এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > সন্ময় ব্যানার্জি ইস্যুতে বিরোধীরা সরব হলেও, পুলিশ আরও কড়া অবস্থান নেবে ইঙ্গিত মুখ্যমন্ত্রীর

সন্ময় ব্যানার্জি ইস্যুতে বিরোধীরা সরব হলেও, পুলিশ আরও কড়া অবস্থান নেবে ইঙ্গিত মুখ্যমন্ত্রীর



সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে মুখ খোলার জন্য গ্রেপ্তার করা হয়েছে কংগ্রেস নেতা সন্ময় বন্দ্যোপাধ্যায়কে বলে অভিযোগ বিরোধীদের। যে ঘটনায় গণতন্ত্রের কণ্ঠরোধ করা হয়েছে বলে দাবি করে শাসকের বিরুদ্ধে সুর চড়াতে শুরু করেছে রাজ্যের বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলো।

বাম থেকে কংগ্রেস, এমনকি বিজেপিও এই ঘটনায় তৃণমূলের বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়েছে। পাশাপাশি রাজ্যপালের কাছে গিয়েও এই ব্যাপারে নালিশ জানিয়ে এসেছেন কংগ্রেসের বিরোধী দলনেতা আব্দুল মান্নান। তবে বিশিষ্টজন থেকে শুরু করে বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলো, এই কংগ্রেস নেতা সন্ময় বন্দ্যোপাধ্যায়কে গ্রেপ্তারি নিয়ে শাসকদলের বিরুদ্ধে সোচ্চার হলেও সেই ব্যাপারে যে রাজ্য আরও কড়া পদক্ষেপ নিতে চলেছে, তা এবার স্পষ্ট করে দিলেন তৃণমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

সূত্রের খবর, এদিন শিলিগুড়িতে একটি প্রশাসনিক বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “সোশ্যাল মিডিয়ায় শালীনতা বজায় রেখে যে কেউ যে কোনো মতামত জানাতে পারেন। আমি স্বাধীন মতপ্রকাশের পক্ষে। কিন্তু এখন মতপ্রকাশের নামে মিথ্যা তথ্য পরিবেশন করা হচ্ছে। ঘৃণা ছড়ানো হচ্ছে। এর মাধ্যমে ব্যক্তিকে আক্রমণ করার পাশাপাশি সমাজকে কলুষিত করা হচ্ছে। আমি চাই এই ব্যাপারে পুলিশ আরও কড়া হোক। এইসব কুৎসার উৎস খুঁজে কঠোর ব্যবস্থা নিক।”

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে, মুখ্যমন্ত্রী এদিন এই কথা বলে পরোক্ষে কংগ্রেস নেতা সন্ময় বন্দোপাধ্যায়ের নাম না করেই তার বিরুদ্ধে যে পুলিশ আদাজল খেয়ে নামবে, সেই ইঙ্গিত দিয়ে দিলেন বলে মনে করছে একাংশ। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রীর এই কথা মত যদি পুলিশ এবার চলতে শুরু করে, তাহলে ব্যক্তিমত অনেকটাই ক্ষুন্ন হবে বলে দাবি সমালোচক মহলের একাংশের।

এদিকে এদিন মুখ্যমন্ত্রী যখন শিলিগুড়িতে বসে নাম না করে সোশ্যাল মিডিয়ায় কুৎসা ছড়ানোর অভিযোগ করছেন, ঠিক তখনই “সেভ ডেমোক্রেসি” নামে একটি সংগঠন রানুচ্ছায়া মঞ্চে সেই সন্ময় বন্দ্যোপাধ্যায়কে গ্রেফতারের ইস্যুতে একটি প্রতিবাদ সভা করে। যেখানে উপস্থিত ছিলেন বিধানসভার কংগ্রেসের বিরোধী দলনেতা আব্দুল মান্নান, বাম পরিষদীয় দলনেতা সুজন চক্রবর্তী, আইনজীবী বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্য সহ সমাজের বিশিষ্টজনেরা।

সেখানে উপস্থিত প্রত্যেকেই কংগ্রেস নেতাকে এইভাবে গ্রেপ্তার করা প্রসঙ্গে সরব হয়ে বলেন, “অন্যায়ের প্রতিবাদে সরব হলেই বিরুদ্ধবাদীদের শায়েস্তা করতে কেন্দ্রের বিজেপি এবং রাজ্যের তৃণমূল সরকার একই পথ বেছে নিয়েছে। সন্ময়বাবু একজন পরিচিত মুখ। তাঁর লেখালেখি বা সমালোচনায় যদি কারও সম্মান ক্ষুন্ন হয়, তাহলে মানহানির মামলা করা যেতে পারে। কিন্তু তার বদলে পুলিশকে লেলিয়ে দিয়ে হয়রানি করা অগণতান্ত্রিক ও ফ্যাসিস্ট আচরণ ছাড়া আর কিছুই নয়।”

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!