এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > শোভন-বৈশাখীর ফোন তৃণমূল শীর্ষনেতাকে! নতুন করে শুরু বিজেপি ছাড়ার জল্পনা!

শোভন-বৈশাখীর ফোন তৃণমূল শীর্ষনেতাকে! নতুন করে শুরু বিজেপি ছাড়ার জল্পনা!



2019 এর লোকসভা ভোটের পর থেকেই দলবদল এর হাওয়ায় বিজেপির দিকেই ঝোঁক বাড়ে সবার। দলবদলের খবরে শিরোনামে আসেন প্রাক্তন মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায় ও বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। রীতিমতো সাংবাদিক সম্মেলন করে তাঁরা বিজেপিতে প্রবেশ করেন। কিন্তু তারপরেই বিতর্কের সূত্রপাত হয়। বিজেপিতে তৃণমূল থেকে দেবশ্রী রায়ের যোগদান করতে যাওয়ার খবরে। শোভন চট্টোপাধ্যায় ও বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় দুজনেই এই জল্পনার ফলে এক মাস যেতে না যেতেই বিজেপি দল ছাড়ার সিদ্ধান্ত জানান। যদিও তারপরে রাজ্য বিজেপির বিভিন্ন নেতা বিশেষ করে মুকুল রায়ের হস্তক্ষেপে পুরো ব্যাপারটিতে স্থিতাবস্থা আসে। কিন্তু এদিন আবারও শোভন চট্টোপাধ্যায় ও বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় এর সিদ্ধান্তে দল ছাড়ার জল্পনা আবার   উঠলো।

গতকালই তৃণমূল থেকে প্রাক্তন মেয়র সব্যসাচী দত্ত বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন। আর সেদিনই আগেই যোগ দেওয়া প্রাক্তন মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায় ও বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় সিদ্ধান্তে বিজেপি দলে আবার গুঞ্জন শুরু হলো।

এদিন কলকাতায় অমিত শাহের সভায় উপস্থিত তো ছিলেনই না বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় ও শোভন চট্টোপাধ্যায়। উপরন্তু এদিন বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় তৃণমূল মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে ফোন করে কথা বলেন। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে বিজেপি দলে আবারও শোভন চট্টোপাধ্যায় ও বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়ের দলছাড়া নিয়ে জল্পনার সৃষ্টি হয়েছে।

প্রশ্ন উঠেছে, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীর সভায় উপস্থিত না থেকে শোভন চট্টোপাধ্যায় ও বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় ঘুরপথে বিজেপিকে বার্তা দিলেন না তো দল ছাড়ার? যদিও বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, ব্যক্তিগত ব্যস্ততার কারণেই তিনি অমিত শাহের সভায় উপস্থিত হতে পারেননি। অন্যদিকে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের আদালতে যাওয়ার কাজ থাকায় তিনিও উপস্থিত হতে পারেননি।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

তবে এদিন বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়ে দিয়েছেন, ব্যক্তিগত কাজ থাকার কারণে তিনি এবং শোভন চট্টোপাধ্যায় অমিত শাহের সভায় উপস্থিত থাকতে পারেননি।

আর অন্যদিকে পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে ফোন করা নিয়ে বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় জানান সম্পূর্ণ প্রাতিষ্ঠানিক কারণেই তাকে ফোন করতে হয়েছিল পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে। যেহেতু তিনি একজন শিক্ষা মন্ত্রী। তিনি এও জানান, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সভায় উপস্থিত না থাকার কারণ আগে থেকেই তাঁরা দলে জানিয়ে দিয়েছিলেন এবং ক্ষমাও চেয়ে নিয়েছিলেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সভায় শোভন চট্টোপাধ্যায়, বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় উপস্থিত না থাকার কারণে অবশ্য এখনো পর্যন্ত বিজেপির তরফ থেকে কোনো বিবৃতি দেওয়া হয়নি। তবে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের দাবি, বিজেপি দলে এমনিই শোভন চট্টোপাধ্যায় এবং বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়কে সেভাবে দলীয় কাজে অংশগ্রহণ করতে দেখা যায়নি কোনোদিনই। তাই দল ছাড়ার একটা আশঙ্কা তো রয়েই যাচ্ছে। তবে পরবর্তীতে শোভন চট্টোপাধ্যায় ও বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় আবারো দলবদল এর ইঙ্গিত দেন কিনা সেদিকে নজর রাখবে রাজনৈতিক মহল।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!