এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > শেষ শ্রদ্ধা জানাতে গিয়েও রাজনীতি টেনে আনলেন মমতা, সরব প্রত্যেকেই!

শেষ শ্রদ্ধা জানাতে গিয়েও রাজনীতি টেনে আনলেন মমতা, সরব প্রত্যেকেই!



মঙ্গলবার ভোরে ইহজগত ছেড়ে পরজগতে চলে গেছেন প্রাক্তন তৃণমূল সাংসদ তথা বিশিষ্ট অভিনেতা তাপস পাল। তবে মৃত্যুর সময়েও বিতর্কের শিরোনামেই থেকে গেলেন তিনি। আর নানা মহলে তাপস পালের মৃত্যু নিয়ে নানা চর্চা হলেও, একদম শেষ মুহূর্তে কোনো বিতর্ক না হওয়াই কাম্য ছিল সকলের কাছে। কিন্তু রবীন্দ্রসদনে শায়িত মৃতদেহের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে এসে রাজনীতির সূচনা করলেন স্বয়ং তৃণমূল নেত্রী তথা বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেই দাবি বিরোধীদের।

এদিন রবীন্দ্রসদনে এসে তাপস পালের মৃতদেহের প্রতি শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করে তাপস পালের মৃত্যুর জন্য কেন্দ্রকেই দায়ী করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। যা নিয়ে এখন তৈরি হয়েছে বিতর্ক। অনেকেই বলছেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় শেষ সময় তাপস পালের মৃত্যুতে শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করতে এসে রাজনীতির সুর না টানলেই পারতেন। এদিন এই ব্যাপারে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে কটাক্ষ করে কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয় বলেন, “শিল্পীকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে গিয়ে নোংরা রাজনীতি করছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এটা দিদির পক্ষেই সম্ভব।”

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

এদিন রবীন্দ্রসদনে গিয়ে তাপস পালের মৃত্যুর জন্য কেন্দ্রকে দায়ী করা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে কটাক্ষ করে বাবুল সুপ্রিয় আরও বলেন, “আমি এই ঘটনায় তীব্র ভাষায় ধিক্কার জানাচ্ছি। রবীন্দ্রসদনে একজন শিল্পীর মৃতদেহ শায়িত রয়েছে, তাকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে গিয়ে নোংরা রাজনীতি টেনে এনেছেন মমতা। ভুবনেশ্বর সুদীপকে দেখতে গিয়েছিলেন। পাশের ঘরে তাপস পাল ছিলেন। কেন দেখা করলেন না! যে কারণে তাপস পালের মানসিক চাপ ছিল, তাতে রাজনীতি টেনে আনা দিদির পক্ষেই সম্ভব। তাপসদা মানসিকভাবে বিপর্যস্ত ছিলেন। তৃণমূল যে কাজের মধ্যে লিপ্ত থাকে, তাতে তাপসদার মত সহজ সরল মানুষের জড়িয়ে পড়া কতটা শান্তি পেয়েছিলেন উনি, তা মানুষ প্রশ্ন তুলছে।”

তবে শুধু বাবুল সুপ্রিয় নয়, এদের মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আচরণ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন কংগ্রেস সাংসদ প্রদীপ ভট্টাচার্যও‌। এদিন তিনি বলেন, “কারও মৃত্যুতে রাজনীতি নিয়ে কথা বলা উচিত না। বাংলার মুখ্যমন্ত্রীর জানা উচিত, মাঠে দাঁড়িয়ে রাজনৈতিক কথা বলুন। অসুবিধে নেই। কিন্তু মৃতদেহকে সামনে রেখে যে মন্তব্য করেছেন, রাজনৈতিক চিন্তার দিক থেকে বিকৃত ভাবনা ছাড়া তা আর কিছু নয়।” সব মিলিয়ে তাপস পালের মৃত্যুর পর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মন্তব্য নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করল সর্বত্র।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!