এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > আবারো বড় ধাক্কা খেলেন ভারতী ঘোষ

আবারো বড় ধাক্কা খেলেন ভারতী ঘোষ



সবং উপনির্বাচনের ফল ঘোষণার পরবর্তী সময়ে পশ্চিম মেদিনীপুরের পুলিশ সুপার ভারতী ঘোষের বদলি এবং ইস্তফা নিয়ে রীতিমত সরগরম রাজ্য-রাজনীতি। একদা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ঘনিষ্ঠ বলে পরিচিত ভাড়াটি ঘোষকে হঠাৎ করেই অত্যন্ত কম গুরুত্ত্বপূর্ন একটি পদে বদলির নির্দেশিকা জারি করা হয় নবান্ন থেকে। কিন্তু ভারতী ঘোষ তা গ্রহণ না করে নিজের ইস্তফাপত্র পাঠিয়ে দেন, সঙ্গে তিন মাসের ছুটির আবেদন করেন। কিন্তু রাজ্য সরকার তাঁর এই বিদ্রোহ ভালোভাবে নেয় নি তা তাঁর বিরুদ্ধে একের পর এক সিদ্ধান্তেই প্রমাণিত। প্রথমেই তাঁর ইস্তফা এবং ছুটির দরখাস্ত নামঞ্জুর হয়ে যায়। এরপর তাঁর সময়ে আর্থিক দুর্নীতি নিয়ে তদন্ত শুরু হয় বলেও জানা যাচ্ছে।
আর তাঁর উপর চাপ বাড়িয়ে এবার তাঁর আমলে তাঁর ঘনিষ্ঠ হিসাবে পরিচিত ৮৯ জন পুলিশকর্মীর মাসখানেক আগে হওয়া বদলির নির্দেশ একলপ্তে রদ করে দেওয়া হল। পশ্চিম মেদিনীপুরের পুলিশ সুপার এই বদলিকে ‘রুটিন বদলি’ বলে আখ্যা দিলেও, বেশ কিছু সংবাদপত্রের সূত্র থেকে জানা যাচ্ছে, নবান্নের নির্দেশেই এই বদলি রদ করা হয়েছে। এই গুঞ্জন আরো বেড়েছে কারণ, ভারতী ঘোষের জামানায় হওয়া ওই বদলি নিয়ে একাধিক মহলের দাবি ৮৯ জনের বেশিরভাগকেই তাঁদের পছন্দের জায়গায় বদলি করা হয়েছিল এবং বদলির ওই নির্দেশ নিয়ে সে সময়ে বিতর্কও বাধে। কেননা, সবং বিধানসভা কেন্দ্রের উপনির্বাচন পর্বে নির্বাচন কমিশনের অধীনে থেকেও তত্‍কালীন পুলিশ সুপার ভারতী ঘোষ ৮৯ জন পুলিশকর্মীকে বদলি করেছিলেন। প্রসঙ্গত, ইতিমধ্যেই ভারতী ঘোষ-ঘনিষ্ঠ বলে পরিচিত গড়বেতার ওসি হীরক বিশ্বাসকে পুলিশ লাইনে ‘ক্লোজ’ করেছেন জেলার নতুন পুলিশ সুপার। এমনকি ভারতী ঘোষ-ঘনিষ্ঠ বলে পরিচিত আরেক পুলিশ অফিসার খড়্গপুরের এসডিপিও সন্তোষ মণ্ডলকে উত্তরবঙ্গে বদলি করা হয়েছে। আর এখন এই ৮৯ জনের বদলির নির্দেশ একসঙ্গে রদ হয়ে যাওয়ায় নতুন করে জল্পনা শুরু হয়েছে প্রশাসনিক মহলে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!