এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > শাসক দলে শুদ্ধিকরণ- চাকরির নামে লক্ষ লক্ষ টাকা প্রতারণার অভিযোগ ওঠায় যুব সভাপতিকে অপসারণ, শুরু তদন্তও

শাসক দলে শুদ্ধিকরণ- চাকরির নামে লক্ষ লক্ষ টাকা প্রতারণার অভিযোগ ওঠায় যুব সভাপতিকে অপসারণ, শুরু তদন্তও



লোকসভা নির্বাচনের আগে দলের স্বচ্ছ ভাবমূর্তি যেন বজায় থাকে সেই ব্যাপারে বারে বারেই দলীয় নেতাদের পরামর্শ দিয়েছেন তৃনমূল সুপ্রিমো তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু তারপরও দলের শীর্ষ নেতৃত্বের নির্দেশ অমান্য করেছেন অনেকেই। কিন্তু এবারে সেই নির্দেশ ভঙ্গকারী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নিল শাসকদল।

সূত্রের খবর, লক্ষ লক্ষ টাকা নিয়ে চাকরি দেওয়ার নাম করে প্রতারণার অভিযোগে বাগদা ব্লকের যুব তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হল হিবজুল রহমান মণ্ডলকে। যার জায়গায় নতুন ব্লক সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব দেওয়া হলেও সেই বাগদা পঞ্চায়েত সমিতির প্রাক্তন পূর্ত কর্মাধ্যক্ষ প্রতিমা রায়কে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গত নভেম্বর মাসে এই বাগদা ব্লক যুব তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি হিবজুল রহমান মন্ডলের বিরুদ্ধে লক্ষ লক্ষ টাকা প্রতারণার অভিযোগে বাগদা থানায় মোট ছয়টি অভিযোগ দায়ের হয়। অভিযোগ, কখনও জনসাস্থ্য কারিগরি, কখনো কৃষি দফতর, কখনো প্রাথমিক শিক্ষক শিক্ষিকা, কখনো অঙ্গনারী পদে চাকরি দেওয়ার নাম করে প্রতিশ্রুতি দিয়ে সাধারণ মানুষের কাছ থেকে 12 লক্ষ টাকার বেশি প্রতারণা করেছেন এই যুব তৃণমূল নেতা।

আর দলীয় নেতার বিরুদ্ধে এইভাবে থানায় অভিযোগ দায়ের হতেই প্রবল অস্বস্তিতে পড়ে শাসক দল। বিষয়টি যাতে বেশি দূর না এগোয় সেই জন্য জেলা নেতৃত্বের তরফে একটি আলোচনাও করা হয়। আর এরপরই সেই হিবজুল রহমান মণ্ডলকে ব্লক যুব তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি পদ থেকে সরিয়ে দেন উত্তর 24 পরগনা জেলা যুব তৃণমূলের সভাপতি পার্থ ভৌমিক।

তার জায়গায় নতুন সভাপতি পদে তিনি নিয়োগপত্র তুলে দেন প্রতিমা রায়ের হাতে। এদিন এই প্রসঙ্গে উত্তর 24 পরগনা জেলা যুব তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি পার্থ ভৌমিক বলেন, “আমাদের সংগঠনের বাগদা ব্লকের সভাপতির বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ উঠেছে। বিষয়টির তদন্ত চলছে। তাই আমরা তাকে তার পদ থেকে সরিয়ে দিয়েছি।”

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

 

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

তবে একাংশের মতে, এই বাগদায় তৃণমূল কংগ্রেসের প্রবল গোষ্ঠী কোন্দল রয়েছে। যার জেরে গত 2016 র বিধানসভায় এখানে পরাজিত হতে হয়েছিল শাসক দলের প্রার্থী উপেন বিশ্বাসকে। আর তাই দলের তরফে এই যুব তৃণমূল নেতাকে ফাঁসিয়ে দেওয়া, নাকি সত্যি সত্যিই তিনি দুর্নীতিতে জড়িত তা নিয়ে ধন্দেও রয়েছেন অনেকে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!