এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > বামফ্রন্ট > “শূন্য” সিপিএমের নীতি নিয়ে প্রশ্নের পরেই অস্বস্তিতে তন্ময়, “ব্যাক্তিগত মতামত” জানিয়ে দিল দল!

“শূন্য” সিপিএমের নীতি নিয়ে প্রশ্নের পরেই অস্বস্তিতে তন্ময়, “ব্যাক্তিগত মতামত” জানিয়ে দিল দল!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – বাংলার বিধানসভা নির্বাচন নিয়ে একটি আসনও দখল করতে পারেনি। কার্যত অস্তিত্ব সংকটে ভুগছে তারা। এই প্রথম রাজ্য বিধানসভায় তাদের কোনো প্রতিনিধি যেতে পারেনি। তবে সংযুক্ত মোর্চার পক্ষ থেকে আইএসএফের এক প্রার্থী জয়লাভ করে কিছুটা হলেও মুখ রক্ষা করেছে জোটের। তবে যে সিপিএম 34 বছর ধরে রাজ্যে শাসন করেছে এবং 2011 থেকে 2016 সাল পর্যন্ত বিরোধী আসনে ছিল, সেই সিপিএমের কেন এরকম দশা হল, তা নিয়ে দলের মধ্যে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে রাজ্যে।

বিরোধী দলের জায়গা পেয়েছে ভারতীয় জনতা পার্টি। আর এই পরিস্থিতিতে একটি বেসরকারি চ্যানেলের অনুষ্ঠানে গিয়ে দলীয় নেতৃত্বের বিরুদ্ধে মত পোষণ করতে দেখা গেছে প্রাক্তন সিপিএম বিধায়ক তনময় ভট্টাচার্যকে। তার মত গুরুত্বপূর্ণ নেতার মুখ থেকে এই ধরনের মন্তব্য কার্যত অস্বস্তিতে ফেলে দিয়েছে বাম নেতৃত্বকে। আর এই পরিস্থিতিতে এবার গোটা ঘটনায় বিবৃতি দিয়ে তন্ময় ভট্টাচার্যের বক্তব্য তার সম্পূর্ণ নিজস্ব মতামত বলে জানিয়ে দিল উত্তর 24 পরগনা জেলা সিপিএম।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, রবিবার বিধানসভা ভোট নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা দিন একটি বেসরকারি চ্যানেলের অনুষ্ঠানে বেশ কিছু বিষয় নিয়ে প্রশ্ন তুলে দিয়েছিলেন তনময় ভট্টাচার্য। আর এরপরই বিষয়ে হস্তক্ষেপ করে উত্তর 24 পরগনা জেলা সিপিএম নেতৃত্ব। এদিন এই প্রসঙ্গে জেলা সিপিএমের সম্পাদক মৃণাল চক্রবর্তী একটি বিবৃতি দিয়ে বলেন, “তন্ময় ভট্টাচার্য সঞ্চালকের প্রশ্নের উত্তরে নির্বাচনী ফলাফল সহ প্রসঙ্গ বহির্ভূত পার্টি পরিচালনা, পার্টি নেতৃত্বের ভূমিকা ইত্যাদি বিষয়ে অনেকটা সময় ধরে বক্তব্য রাখেন। তিনি যে বক্তব্য রেখেছেন, তার সম্পূর্ণ ব্যক্তিগত মতামত। পার্টি এই বক্তব্য অনুমোদন ও সমর্থন করেন না।”

এই বিষয়ে তন্ময় ভট্টাচার্যের বক্তব্য শুনে প্রয়োজনীয় সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবে জেলা নেতৃত্ব বলেও জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। স্বাভাবিক ভাবেই সিপিএমের এমনিতেই অস্তিত্ব সংকটের অবস্থা। তার মধ্যে একটি আসনও তারা দখল করতে না পারার কারণে তন্ময় ভট্টাচার্যের মত প্রবীণ নেতা যেভাবে দলের কিছু বিষয় নিয়ে প্রশ্ন তুলে দিয়েছিলেন, তাতে আরো অস্বস্তিতে পড়ে গিয়েছিল বাম নেতৃত্ব। তাই গোটা বিষয়কে তন্ময় ভট্টাচার্যের ব্যক্তিগত মতামত বলে জানিয়ে দিয়ে কিছুটা হলেও ড্যামেজ কন্ট্রোল করতে উদ্যত হল উত্তর 24 পরগনা জেলা সিপিএম বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

বলা বাহুল্য, গত লোকসভা নির্বাচনে বামেদের ভোট বিজেপিতে যাওয়ার কারণে যথেষ্ট অস্বস্তিতে পড়ে গিয়েছিল বাম নেতৃত্ব। কিভাবে ঘুরে দাঁড়ানো যায়, তা নিয়ে চিন্তা শুরু হয়েছিল দলের অন্দরে। আর এই পরিস্থিতিতে কংগ্রেসের সঙ্গে জোটের পাশাপাশি আইএসএফের মত নতুন রাজনৈতিক দলকে সঙ্গে নিয়ে এবার তারা ভালো ফল করবে বলেই মনে করা হয়েছিল। কিন্তু শেষপর্যন্ত ফলাফল প্রকাশের লোকসভার থেকেও খারাপ ফলাফল হয়েছে বামেদের। বাম এবং কংগ্রেসের কোনো প্রতিনিধি এবার বিধানসভায় যেতে পারছেন না।

তবে সংযুক্ত মোর্চার একজন প্রতিনিধি জয়লাভ করে আইএসএফের টিকিটের প্রতিনিধিত্ব করবেন রাজ্য বিধানসভায়। আর এই পরিস্থিতিতে দলের যখন কার্যত ভঙ্গুর দশা, তখন গোটা বিষয়ে বিস্ফোরক মন্তব্য করা তনময় ভট্টাচার্যের দায় যে কোনো ভাবেই পার্টি নয়, তা বুঝিয়ে দিল উত্তর 24 পরগনা জেলার সিপিএম নেতৃত্ব। সব মিলিয়ে প্রবীণ নেতা তন্ময় ভট্টাচার্যের মন্তব্যে নেতৃত্ব যে যথেষ্ট অস্বস্তিতে পড়েছে, তা তাদের এই ধরনের বিবৃতির মধ্যে দিয়েই পরিষ্কার হয়ে গেল বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!