এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর দিল্লী সফরে গিয়ে তৈরী করলেন নতুন বিতর্ক, ক্ষোভে ফুঁসছে রাজ্য সরকার

রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর দিল্লী সফরে গিয়ে তৈরী করলেন নতুন বিতর্ক, ক্ষোভে ফুঁসছে রাজ্য সরকার



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্টরাজ্যপাল জগদীপ ধনকর এই মুহূর্তে দিল্লিতে। 3 দিন ব্যাপী দিল্লী ভ্রমণের তিনি একের পর এক বৈঠক করে চলেছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীদের সঙ্গে। খুব স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন উঠছে রাজ্যপাল কি রাজ্যে 356 ধারা জারি নিয়ে কোনো পরিকল্পনা রূপায়ণ করছেন? বিগত বেশ কিছুদিন ধরে রাজ্যের বিরোধী দল বিজেপি ক্রমাগত রাজনৈতিক হিংসার অভিযোগ জানিয়ে আসছে তৃণমূলের বিরুদ্ধে।

একইভাবে রাজ্যপাল জগদীপ ধনকরও রাজনৈতিক হিংসা এবং আইন-শৃঙ্খলার অবনতি নিয়ে ক্রমাগত বিঁধেছেন তৃণমূল সরকার বিশেষ করে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। কিন্তু আজকে রাজ্যপালের পদক্ষেপ রাজ্য জুড়ে তৈরী করেছে নতুন বিতর্ক। আর তার জেরেই ক্ষোভের প্রকাশ রাজ্য সরকারের।

যেভাবে রাজ্যপাল আজকে জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যানের বাড়িতে পৌঁছেছেন, তা নিয়ে রীতিমতো গর্জে উঠেছে রাজ্য সরকার। এবং রাজ্যপালের এই পদক্ষেপের জেরে ইতিমধ্যেই তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে রাজ্যপাল জগদীপ ধনকরকে সরিয়ে দেওয়ার দাবি তোলা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের সঙ্গে দেখা করেছেন জগদীপ ধনকর। পাশাপাশি তিনি লোকসভার স্পিকার ওম বিড়লার সঙ্গেও দেখা করেন। সন্ধ্যেবেলায় কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সঙ্গে তিনি বৈঠকে বসেন। স্বাভাবিকভাবেই রাজ্যপালের পুরো দিনলিপি রাজনৈতিক বিতর্ক তৈরীর জন্য যথেষ্ট বলেই মনে করা হচ্ছে। রাজ্যপালের সঙ্গে বরাবরই রাজ্য সরকারের বিরোধিতার সম্পর্ক।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

বিভিন্ন সময় তিনি রাজ্য সরকারের বিরোধিতা করে কেন্দ্রীয় সরকারকে রিপোর্ট পাঠিয়েছেন। সামাজিক মাধ্যম থেকে শুরু করে সংবাদমাধ্যম প্রতিটি জায়গায় তিনি রাজ্য সরকারের সমালোচনা চালিয়েছেন। কিছুদিন আগেই বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীর সঙ্গে বৈঠকে বসেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর এবং পরবর্তীতে বিরোধী দলনেতাকে পাশে নিয়ে তিনি সাংবাদিক বৈঠক করেন। যা নিয়েও রাজনৈতিক বিতর্ক তৈরি হয়েছে। অন্যদিকে রাজ্যপাল গতকাল কেন্দ্রীয় মন্ত্রী প্রহ্লাদ যোশী এবং প্রহ্লাদ সিংহ প্যাটেলের সঙ্গেও দেখা করেছেন। জানা গিয়েছে, প্রহ্লাদ যোশীর সঙ্গে দেখা করে তিনি কয়লা পাচারসহ একাধিক বিষয়ে নালিশ জানান রাজ্যের বিরুদ্ধে।

অন্যদিকে প্রহ্লাদ সিং প্যাটেল কেন্দ্রীয় সংস্কৃতি ও পর্যটনমন্ত্রী। তাঁর সঙ্গে বাংলার পর্যটন কেন্দ্রগুলি নিয়ে আলোচনা করেছেন রাজ্যপাল। এবং তারপরে তিনি জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান প্রাক্তন বিচারপতি অরুণ কুমার মিশ্রের বাড়ি গিয়েছেন। খুব স্বাভাবিকভাবেই প্রতিটি ঘটনার সঙ্গে রাজনৈতিক যোগ খোঁজার চেষ্টা চলছে। এর পাশাপাশি রাজ্যপালের দিল্লি সফর রাজ্য সরকারের সঙ্গে তাঁর বিরোধিতা চরমে তুলল বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। আগামীকাল রাজ্যে ফিরতে চলেছেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর। এরপর রাজ্য রাজনীতিতে নতুন মোড় আসে কিনা, সেদিকেই লক্ষ্য এখন ওয়াকিবহাল মহলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!