এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > দলের প্রতি কি ‘অভিমান’ বাড়ছে শিক্ষামন্ত্রীর? তাঁর নিজের প্রকাশ্য বক্তব্যেই জল্পনা তুঙ্গে

দলের প্রতি কি ‘অভিমান’ বাড়ছে শিক্ষামন্ত্রীর? তাঁর নিজের প্রকাশ্য বক্তব্যেই জল্পনা তুঙ্গে



সম্প্রতি একটি ঘটনাকে ঘিরে রাজনৈতিক মহলে গুঞ্জন শুরু হয়েছে। একটি সরকারি অনুষ্ঠানকে ঘিরে পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের মন্তব্য রাজনৈতিক মহলে জল্পনার সৃষ্টি করেছে। সম্প্রতি একটি স্কুলের ইংরেজি শাখার উদ্বোধন করতে গিয়ে পার্থ চট্টোপাধ্যায় মঞ্চে বক্তব্য দিতে উঠে বলেন, বর্তমানে শিক্ষিত ব্যক্তিদের কোন দর নেই। আর এই কথার পরেই শুরু হয়েছে সমালোচনা। রাজনৈতিক মহলে গুঞ্জন, পার্থ চট্টোপাধ্যায় এই মন্তব্য কাকে উদ্দেশ্য করে করলেন ? কারণ, তার সঙ্গে মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন বিধায়ক অরূপ বিশ্বাস। তাহলে কি রাজ্যের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাসকেই তিনি এই বক্তব্য বলে খোঁচা দিলেন? উঠেছে প্রশ্ন।

সম্প্রতি একটি সরকারি অনুষ্ঠানে হাজিরা দিয়ে বিতর্কে জড়িয়েছেন শিক্ষা মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। একটি স্কুলে ইংরেজি শাখার উদ্বোধন করতে গিয়ে ভাষণ দিতে ওঠেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়। সেখানে তিনি মন্তব্য করেন, তাঁর দর কম। তিনি আরো বলেন, এই মুহূর্তে রাজ্যের পারিপার্শ্বিক পরিস্থিতি নজরে রেখে বলাই যায় শিক্ষিতদের দর কমে গিয়েছে। শিক্ষামন্ত্রীর বক্তব্য সামনে আসার পরেই রাজনৈতিক মহলে গুঞ্জন শুরু হয়েছে। যদিও রাজ্যের অন্য মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস পার্থ চট্টোপাধ্যায় এই মন্তব্যকে নিয়ে কোন গুরুত্ব দিতে চাননি বলে জানা গেছে।

এদিন বাঁশদ্রোণীতে সরকারি অনুষ্ঠানে দুই মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় এবং অরূপ বিশ্বাস ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন কলকাতা জেলা প্রাথমিক শিক্ষা সংসদের চেয়ারম্যান। শুধু তাই নয়, এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন আশেপাশে এলাকার সমস্ত তৃণমূল কাউন্সিলররা। তাঁদের মাঝে এরকম বক্তব্য রাখায় স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন উঠেছে, শিক্ষা মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে নিয়ে। তৃণমূলের মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাসকে মঞ্চে রেখে পার্থ চট্টোপাধ্যায় মন্তব্য করেন, এই মুহূর্তে তাঁর দর কমে গিয়েছে। কারণ রাজ্যে শিক্ষিতদের দর কমে গিয়েছে। এই বক্তব্য সামনে আসার পরেই অনেকেই প্রশ্ন তুলেছেন, পার্থ চট্টোপাধ্যায় এবং অরূপ বিশ্বাস এর ব্যক্তিগত সম্পর্ক নিয়ে।


ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

তবে পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের এই বক্তব্যকে ঘিরে প্রশ্ন উঠেছে, তিনি রসিকতা করে এখানে মন্তব্য করেছেন নাকি আদতে সত্যিকারের খোঁচা মারতে ব্যস্ত ছিলেন মঞ্চে থাকা বিধায়ককে? তবে যে এলাকায় স্কুলের উদ্বোধন সেই এলাকায় এদিন পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের উপস্থিত থেকে বলেন, তিনি বাঁশদ্রোণির পাশের এলাকা থেকেই ভোটে জেতেন বরাবর। অন্যদিকে মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের এই বক্তব্যটিকে পুরোপুরি লক্ষ্য করে দেখেছেন তিনি প্রসঙ্গে বলেছেন পার্থদা শিক্ষা মন্ত্রী তাদের নেতা ও বটে দলের মহাসচিব ও তিনি তাই এ নিয়ে কোনো মন্তব্য মন্তব্যে যেতে রাজি হননি অরূপ বিশ্বাস

অন্যদিকে, শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের এহেন বক্তব্যকে ঘিরে রাজনৈতিক মহলে অন্য একটি তত্ত্ব মাথাচাড়া দিয়েছে। প্রশ্ন উঠেছে, তাহলে কি তৃণমূলের অন্দরে গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের প্রভাবে বক্তব্য রাখলেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। যদিও এই প্রশ্নের কোন সদুত্তর মেলেনি তৃণমূলের পক্ষ থেকে। অন্যদিকে, রাজনৈতিক মহলের একাংশের মতে রাজ্যের পুরভোটের প্রাক্কালে এরকম মন্তব্য স্বাভাবিকভাবেই দলকে বিভিন্ন প্রশ্নের মুখে দাঁড় করায়। তাই এই মুহূর্তে এ ধরনের মন্তব্য না করাই শ্রেয়। আপাতত পরিস্থিতির ওপর নজর রাখছেন রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের।

আপনার মতামত জানান -

ট্যাগড
Top
error: Content is protected !!