ্যের তৃণমূল সরকারকে তুলোধোনা করে আগামী লোকসভা ভোটে এই রাজ্যে জোটের ব্যাপারে মুখ খুলেন তিনি। এদিন সূর্যকান্ত মিশ্র বলেন, “কেন্দ্র থেকে বিজেপিকে সরাতে গোটা দেশে বিজেপি বিরোধী ভোটকে একত্রিত করতে হবে। যেখানে আমরা লড়বো না, সেখানে আমাদের সমর্থকদের কংগ্রেসকেই ভোট দিতে হবে। এ নিয়ে কোনো দ্বিধা-দ্বন্দ্ব থাকার প্রশ্নই ওঠে না।”

এদিকে সিপিএমের সূর্যকান্ত মিশ্রের জোটের ব্যাপারে কংগ্রেসের প্রতি এহেন আহবানে খুশি বিধান ভবনের বর্তমান মালিক সোমেন মিত্রও। এদিন প্রদেশ কংগ্রেসের বর্তমান সভাপতি সোমেন মিত্র বলেন, “সূর্যবাবুদের এহেন অবস্থানকে আমরা স্বাগত জানাচ্ছি। গত বিধানসভা ভোটে এই রাজ্যে তৃণমূল এবং বিজেপিকে সরাতে আমরা তো বামপন্থীদের সঙ্গে সমঝোতা করেছিলাম। কিন্তু পরে সিপিএমই আমাদের সঙ্গে দূরত্ব তৈরি করে। আমরা ওদের ত্যাগ করিনি।”

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

 

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

কিন্তু তাহলে এবারের লোকসভা ভোটে এই রাজ্যে কংগ্রেসের সঙ্গে কি জোট হবে বামেদের? এ দিন এ প্রশ্নের উত্তরে সোমেন মিত্র বলেন, “হাইকমান্ডের সঙ্গে আলোচনা করেই এই ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেব।” সবমিলিয়ে আগামী লোকসভা ভোটে জোটের প্রশ্নে তৃণমূল এবং বিজেপিকে সরাতে কাস্তে হাতুড়ির ডাকে আদৌ সাড়া দেয় কি না হাত শিবির সেদিকেই তাকিয়ে রাজনৈতিক মহল।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!