এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > ” রাজ্যে সব শূন্য পদ পূরণ করতে হবে। কৃষিতে বিনিয়োগ ও কর্মসংস্থান বাড়াতে হবে।” – দাবি সূর্যকান্ত মিশ্রের

” রাজ্যে সব শূন্য পদ পূরণ করতে হবে। কৃষিতে বিনিয়োগ ও কর্মসংস্থান বাড়াতে হবে।” – দাবি সূর্যকান্ত মিশ্রের



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – আজ বামেদের ব্রিগেড সমাবেশে বক্তব্য রাখলেন সিপিএমের রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্র। ব্রিগেড সমাবেশ থেকে তিনি জানালেন যে, বিকল্প নিয়ে মানুষের কাছে যেতে হবে। তিনি আক্ষেপ করলেন, রাজ্যের কৃষক,শ্রমিক, ছাত্র,যুবক আক্রান্ত হচ্ছেন। মানুষের মধ্যে বিভাজন তৈরী করার চেষ্টা করা হচ্ছে। কিন্তু তাঁদের লড়াই হল খেটে খাওয়া মানুষের লড়াই। তিনি জানান, তাঁরা কাজ চান, বিকল্প চান। রাজ্যের সমস্ত শূন্যপদ পূরণ করার দাবি জানালেন তিনি। সেইসাথে কৃষিতে বিনিয়োগ ও কর্মসংস্থান বৃদ্ধির দাবি জানালেন।

সূর্যকান্ত মিশ্র জানলেন যে, তৃণমূল বা বিজেপি নয়, বিকল্প হতে পারে একমাত্র বামপন্থীরাই। দলের কর্মীদের প্রতি তিনি জানালেন যে, তৃণমূল ও বিজেপি নিজেদের মধ্যে বলাবলি করছে, এ বলছে আমাকে দেখ, ও বলছে আমাকে দেখ। তবে, এর মধ্যে তাঁদের যাওয়ার কোনো প্রয়োজন নেই। এদের বিকল্প হিসেবেই মানুষের কাছে যেতে হবে বাম কর্মীদের।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

সূর্যকান্ত মিশ্র জানালেন যে, পশ্চিমবঙ্গের ৭১ ভাগ মানুষ হল শ্রমিক, খেটে খাওয়া শ্রমিক ও কৃষক। সামাজিক, অর্থনৈতিক বৈষম্য ও ভাগাভাগির রাজনীতির বিরুদ্ধে লড়াইয়ে নামতে হবে। তাঁরা একটা বিকল্প চান। তাঁরা কাজ চান, বেকারের দাবি নিয়ে লড়াই করতে চান তাঁরা। তিনি জানালেন পশ্চিমবঙ্গে যত শূন্যপদ আছে, তা যাতে এক বছরের মধ্যে পূরন করে ফেলা যায় সেরকম একটা বিকল্প রাজ্যে প্রয়োজন।

তিনি জানান, কৃষিতে বিনিয়োগ বৃদ্ধি করা প্রয়োজন। কর্মসংস্থান তৈরি করতে হবে। ১০০ দিনের কাজকে নিয়ে যেতে হবে ২০০ দিনের কাজে। মানুষকে দিতে হবে খাদ্য নিরাপত্তা। এরপর তৃণমূল ও বিজেপিকে একযোগে কটাক্ষ করলেন সূর্যকান্ত মিশ্র। তিনি জানালেন পশ্চিমবঙ্গের কৃষক, শ্রমিক, মেহেনতি ও অন্যান্য অনগ্রসর মানুষেরা বারবার আক্রান্ত হচ্ছেন, শোষিত হচ্ছেন, লাঞ্ছিত হচ্ছেন, বঞ্চিত হচ্ছেন। তৃণমূল ও বিজেপি নিজেদের মধ্যে তরজাতে ব্যস্ত আছে। তৃণমূল ও বিজেপিকে তরজা গানের পার্টি বলে কটাক্ষ করলেন তিনি। যাদের উদ্দেশ্যই হলো মানুষকে ভাগ করা আর শাসন করা।

মানুষের সম্মতিকে ভিত্তি করে রাজ্যে বড় শিল্প গড়ার কথা জানালেন তিনি। তিনি জানান, মানুষের কাছে বাম কর্মীদের যেতে হবে। মানুষের কথা তাদের শুনতে হবে। যদি কেউ সমালোচনা করে, তবে তা মাথা পেতে নিতে হবে। তিনি জানান, এ লড়াই শুধু ব্রিগেডের লড়াই নয়, এ লড়াই হলো প্রত্যেক ঘরের লড়াই। তিনি জানালেন মুখ্যমন্ত্রী দিদিকে বলো শুরু করেছিলেন, এমন বলেছেন যে, গোটা দলটাই বিজেপি হয়ে গেছে। তিনি জানালেন মানুষের কাছে গিয়ে, মানুষের জন্য দাঁড়ানো প্রয়োজন, আসন ভাগাভাগি শেষ কথা নয়।

 

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!