এখন পড়ছেন
হোম > অন্যান্য > সর্বনাশ! করোনাকালে তীব্র আতঙ্ক ছড়ানো ব্ল্যাক ফাঙ্গাস এবার এসে হাজির বাংলার সীমান্তেও!

সর্বনাশ! করোনাকালে তীব্র আতঙ্ক ছড়ানো ব্ল্যাক ফাঙ্গাস এবার এসে হাজির বাংলার সীমান্তেও!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – দেশ জুড়ে তীব্র করোনার দ্বিতীয় সংক্রমনের ঢেউ। দৈনিক চার লক্ষ বা তার কাছাকাছি রয়েছে সংক্রমণ। আর এই পরিস্থিতিতে এবার আতঙ্ক ছড়াচ্ছে ব্ল্যাক ফাঙ্গাস। বিষাক্ত এই ছত্রাকের আক্রমণ ফুসফুস, চোখ, কিডনি থেকে শুরু করে মস্তিষ্ক পর্যন্ত ছড়িয়ে যেতে পারে। সারা শরীরও আক্রান্ত হতে পারে। উপযুক্ত চিকিৎসা না হলে মৃত্যু পর্যন্ত হতে পারে এই বিষাক্ত ছত্রাকের আক্রমণে।

ব্ল্যাক ফাঙ্গাসের সংক্রমণ প্রথম দিল্লিতে দেখা গিয়েছিল। এবার প্রতিবেশী রাজ্য ওড়িশাতেও দেখা গেল ব্ল্যাক ফাঙ্গাস। ফলে আতঙ্কিত রয়েছেন বিশেষজ্ঞ ও চিকিৎসকেরা। বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, মিউকরমাইসিটিস হলো এক ধরনের বিষাক্ত ছত্রাক। যা থেকে ছড়ায় এই রোগ। কোন জৈব পদার্থ পচে গিয়ে এই সংক্রমণ ছড়িয়ে যেতে পারে। পচা পাতা, আবর্জনা, প্রাণীর দেহাবশেষ, মলমূত্র থেকে এই ধরনের বিষাক্ত ছত্রাক জন্ম নেয়। বাতাসের মাধ্যমে এই ছত্রাক চলে আসে প্রাণী দেহে। নিঃশ্বাস-প্রশ্বাসের মাধ্যমে শরীরে প্রবেশ করে নাক, মুখ দিয়ে, রোমকূপ দিয়ে পর্যন্ত এই ছত্রাক শরীরে প্রবেশ করতে পারে।

শরীর দুর্বল থাকলে এই ছত্রাক খুব সহজে শরীরে বাসা বাঁধতে পারে। করোনা থেকে সুস্থ হয়ে ওঠার পর বেশ কিছু মানুষের দেহে এই ধরনের সংক্রমণ পাওয়া গিয়েছিল। এই বিষাক্ত ছত্রাকের সংক্রমণ হলে ফুসফুস, চোখ, কিডনি আক্রান্ত হয়। পরবর্তীতে সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ে মস্তিষ্কে, সেখান থেকে সারা দেহে। উপযুক্ত চিকিৎসা না হলে মৃত্যু পর্যন্ত হতে পারে এই মিউকরমাইসিটিস সংক্রমণ থেকে।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

ব্ল্যাক ফাঙ্গাস নিয়ে দেশবাসীকে সতর্ক করেছে আইসিএমআর। এ বিষয়ে গাইডলাইনও প্রকাশ করা হয়েছে। সম্প্রতি উড়িষ্যাতে এক ব্যক্তির দেহে এই ধরনের ছত্রাকের সংক্রমণ পাওয়া গেছে। এখন তিনি চিকিৎসাধীন আছেন। জানা গেছে, উড়িষ্যার ৭১ বছর বয়স্ক এক বৃদ্ধ প্রথমে করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন। করোনা থেকে সুস্থ হয়ে ওঠার পর ব্ল্যাক ফাঙ্গাস ছড়িয়ে পড়ে তার শরীরের। এর ওপর তিনি ডায়াবেটিস আক্রান্ত। তাই তাকে সুস্থ করতে ঘুম উড়ে যায় চিকিৎসকদের।

এ প্রসঙ্গে জনৈক চিকিৎসক জানিয়েছেন, গত ২০ সে এপ্রিল এই ব্যক্তি করোনা আক্রান্ত হন। হোম আইসোলেশন করে তাঁর চিকিৎসা চলছিল। কিন্তু দেখা যায়, হঠাৎ তাঁর চোখ মুখ ফুলে গেছে, নাক দিয়ে কালো জিনিস বের হচ্ছে। এরপর গত ৮ ই মে তাঁর নাকে এনডসকপি করে জানা যায়, তার ফুসফুসে ব্ল্যাক ফাঙ্গাসের সংক্রমণ ঘটেছে। অর্থাৎ মিউকরমাইসিটিস রোগে তিনি আক্রান্ত হয়েছেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, এই বৃদ্ধের বাড়ির এয়ারকুলারে দীর্ঘদিন ধরে জল জমে ছিল। এই বাসি জলে এই ধরনের বিষাক্ত ছত্রাক তৈরি হয়েছিল। এয়ার কুলার থেকেই তিনি সংক্রমিত হয়েছে। তবে এখন তিনি স্থিতিশীল আছেন। বিশেষজ্ঞরা সতর্ক করেছেন, করোনা আক্রান্ত হওয়ার পর ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে আক্রান্ত হবার যথেষ্ট আশঙ্কা আছে। এই বিষয়ে তাঁরা সতর্ক করেছেন সকলকে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!