এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > সংসদেও বাংলার গণতন্ত্র নিয়ে প্রশ্ন! সোচ্চার প্রধানমন্ত্রী! অস্বস্তি তৃণমূলের!

সংসদেও বাংলার গণতন্ত্র নিয়ে প্রশ্ন! সোচ্চার প্রধানমন্ত্রী! অস্বস্তি তৃণমূলের!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – 2021 এর বিধানসভা নির্বাচনের আগে বাংলা যে তাদের পাখির চোখ, ইতিমধ্যেই নিজেদের কর্মকাণ্ডের মধ্য দিয়ে বুঝিয়ে দিয়েছেন বিজেপির শীর্ষ কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। একাধিকবার রাজ্যে এসে প্রশাসনিক কর্মকাণ্ড থেকে শুরু করে রাজনৈতিক কর্মকান্ড করতে দেখা যাচ্ছে প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদী থেকে শুরু করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে। রবিবার রাজ্যে এসে হলদিয়া থেকে একাধিক উন্নয়নমূলক প্রকল্পের উদ্বোধন এবং শিলান্যাস করেন প্রধানমন্ত্রী।

যেখানে রাজনৈতিক সভাও করতে দেখা গেছে তাকে। আর এবার সোমবার রাজ্যসভায় রাষ্ট্রপতি ভাষণের উপর জবাবি বক্তব্য রাখতে গিয়ে বাংলার গণতন্ত্রের কথা বলতে দেখা গেল স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে। যার মধ্যে দিয়ে 2021 এর বিধানসভা নির্বাচনের আগে এবার সংসদেও তৃণমূল সাংসদদের চাপে রাখার চেষ্টা করলেন তিনি বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

সূত্রের খবর এদিন সংসদের বক্তব্য রাখেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। আর সেখানেই তৃণমূল সাংসদ ডেরেক ও’ব্রায়েনকে কড়া ভাষায় আক্রমণ করেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী বলেন, “তৃণমূল সাংসদ ডেরেক ও’ব্রায়েন বক্তব্য রাখছিলেন। বলছিলেন, বাক স্বাধীনতার কথা, গণতন্ত্র পদদলিত হওয়ার কথা। সুন্দর সুন্দর শব্দের ব্যবহার করছিলেন তিনি। আমি তো বুঝতেই পারছিলাম না, উনি দেশের কথা বলছেন, নাকি বাংলার কথা বলছেন।আসলে উনি রাজ্যে দিনভর এগুলো দেখতে পান। তাই হয়তো সেকথা এখানে বলে ফেলেছেন। বাংলার রাজনীতির জন্য কেন্দ্রীয় প্রকল্পের সুবিধা পাচ্ছেন না সেই রাজ্যের বাসিন্দারা।”

বিশ্লেষকরা বলছেন, বিজেপির পক্ষ থেকে এখন চেষ্টা করা হচ্ছে, বাংলার পরিস্থিতি সারা ভারতের সামনে তুলে ধরার। আর সেজন্য বাংলার গণতন্ত্র যে বিপন্ন, তা গোটা দেশের কাছে তুলে ধরতে চাইছে বিজেপির কেন্দ্রীয় স্তরের নেতারা। আর এবার সংসদে জবাবী ভাষণ দিতে গিয়ে কেন্দ্রের বিরোধিতায় সরব হওয়া তৃণমূল সাংসদ ডেরেক ও’ব্রায়েনকে রাজ্যের গণতন্ত্র নিয়ে প্রশ্ন তুলে দিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। যা বর্তমান সময় অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

এতদিন বিজেপির রাজ্যের নেতা তথা সাংসদরা সংসদে বক্তব্য রাখার সময় বাংলায় যে গণতান্ত্রিক পরিবেশ নেই, তার অভিযোগ করতেন। কিন্তু এবার সরাসরি রাজ্য থেকে ফিরে গিয়ে তৃণমূল সাংসদের মন্তব্যের পাল্টা মন্তব্য করতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদী বুঝিয়ে দিলেন, বাংলার অবস্থা অত্যন্ত শোচনীয়। স্বাভাবিকভাবেই বিধানসভা নির্বাচনের আগে প্রধানমন্ত্রীর এই মন্তব্যকে কেন্দ্র করে তৃণমূল বনাম বিজেপির রাজনৈতিক দ্বৈরথ যে আরও ব্যাপকভাবে বৃদ্ধি পাবে, তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

অনেকে বলছেন, এতদিন রাজ্যে আসলেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি থেকে শুরু করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ তৃণমূল সরকার এবং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে আক্রমণ করতেন। কিন্তু বিধানসভা নির্বাচনের সময় যত এগিয়ে আসছে, ততই বিজেপির শীর্ষস্তর থেকে একের পর এক আক্রমণ ধেয়ে আসছে তৃণমূল কংগ্রেসের দিকে‌। সেদিক থেকে বাংলা থেকে ফিরে যাওয়ার পরেই কেন্দ্রীয় প্রকল্পের পাশাপাশি বাংলায় গণতান্ত্রিক পরিবেশ নেই বলে তৃণমূল সাংসদকে আক্রমণ করলেন স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

অর্থাৎ প্রধানমন্ত্রীর এই মন্তব্য থেকে স্পষ্ট যে, তিনি বাংলার গণতান্ত্রিক পরিবেশ যে বিপন্ন, তা গোটা দেশের কাছে তুলে ধরতে চাইছেন। তাই বাংলার বিধানসভা নির্বাচনের আগে সংসদে সেকথা তুলে ধরে তৃণমূল সাংসদকে আক্রমণের মধ্য দিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বাধীন রাজ্যের তৃণমূল সরকারকে কার্যত প্রশ্নের বাণে বিদ্ধ করলেন নরেন্দ্র মোদী। সব মিলিয়ে প্রধানমন্ত্রীর এই মন্তব্যের পর এবার তৃণমূলের পক্ষ থেকে কোনো প্রতিক্রিয়া আসে কিনা, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!