এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > সৌজন্যে চুলোয় যাক, শো-কজের আতংক ছড়িয়েছে তৃণমূলের নেতাদের অন্দরে, বাদ অনুষ্ঠান

সৌজন্যে চুলোয় যাক, শো-কজের আতংক ছড়িয়েছে তৃণমূলের নেতাদের অন্দরে, বাদ অনুষ্ঠান



 

রাজনীতির সঙ্গে সৌজন্যতা অঙ্গাঙ্গিভাবে জড়িত। কিন্তু শাসক-বিরোধী তরজায় বঙ্গ রাজনীতিতে সৌজন্যতাকে অনেকদিন আগেই হারিয়ে দিয়েছিল। কিন্তু এবার সাংস্কৃতিক মঞ্চে সৌজন্যের জন্য বিপদের মুখে শোকজ হয়ে বুঝেশুনেই পা ফেলতে হচ্ছে তৃণমূলের নেতা মন্ত্রীদের। প্রসঙ্গত, এগড়া সাংস্কৃতিক মঞ্চ নামে একটি কমিটির উদ্যোগে বিগত 33 বছর ধরে এগড়ায় একটি মেলা অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। যে মেলায় প্রশাসনিক কর্তা থেকে শুরু করে রাজনৈতিক কর্তাব্যক্তিরা অংশগ্রহণ করেন। কিন্তু এবার সেই মেলায় সৌজন্যতা অটুট থাকবে কিনা, তা নিয়ে তৈরি হয়েছে প্রশ্ন।

জানা গেছে, এবারের মেলার উদ্বোধন অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন তৃণমূল বিধায়ক সমরেশ দাস, বিজেপি সাংসদ দিলীপ ঘোষ এবং বাম কাউন্সিলার। কিন্তু সব রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধিরা মেলায় অংশগ্রহণ করলেও তা তৃণমূল নেতৃত্বের পছন্দ হয়নি। যার পরিণামে সম্প্রতি সেই তৃণমূল বিধায়ক সমরেশ দাসকে দলের তরফে শোকজ করা হয়েছে। আর তৃণমূলের তরফে তাদের বিধায়ককে এভাবে শোকজ করায় নানা মহলে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছিল।

তাহলে কি বিজেপি সাংসদের সঙ্গে এক মঞ্চ শেয়ার করার জন্যই তৃণমূলের নেতাকে এই ধরনের যন্ত্রণা পোহাতে হল‌‌! ইতিমধ্যেই এই ঘটনা নিয়ে নানা মহলে তৈরি হয়েছে নানা বিতর্ক। এমনকি প্রশাসনিক কর্তা ব্যক্তিরাও এই মেলার উদ্বোধন মঞ্চে উপস্থিত থাকেননি। অনেকে বলছেন, বিরোধী দলের নেতা উদ্বোধন মঞ্চে উপস্থিত থাকার জন্য প্রশাসনিক কর্তা ব্যক্তিরা সরকারের কোপ থেকে রেহাই পেতে এখন সৌজন্যতা ভুলে গিয়েছেন।

যদিও বা এই ব্যাপারে মহাকুমার এক আধিকারিক বলেন, “মেলায় যাওয়ার বিষয়ে কোনো বিতর্ক বা সংশয়ের কারণ নেই। কাজের চাপে কোঁথাও সেভাবে যাওয়ার সময় হচ্ছে না। সময় থাকলে অবশ্যই যাব।” কিন্তু এই ব্যাপারে কি বলছেন মেলা কমিটির সম্পাদক মৃন্ময় মিশ্র! এদিন তিনি বলেন, “বিতর্কের জন্য আমন্ত্রিত প্রশাসনের আধিকারিকরা অনেকেই আসতে চাইছেন না। তবে কয়েকজন মেলা অফিসে এসেছিলেন। অবশ্য আমাদের এই মেলা অরাজনৈতিক। যেসব আমন্ত্রিত প্রশাসনিক আধিকারিকরা আসেননি, পুনরায় মেলা কমিটি তাদের মেলায় আসার জন্য আমন্ত্রণ জানাবে।”

তবে যে যাই বলুক না কেন, তৃণমূলের বিধায়ক দিলীপ ঘোষের সাথে এক মঞ্চে থাকার জন্যই যে তাকে শোকজ হতে হয়েছে, আর তার কারণেই সরকারের কোপ থেকে রেহাই পাওয়ার জন্য এই মেলা থেকে নিজেদের সরিয়ে রাখছে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!