এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > বিজেপি > রাজ্যভাগে সায় না দিয়েও, বাংলার অবস্থা নিয়ে বিস্ফোরক বক্তব্য বিজেপির রাজ্য সভাপতির

রাজ্যভাগে সায় না দিয়েও, বাংলার অবস্থা নিয়ে বিস্ফোরক বক্তব্য বিজেপির রাজ্য সভাপতির



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – রাজ্যভাগে তাঁর মত নেই, কিন্তু রাজ্যের সাম্প্রতিক পরিস্থিতি নিয়ে তৃণমূল সরকারের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক বক্তব্য রাখলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। সম্প্রতি উত্তরবঙ্গকে আলাদা রাজ্য বা কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল করার দাবি তুলেছেন আলিপুরদুয়ারের বিজেপি সাংসদ জন বার্লা। এ প্রসঙ্গে তিনি জানিয়েছেন যে, ২ রা মের পর থেকে যে সন্ত্রাস শুরু হয়েছে, তারপর এখান থেকে আওয়াজ উঠেছে যে, উত্তরবঙ্গকে আলাদা করা হলে, মানুষ সুরক্ষিত থাকবেন। এ প্রসঙ্গে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ গতকাল জানিয়েছিলেন যে, দল তাঁর এই দাবিকে সমর্থন করে না। কিন্তু রাজ্য সরকারের উপর আস্থা হারিয়ে ফেলছে মানুষ। এ কারণে হতাশ হয়ে এমন ধরনের মন্তব্য করা হচ্ছে। আজ এ প্রসঙ্গে বিস্ফোরক বক্তব্য রেখেছেন তিনি।

রাজ্যের সাম্প্রতিক আইনশৃঙ্খলার পরিস্থিতি নিয়ে আজ বিস্ফোরক অভিযোগ করেছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। এ প্রসঙ্গে তিনি জানিয়েছেন যে, কাশ্মীরের থেকেও খারাপ অবস্থা তৈরি হয়েছে বাংলায়। বাংলাদেশের মতো অবস্থা হয়ে যাচ্ছে। বাংলাকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আফগান, সিরিয়ার মতো বানিয়ে দিয়েছেন। বাংলার মানুষ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারের ওপর আস্থা হারাচ্ছেন। হতাশ হয়ে মানুষ আজ রাজ্য ভাগের দাবি নিয়ে কথা বলছেন। কিন্তু, বিজেপি বাংলাকে সোনার বাংলা রূপে গড়তে চায়।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ জানালেন যে, বাংলাতে সিএএ আইন কার্যকর করতে দেয়া হয় না। এই আইনের প্রতিবাদ জানিয়ে স্টেশনে আগুন ধরানো হয়। কিন্তু দেশদ্রোহিতার মামলা করা হয় না। দেশদ্রোহীদের আশ্রয় দেয়া হয় পশ্চিমবঙ্গে। তিনি অভিযোগ করেছেন যে, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার এই সবকিছুতে মদত দিচ্ছে। তিনি মনে করছেন, বাংলাতে রাষ্ট্রপতি শাসন জারি করা হলেই বাংলার আইনশৃঙ্খলা ঠিক হবে। বাংলায় শান্তি ফিরে আসবে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার শান্তি ফেরাতে কোন উদ্যোগই নিচ্ছে না। ভোট পরবর্তী হিংসা দিন দিন বেড়েই চলেছে।

অন্যদিকে, আজ দার্জিলিংয়ের বিজেপি সাংসদ রাজু বিস্ত জানিয়েছেন যে, জন বার্লা হলেন তাঁর বন্ধু। তিনি একজন দায়িত্ববান নেতা। তিনি যা বলেছেন, তার উত্তর তিনিই দেবেন। তবে তিনি এটুকুই বলতে পারেন যে, বাস্তবে উত্তরবঙ্গ দীর্ঘদিন ধরে উপেক্ষিত রয়েছে। দীর্ঘ ৪৫ বছর ধরে উত্তরবঙ্গে শুধু লুটপাট করা হয়েছে। এখানকার চা বাগান আজ বন্ধ হয়ে পড়ে আছে। উত্তরবঙ্গকে আলাদা রাজ্য করা হবে কিনা? সেটা এখন বলার সময় নয়, তবে উপযুক্ত জায়গা পেলে উত্তরবঙ্গের অধিকার নিয়ে তিনিও সরব হবেন।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!