এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > উত্তরবঙ্গে শাসকদলের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ, বড়সড় আন্দোলনে বিজেপি!

উত্তরবঙ্গে শাসকদলের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ, বড়সড় আন্দোলনে বিজেপি!



বিভিন্ন সময়ে তৃণমূলের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ তুলে সরব হতে দেখা যায় ভারতীয় জনতা পার্টির নেতাদের। লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি কিছুটা ভালো ফল করার পর, বিজেপি নেতাদের তরফ থেকে তৃণমূলকে আরও কোণঠাসা করার প্রক্রিয়া হিসেবে এই দুর্নীতিকে অস্ত্র হিসেবে বেছে নিয়ে তৃণমূলকে লাগাতার আক্রমণ করতে শুরু করেন বিজেপি নেতারা। যা তৃণমূলকে কিছুটা হলেও অস্বস্তিতে ফেলে। আর এবার পৌরসভা নির্বাচনের আগে পঞ্চায়েত নিয়ে দুর্নীতিতে বিদ্ধ হতে হল রাজ্যের ঘাসফুল শিবিরকে।

সূত্রের খবর, এবার রায়গঞ্জ তৃণমূল কংগ্রেস পরিচালিত পঞ্চায়েত সমিতির বিরুদ্ধে ব্যাপক অনিয়ম, দুর্নীতি এবং স্বজনপোষণের অভিযোগ এনে আন্দোলন শুরু করল ভারতীয় জনতা পার্টি। জানা যায়, শুক্রবার রায়গঞ্জের বিডিও অফিস চত্বরে বিজেপির তরফে এই আন্দোলন করা হয়। যেখানে উপস্থিত ছিলেন, উত্তর দিনাজপুর জেলা বিজেপির সভাপতি বিশ্বজিত লাহিড়ী সহ প্রচুর বিজেপি নেতা কর্মী।

এদিন বিজেপির তরফে বিডিওর কাছে 14 দফা দাবিতে স্মারকলিপি জমা দেওয়ার কর্মসূচি থাকলেও, গেটে পৌছতেই পুলিশ বিজেপিকে আটকে দেয়। আর এর পরেই শুরু হয় ধস্তাধস্তি। পরিস্থিতি এমন জায়গায় পৌঁছে যায় যে, বলপূর্বক গেট খুলে বিডিও অফিসের ভিতরে ঢুকে বিজেপির প্রতিনিধিদল স্মারকলিপি জমা দিতে যান।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

কিন্তু সেই সময় বিডিও তার ঘরে না থাকায়, ঘরের সামনেই বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন বিজেপির নেতা কর্মীরা। পরবর্তীতে জয়েন্ট বিডিও বিজেপির স্মারকলিপি জমা নিলে পরিস্থিতি কিছুটা হলেও শান্ত হয়। আর পৌরসভা নির্বাচনের আগে পঞ্চায়েত সমিতিতে তৃণমূলের দুর্নীতি এবং স্বজনপোষণের বিরুদ্ধে বিডিওর কাছে একগুচ্ছ দাবিদাওয়ায় বিজেপির কাছে তৃণমূল যে অনেকটাই চাপে পড়ল, সেই ব্যাপারে নিশ্চিত বিশ্লেষকেরা। কিন্তু কেন তারা এই ডেপুটেশন দিলেন!

এদিন এই প্রসঙ্গে উত্তর দিনাজপুর জেলা বিজেপির সভাপতি বিশ্বজিত লাহিড়ী বলেন, “অবিলম্বে প্রশাসন অনিয়ম-দুর্নীতি স্বজনপোষণ বন্ধ করে সরকারি নিয়ম মেনে বাসিন্দাদের পরিষেবা না দিলে দলের তরফে অনির্দিষ্টকালের জন্য বিডিও অফিস ঘেরাও করা হবে। বিজেপির নির্বাচিত প্রতিনিধিদের না ডেকেই টেন্ডার প্রক্রিয়া চালানো হচ্ছে। এই অবস্থার দ্রুত পরিবর্তন না হলে, আমরা আগামীতে বৃহত্তর আন্দোলন করব।”

রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা বলছেন, উত্তর দিনাজপুর জেলায় গত লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি ভালো ফল করলেও, সদ্য অনুষ্ঠিত কালিয়াগঞ্জ বিধানসভা উপনির্বাচনে বিজেপিকে হারিয়ে জয়লাভ করেছে তৃণমূল কংগ্রেস। তাই সেদিক থেকে বিজেপি কিছুটা হলেও চাপে পড়ে গিয়েছিল। কিন্তু এবার পৌরসভা নির্বাচনের আগে রায়গঞ্জ পঞ্চায়েত সমিতিতে তৃণমূলের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ এনে বিজেপি নেতারা যেভাবে বিক্ষোভ দেখালেন, তা নিঃসন্দেহে তৃণমূলের নেতাদের ঘুমকেই উড়িয়ে দিল বলে দাবি রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের। এখন গোটা পরিস্থিতি কোথায় গিয়ে মোড় নেয়! সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!