এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > তৃণমূল > রানাঘাটের সভা থেকে বিজেপিকে তীব্র কটাক্ষ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের

রানাঘাটের সভা থেকে বিজেপিকে তীব্র কটাক্ষ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – আজ মতুয়া অধ্যুষিত রানাঘাটে সভা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রানাঘাটের হাবিবপুরের ছাতিমতলা ময়দানে সভা করলেন মুখ্যমন্ত্রী। সভামঞ্চ থেকে প্রবল আক্রমণ করলেন তিনি রাজ্যের প্রধান বিরোধী দল বিজেপিকে। বিজেপিকে তীব্র কটাক্ষ করে তিনি জানালেন যে, মানুষ খুন করে গায়ে কালি মাখে বিজেপি। আগে বিজেপি নোট বন্দি করেছে, এবার জেল বন্দি করতে চলেছে। জনগণের উদ্দেশ্যে তিনি জানালেন যে, পরাজিত হয়েও বিজেপি ট্রাম্পের মতো বলবে যে, তারাই জয়লাভ করেছে।

মুখ্যমন্ত্রী জানালেন যে, বিজেপি তাঁকে ভয় পায়। কারণ তিনি মাথা বিক্রি করেন না। তিনি মরে যাবেন বন্ধুকের সামনে দাঁড়িয়ে মাথা দেবেন, তবু বাংলাকে বিক্রি করতে দেবেন না, বাংলার মানুষকে বিক্রি করতে দেবেন না। বিজেপির প্রতি তিনি কটাক্ষ করে জানালেন যে, বিজেপি থাকলে আবার ছিয়াত্তরের মন্বন্তর দেখা দেবে। এ কারণেই কৃষকদের আন্দোলনকে সমর্থন করেছেন তাঁরা। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের জানালেন যে, ভোটের সময় অনেকে বাইরে থেকে এসে টাকা দেবেন। বাইরে থেকে এসে অনেকে কুৎসা রটাবেন।

তাদের মধ্যে কেউ কেউ আবার বাংলাও জানেন। এরপর জনগণের উদ্দেশ্যে তিনি জানালেন যে, ৫০০০ টাকা দিয়ে বিজেপি ভোট কিনবে। তবে টাকা দিলে সে টাকা নিয়ে নিতে। কারণ তা জনগণের টাকা। বিজেপির সোনার বাংলাকেও কটাক্ষ করলেন মুখ্যমন্ত্রী। মুখ্যমন্ত্রী জানালেন, উদ্বাস্তুদের নিয়ে এতদিন কেউই কিছু করেনি। তিনি জানালেন উদ্বাস্তু কলোনিকে রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে জমির দলিল দেয়া হবে। যে যেমনভাবে যেখানে বাস করছেন, সেভাবেই তাকে পাট্টা দেয়া হবে। ৯৬ টি কলোনি ইতিমধ্যেই পাট্টা পেয়েছে। নদিয়ায় ৫০০০ ডিড দেয়া হবে বলে জানালেন মুখ্যমন্ত্রী।


ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

মুখ্যমন্ত্রী জানালেন, তাঁরা সর্বত্র যান, কিন্তু যাওয়া নিয়ে নাটক করেন না। যে অবস্থায় আছেন, সেই অবস্থাতেই চলে যান তাঁরা। ধুলো অবস্থাতেই চলে যান। কিন্তু বিজেপির নেতারা সেজেগুজে একেবারে ফাইভ স্টার হোটেলের খাবার নিয়ে যায়। একটা হিমালয়ান জলের বোতলের দাম অনেক বেশি, কিন্তু তিনি যে জল খান তা হল ‘প্রানধারা’র জল। যার দাম মাত্র ৬ টাকা। তিনি জানালেন, তাঁদের রাস্তার ধুলোয় নামতে হয়। কিন্তু বিজেপি নেতাদের গায়ে রাস্তার ধুলো লাগেনা।

তিনি জানালেন, বিজেপি মিথ্যে কথা বলে। বিজেপিকে মিথ্যে কথার অমাবস্যা বলে কটাক্ষ করলেন তিনি। মুখ্যমন্ত্রী জানালেন, তাঁরা সকলকেই ভালোবাসেন। মতুয়া সম্প্রদায়ের জন্য বোর্ড তৈরি করা হয়েছে। সেখানে ১০ কোটি টাকা দেয়া হয়েছে। নমঃশূদ্র, রাজবংশী, কামতাপুরীদের জন্যও বোর্ড তৈরি করা হয়েছে। সাঁওতালিভাষী, হিন্দিভাষীদের জন্যও বোর্ড তৈরি করা হয়েছে। তিনি জানালেন, তৃণমূলে থাকলে কালো, আর বিজেপিতে গেলেই ভালো। তৃণমূলে গেলে ঘষটা সাবান, আর বিজেপিতে গেলে সানরাইজ ওয়াশিং পাউডার বলে? বলে কটাক্ষ করলেন তিনি।

বিজেপিকে তীব্র কটাক্ষ করে তিনি জানালেন যে, মিথ্যে কথা বলার কোন জুড়ি নেই বিজেপির। ভোট এলেই চাকরি দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেয় সবাইকে। নাগরিকত্ব দেয়ারও প্রতিশ্রুতি দেয়। আর ভোট চলে গেলেই ডুগডুগি বাজায়। আয়ুষ্মান প্রকল্পতে ৪০% টাকা দিতে হয়। কিন্তু রাজ্যের প্রকল্প কোন টাকা দিতে হয় না। জনগণের উদ্দেশ্যে তিনি জানালেন যে, জনগণই বিচার করবে কোনটি ভালো। মুখ্যমন্ত্রী জানান যে, কোন নার্সিংহোম যদি স্বাস্থ্যসাথী প্রকল্প গ্রহণ করতে আপত্তি করে, তবে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!