এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > তৃণমূল > শিক্ষিকাকে ধর্ষণের অভিযোগ প্রভাবশালী তৃণমূল নেতার বিরুদ্ধে! ক্রমশ উত্তপ্ত রাজ্য রাজনীতি!

শিক্ষিকাকে ধর্ষণের অভিযোগ প্রভাবশালী তৃণমূল নেতার বিরুদ্ধে! ক্রমশ উত্তপ্ত রাজ্য রাজনীতি!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্টসম্প্রতি দেখা যাচ্ছে, বাংলার শাসক দল তৃণমূলের প্রতি এবার দুর্নীতির অভিযোগের থেকেও ছাপিয়ে উঠছে অনেক বেশি নারী নির্যাতনের অভিযোগ। নারীঘটিত একের পর এক ঘটনায় যেভাবে তৃণমূল দলের বিভিন্ন সদস্য নেতার নাম সামনে আসছে, তাতে কিন্তু দল আরো চরম অস্বস্তিতে পড়ছে বলে মনে করা হচ্ছে। অন্যদিকে রাজনৈতিক মহলে চলছে শাসকদলের প্রতি তীব্র সমালোচনা। অন্যদিকে বিরোধীদল এই ধরনের ঘটনাকে হাতিয়ার করে রাজ্যবাসীর সামনে তুলে ধরছে, যার ফলে শাসক শিবির এই মুহূর্তে অনেক বেশি কোণঠাসা হয়ে পড়ছে বলে মনে করা হচ্ছে।

সম্প্রতি দক্ষিণ 24 পরগনার বারুইপুরে এরকমই একটি ঘটনা ঘটেছে। স্থানীয় শাসক দলের নেতার বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে ধর্ষণের। সূত্রের খবর, এলাকার এক গৃহ শিক্ষিকাকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন কল্যাণপুর অঞ্চলের যুব তৃণমূল সভাপতি সুরজিৎ পুরকায়েত। আর এই ঘটনা সামনে আসার সাথে সাথেই রাজনৈতিক মহলে শুরু হয়েছে চরম নিন্দা। এই ঘটনায় অভিযোগকারিণীর দাবি, গত 9 জুলাই অভিযুক্ত সুরজিৎ পুরকাইত ফাঁকা বাড়িতে মেয়েকে পড়ানোর নাম করে তাঁকে ডেকে পাঠান।

এবং অভিযোগকারিণী বাড়িতে গেলে তাঁকে কুপ্রস্তাব দেন। এবং রাজি না হলে তাঁকে বলপূর্বক ধর্ষণের চেষ্টা করেন অভিযুক্ত তৃণমূল নেতা। যদিও কোনরকমে ওই অভিযোগকারিণী পালিয়ে আসেন বলে জানা গেছে। কিন্তু তারপর বিষয়টি যাতে পাঁচকান না হয়, তার জন্য তাঁর ওপর চলে উপর্যুপরি হুমকি। এমনকি অভিযুক্তর স্ত্রী বাড়ি বয়ে এসেও তাঁকে হুমকি দিয়ে যান বলে জানা গেছে। রবিবার রাতে ওই গৃহশিক্ষিকা বারাইপুর থানায় গিয়ে অভিযোগ জানান।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

এবং তৃণমূল নেতা সুরজিৎ পুরকায়েতের বিরুদ্ধে ধর্ষণের চেষ্টা ও হুমকির অভিযোগ দায়ের করেছেন ঐ গৃহশিক্ষিকা বলে খবর। অন্যদিকে অভিযুক্ত যুব তৃণমূল সভাপতি সুরজিৎ পুরকায়েত দাবি করেছেন, তিনি সম্পূর্ণরূপে নির্দোষ। রাজনৈতিক প্রতিহিংসা চরিতার্থ করার জন্যই পরিকল্পনামাফিক তাঁকে ফাঁসানো হচ্ছে। এখনো পর্যন্ত এই নিয়ে স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্বের পক্ষ থেকে কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি বলে জানা গেছে। তবে পুলিশ তদন্তে নেমেছে বলে খবর।

এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মত, রাজ্যের সামনে 2021 এর বিধানসভা নির্বাচন। অতএব সেই নির্বাচনে রাজ্যের রাশ নিজেদের হাতে রাখতে গেলে অবশ্যই তৃণমূল শিবিরকে আরো কঠোর অবস্থান নিতে হবে। এই ধরনের নারী নির্যাতনের ঘটনার সাথে যদি বারংবার তৃণমূলের নেতাদের নাম জড়ায়, তাহলে অবশ্যই জনমানসে তার বিরূপ প্রতিক্রিয়া পড়বে বলে দাবি করছেন রাজনৈতিক মহলের একাংশ। আপাতত বারুইপুরের এই ঘটনায় প্রশাসনিক পদক্ষেপ কি নেওয়া হবে, সে দিকেই লক্ষ্য থাকবে রাজনৈতিক মহলের।

আপনার মতামত জানান -

ট্যাগড
Top
error: Content is protected !!