এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > শংকর চক্রবর্তী, বাচ্চু হাঁসদাদের সঙ্গে অর্পিতা ঘোষের রুদ্ধদ্বার বৈঠক, বিপ্লব মিত্রের অনুপস্থিতি নিয়ে জল্পনা চরমে

শংকর চক্রবর্তী, বাচ্চু হাঁসদাদের সঙ্গে অর্পিতা ঘোষের রুদ্ধদ্বার বৈঠক, বিপ্লব মিত্রের অনুপস্থিতি নিয়ে জল্পনা চরমে



আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে বালুরঘাট লোকসভা কেন্দ্র থেকে প্রার্থী হবে তা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা তৃণমূল সভাপতি বিপ্লব মিত্র অনুগামীদের সাথে এখানকার বর্তমান তৃণমূল প্রার্থী তথা সাংসদ অর্পিতা ঘোষের অনুগামীদের মধ্যে তীব্র টানাপোড়েন চলেছে।

তবে অবশেষে সমস্ত কিছু জল্পনাকে উড়িয়ে দিয়ে অর্পিতা ঘোষের নামই বালুরঘাট লোকসভা কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা করেন দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিকে অর্পিতা দেবীর নাম ঘোষণা হওয়ার পর বিপ্লব মিত্র অনুগামীদের মধ্যে তীব্র ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। সোশ্যাল মিডিয়ায় অর্পিতাদেবীর বিরুদ্ধে বিষোদগার করতেও দেখা যায় দলের একাংশকে।

খোদ দলনেত্রীর কাছে বালুরঘাট লোকসভা কেন্দ্রের প্রার্থী বদলের জন্য আবেদন জানান দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা তৃণমূল সভাপতি বিপ্লব মিত্র। আর এমতাবস্থায় যখন বালুরঘাট লোকসভা কেন্দ্রের প্রার্থী অর্পিতা ঘোষের সাথে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা তৃণমূল সভাপতি বিপ্লব মিত্রের অনুগামীদের মধ্যে তীব্র দ্বন্দ্ব চলছে, ঠিক সেইসময়ই শনিবার জেলায় ফিরে বোল্লা কালী মন্দিরে পুজো দিয়ে তপনের বিধায়ক তথা রাষ্ট্রমন্ত্রী বাচ্চু হাসদাকে সাথে নিয়ে সরাসরি দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা তৃণমূলের প্রাক্তন সভাপতি তথা বালুরঘাটের প্রাক্তন বিধায়ক এবং প্রাক্তন মন্ত্রী শঙ্কর চক্রবর্তীর বাড়িতে চলে আসেন অর্পিতা ঘোষ।

আর সেখানেই বেলা 11 টা থেকে দুপুর 2 টা পর্যন্ত একটি রুদ্ধদ্বার বৈঠক করেন তিনি। সূত্রের খবর, এদিন বালুরঘাট লোকসভা কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী অর্পিতা ঘোষের সাথে বাচ্চু হাসদার পাশাপাশি শংকর চক্রবর্তীর বাড়িতে এই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন গঙ্গারামপুরের প্রাক্তন বিধায়ক সত্যেন রায়, কুমারগঞ্জের বিধায়ক তোরাফ হোসেন মন্ডল, বালুরঘাট ব্লক তৃণমূল সভাপতি প্রবীর রায়, তপন ব্লক তৃণমূলের সভাপতি তাপস মন্ডল, বালুরঘাট টাউন তৃণমূলের সভাপতি সুভাষ চাকী সহ অন্যান্যরা।

তবে আশ্চর্যজনকভাবে জেলার প্রথম সারির নেতাদের নিয়ে এদিন শঙ্কর চক্রবর্তীর বাড়িতে বালুরঘাট লোকসভা কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী অর্পিতা ঘোষ বৈঠক করলেও এদিনের এই বৈঠকে কার্যত অনুপস্থিত দেখা গেল দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা তৃণমূলের সভাপতি বিপ্লব মিত্রকে। সূত্রের খবর, অর্পিতাদেবী এদিন শংকরবাবুর বাড়িতে জেলার অন্যান্য নেতাদের নিয়ে রুদ্ধদ্বার বৈঠক করলেও সেখানে ডাকই দেওয়া হয়নি বিপ্লববাবুকে।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

তৃণমূলের একাংশের অভিযোগ, জেলা তৃণমূল সভাপতিকে না জানিয়ে বিদায়ী সাংসদ তথা প্রার্থী যেভাবে একতরফাভাবে বিভিন্ন জায়গায় রুদ্ধদ্বার বৈঠক করছেন তাতে জেলা সভাপতির ক্ষিপ্ত হওয়াটাই স্বাভাবিক। আর অর্পিতা ঘোষের এই একতরফা নীতিতেই জেলায় ভরাডুবি হতে পারে বলে মনে করছেন শাসকদলের অনেকে। কিন্তু কেন বিপ্লব মিত্রকে বাদ দিয়ে এই রুদ্ধদ্বার বৈঠক করা হল?

এদিন এই প্রসঙ্গে বালুরঘাট লোকসভা কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী অর্পিতা ঘোষ বলেন, “বিপ্লবদার সঙ্গে পরে এই ব্যাপারে বিস্তারিত আলোচনা হবে। ভোটের রণকৌশল নিয়েই এদিন প্রাথমিক আলোচনা হয়েছে।” কিন্তু ঠিক কি কি বিষয় নিয়ে এদিনের এই বৈঠকে আলোচনা হল? সূত্রের খবর, নির্বাচনের আগে দলীয় গোষ্ঠীকোন্দলকে রুখে সকলকে নিয়ে যাতে সাথে একসাথে চলা যায় তার জন্য এলাকা ধরে ধরে এদিনের বৈঠকে বিস্তারিত পর্যালোচনা করেন জেলা তৃণমূলের নেতারা।

অন্যদিকে বালুরঘাট ব্লকে তৃণমূলের ভরাডুবি আটকাতে কাকে দায়িত্ব দেওয়া যায় তা নিয়েও বিস্তারিত আলোচনা হয়। এমনকি হিলিতে দলীয় সংগঠনকে চাঙ্গা করে সেখান থেকে যাতে বেশি পরিমাণে ভোট আসে সেই ব্যাপারেও অনেক নেতার নাম উঠে আসে এদিনের বৈঠকে বলে খবর।

সব মিলিয়ে এবার খোদ জেলা সভাপতি বিপ্লব মিত্রকে বাদ রেখেই বালুরঘাট লোকসভা কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী অর্পিতা ঘোষ জেলার অন্যান্য নেতাদের নিয়ে বালুরঘাটের প্রাক্তন বিধায়ক তথা দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার প্রাক্তন তৃণমূল সভাপতি শংকর চক্রবর্তীর বাড়িতে রুদ্ধদ্বার বৈঠক করা ঘিরে শুরু হয়েছে প্রবল জল্পনা।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!