এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > সম্প্রীতিই খুশি! অযোধ্যাতে শুধু রামমন্দির নয়, মসজিদ নির্মাণেও এগিয়ে এলেন বিশাল সংখ্যক হিন্দু

সম্প্রীতিই খুশি! অযোধ্যাতে শুধু রামমন্দির নয়, মসজিদ নির্মাণেও এগিয়ে এলেন বিশাল সংখ্যক হিন্দু



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – বিগত বেশ কয়েকদিন ধরেই জাতীয় রাজনীতিতে অযোধ্যা মন্দিরের নির্মাণ প্রকল্প নিয়ে চলছে তুমুল আলোচনা। ইতিমধ্যে অযোধ্যা মন্দিরের ভিত্তিপ্রস্তর এবং ভূমি পূজা সারা হয়ে গেছে। শুরু হয়ে গেছে, ট্রাষ্টের নজরদারীতে রামমন্দির নির্মাণ। কিন্তু প্রশ্ন উঠেছে, মসজিদ নির্মাণ কবে থেকে শুরু হবে? কারণ, সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ অনুযায়ী বিতর্কিত জমিতে রাম মন্দিরের পাশাপাশি মসজিদ তৈরি বাবদ সুন্নি সেন্ট্রাল ওয়াকফ বোর্ডকে যে 5 একর জমি দেওয়া হয়েছে, সেখানে এবার মসজিদ নির্মাণ শুরু হওয়ার কথা।

আর সেই সূত্রে মুসলিম সংগঠনের পক্ষ থেকে পদক্ষেপ গ্রহণ শুরু হয়েছে বলে জানা যাচ্ছে। এবং এই পদক্ষেপের মধ্য দিয়েই এবার সামনে আসছে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির বার্তা। মসজিদ নির্মাণকল্পে যে সাহায্য আসছে, তার মধ্যে 60 শতাংশ সাহায্যই হিন্দুদের করা বলে দাবি করছে মসজিদ নির্মাণ ট্রাস্ট। সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে অযোধ্যা শহরের বাইরে ধন্নিপুর নামক একটি গ্রামে মসজিদ নির্মাণের জন্য 5 একর জমি দেওয়া হয়েছে সুন্নি সেন্ট্রাল ওয়াকফ বোর্ডকে।

জানা গেছে, মসজিদ নির্মাণের জন্য ইতিমধ্যে 15 সদস্যের ইন্দো ইসলামিক কালচারাল ফাউন্ডেশন নামে একটি ট্রাস্ট গঠন করা হয়েছে। যারা মসজিদ নির্মাণটি সম্পূর্ণরূপে পরিচালনা করবেন বলে জানা গেছে। অন্যদিকে গত কয়েকদিন ধরেই কথা উঠেছে, উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ ট্রাস্টি বোর্ডে না থাকা সত্ত্বেও যেভাবে রাম মন্দিরের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনে উপস্থিত ছিলেন, ঠিক সেভাবেই তাঁকে মসজিদের উদ্বোধনে দেখা যাবে কিনা! যদিও এর উত্তরে যোগী আদিত্যনাথ জানিয়েছিলেন, তাঁকে মসজিদ কমিটির পক্ষ থেকে কোনো আমন্ত্রণ জানানো হবেনা।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

কিন্তু যোগী আদিত্যনাথের এই বার্তাকে ভুল প্রমাণ করে মসজিদ কমিটির তরফ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, মসজিদ উদ্বোধনে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ সহ একাধিক গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের আমন্ত্রণ জানানো হবে।মসজিদ কমিটির এই বার্তায় অবশ্য এখনো পর্যন্ত নরেন্দ্র মোদি কিংবা যোগী আদিত্যনাথ- কারোর কোনো প্রতিক্রিয়া জানা যায়নি। অন্যদিকে মসজিদ ট্রাস্টি বোর্ডের পক্ষ থেকে জানা গেছে, মসজিদ নির্মাণের জন্য ইতিমধ্যে দেশ-বিদেশ থেকে প্রচুর অর্থ সাহায্য আসছে।

এই কাজের জন্য ইতিমধ্যে দুটি ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খোলা হয়েছে লখনৌতে। মসজিদ নির্মাণ সংস্থার মুখপত্র আতহার হোসেন ইতিমধ্যেই জানিয়ে দিয়েছেন, যে বিপুল পরিমাণ অর্থ আসছে মসজিদ নির্মানকল্পে, তাতে মসজিদ নির্মাণ হয়েও যে বাকি অর্থ থাকবে তা দিয়ে পাশাপাশি একটি হাসপাতাল, একটি কমিউনিটি কিচেন এবং একটি শিক্ষাকেন্দ্র গড়ে তোলার পরিকল্পনা চলছে ওই পাঁচ একর জমিতে। যা নিয়ে ইতিমধ্যে কৌতুহল চরমে।

অন্যদিকে মসজিদ কমিটির এই হাসপাতাল, কমিউনিটি কিচেন এবং শিক্ষাকেন্দ্র গড়ে তোলার পরিকল্পনা নিয়ে ইতিমধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রশংসার বন্যা বয়ে গেছে। বিতর্কিত হওয়া সত্বেও অযোধ্যায় মন্দির, মসজিদ নির্মাণ পাশাপাশি সমান্তরালভাবে চলতে থাকুক এই ইচ্ছাই প্রকাশ করছেন বিশেষজ্ঞরা। আপাতত 5 একর জমিতে মসজিদ সহ অন্যান্য পরিকল্পনার রূপায়ণ কিভাবে হবে, এখন সেদিকেই কৌতূহলী নজর দেশবাসীর।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!