এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > সংরক্ষনের খাড়া, দুই হেভিওয়েট চেয়ারম্যানের ভবিষ্যৎ নিয়ে জল্পনা!

সংরক্ষনের খাড়া, দুই হেভিওয়েট চেয়ারম্যানের ভবিষ্যৎ নিয়ে জল্পনা!



পৌরসভা নির্বাচনে লড়াই করে সাফল্য পাওয়া অপেক্ষা এখন সব থেকে বেশি চিন্তার কারণ ওয়ার্ড সংরক্ষণ। প্রায় প্রতিটি রাজনৈতিক দলই সেই সংরক্ষণের তালিকা দেখে চোখ কপালে তুলে দিয়েছে। অনেক ক্ষেত্রেই বেশকিছু ওয়ার্ডের সংরক্ষণের জন্য বর্তমান কাউন্সিলররা দাঁড়াতে পারছেন না। এমনকি এই সংরক্ষণের কোপ থেকে বাদ পড়ছেন না বেশকিছু পৌরসভার চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যানরাও। আর সেই একই ঘটনার প্রতিফলন দেখা গেল আলিপুরদুয়ার পৌরসভার সিপিএমের প্রাক্তন চেয়ারম্যান অনিন্দ্য ভৌমিক এবং তৃণমূলের প্রাক্তন চেয়ারম্যান আশিস দত্তের ক্ষেত্রে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য গত 2013 সালের পৌরসভা নির্বাচনে বামেরা এখানকার পৌরবোর্ড দখল করেছিল। যখন চেয়ারম্যান হয়েছিলেন সিপিএমের অনিন্দ্য ভৌমিক। কিন্তু এক বছরের মধ্যেই বিরোধীদলের কাউন্সিলারদের নিজেদের দিকে নিয়ে এই পৌরসভার ক্ষমতা দখল করে তৃণমূল কংগ্রেস। চেয়ারম্যান তৃণমূলের আশিস দত্ত। বেশ কিছুদিন আগেই পৌরসভার মেয়াদ শেষ হয়ে গিয়েছে। সম্প্রতি প্রশাসনের পক্ষ থেকে বিভিন্ন ওয়ার্ডের আসন সংরক্ষণের তালিকা প্রকাশ করা হয়। যেখানে দুই এবং তিন নম্বর ওয়ার্ড সংরক্ষণের কোপে পড়েছে বলে দেখা যায়।

জানা যায়, এই দুই নম্বর থেকেই প্রার্থী হয়েছিলেন তৃণমূলের আশিস দত্ত। অন্যদিকে তিন নম্বর ওয়ার্ড থেকে প্রার্থী হয়েছিলেন সিপিএমের অনিন্দ্য ভৌমিক। তাই এই দুটি ওয়ার্ড সংরক্ষণের আওতায় পড়ে যাওয়ায় দুই প্রাক্তন চেয়ারম্যানের ভবিষ্যত কী হবে, তা নিয়ে তৈরি হয়েছে জল্পনা। সিপিএমের তরফে অবশ্য জানানো হয়েছে, তিন নম্বর ওয়ার্ডে অনিন্দ্যবাবু না দাঁড়ালেও তাকে অন্য কোনো ওয়ার্ড থেকে দাঁড় করানো হবে। কিন্তু তৃণমূলের প্রাক্তন চেয়ারম্যান আশিস দত্তর কি হবে! সেই ব্যাপারে এখন মুখে কুলুপ এঁটেছে শাসক দল।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

 

তবে এই ব্যাপারে জেলা তৃণমূল সভাপতি মৃদুল গোস্বামী বলেন, “আশিস দত্ত অনেকদিনের কাউন্সিলর। পৌরসভা পরিচালনায় তার অনেক অভিজ্ঞতা রয়েছে। দল মনে করলে তিনি নিশ্চয়ই প্রার্থী হবেন।” কিন্তু যেভাবে সিপিএম তাদের প্রাক্তন চেয়ারম্যানকে প্রার্থী করার ব্যাপারে জানিয়ে দিয়েছে, সেভাবে কেন নিশ্চিত করে তৃণমূল তাদের প্রাক্তন চেয়ারম্যানকে প্রার্থী করার কথা জানাচ্ছে না!

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, প্রশান্ত কিশোরের টিমের তরফের সার্ভের ভিত্তিতে এবার তৃণমূল পৌরসভা নির্বাচনে টিকিট দেবে। তাই সেভাবে জেলা নেতারা চাইলেও, টিকিট পাবেন না কেউ। তাই এখন টিকিট পাওয়া না পাওয়ার ব্যাপারে সমস্ত কিছু এখন থেকেই বলতে চাইছেন না তৃণমূল নেতারা। তবে এই ব্যাপারে কি বলছেন দুই দলের দুই প্রাক্তন চেয়ারম্যান! দুজনের গলা থেকে অবশ্য দলের প্রতি দায়বদ্ধতার কথাই শোনা গেছে।

এদিন এই এই প্রসঙ্গে সিপিএমের প্রাক্তন চেয়ারম্যান অনিন্দ্য ভৌমিক বলেন, “নির্বাচনী লড়াইয়ে দলের সঙ্গে আমি রয়েছি। ভোটে দাঁড়ানো নিয়ে দল যা সিদ্ধান্ত নেবে, সেটাই চূড়ান্ত।” একইভাবে এই ব্যাপারে তৃণমূলের প্রাক্তন চেয়ারম্যান আশিস দত্ত বলেন, “দল টিকিট দিলে তবেই নির্বাচনে লড়ব।” তবে শেষ পর্যন্ত যদি দুই দলের দুই প্রাক্তন চেয়ারম্যান সংরক্ষণের জন্য যদি টিকিট না পান, তাহলে তারা কি করবেন, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!