এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > রাজ্যে হিংসা ঠেকাতে রাজ্য প্রশাসন আধিকারিকদের উপ নির্বাচন কমিশনারের পরামর্শ, জেনে নিন

রাজ্যে হিংসা ঠেকাতে রাজ্য প্রশাসন আধিকারিকদের উপ নির্বাচন কমিশনারের পরামর্শ, জেনে নিন



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – নির্বাচন এগিয়ে আসার সাথে সাথেই রাজ্যজুড়ে শুরু হয়েছে প্রবল রাজনৈতিক সংঘাত। আগে থেকেই নির্বাচন কমিশন রাজ্য প্রশাসনকে নির্দেশ দিয়েছিল রাজ্যজুড়ে হিংসা বন্ধ করার জন্য। কিন্তু নির্বাচন কমিশন এবং প্রশাসনের কড়া নজরকে উড়িয়ে দিয়ে জায়গায় জায়গায় চলছে রাজনৈতিক হিংসার ধারাপাত। জানা গেছে, সদ্যই রাজ্যের মন্ত্রীর ওপর বোমা হামলার ঘটনায় আরও বেশি উদ্বিগ্ন নির্বাচন কমিশন। এই সব কিছু নিয়েই বৃহস্পতিবার ভিডিও কনফারেন্স করলেন জেলা প্রশাসনের সঙ্গে উপ নির্বাচন কমিশনার সুদীপ জৈন। তিনি নির্দেশ দিয়েছেন যেকোনো মূল্যে পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা নির্বাচন শান্তিপূর্ণভাবে করতে হবে।

এবং তা করতে গিয়ে প্রশাসনকে যে কোনো ব্যবস্থা নেওয়ার আদেশ দিয়েছেন উপ নির্বাচন কমিশনার। সূত্রের খবর, এই মুহূর্তে রাজ্যের প্রায় সাড়ে 6 হাজার বুথ অতি স্পর্শকাতর তালিকায় জায়গা পেয়েছে। আগামী দিনে অন্যান্য যেসব রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচন, সেখানে কিন্তু এই পরিস্থিতি নেই। ফলে এখন থেকেই নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে পরিস্থিতি আয়ত্তে আনার চেষ্টা চালানো হচ্ছে, কড়া নজর দেওয়া হচ্ছে সর্বত্র। জেলা প্রশাসনের আধিকারিকদের উপ নির্বাচন কমিশনার জানিয়ে দিয়েছেন, প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য যাবতীয় পদক্ষেপ নেওয়ার। রাজনৈতিক চাপ আসলে আধিকারিকদের নির্বাচন কমিশনে জানানোর কথা বলা হয়েছে।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

পাশাপাশি প্রত্যেকের নাম যে গোপন রাখা হবে তাও উপ নির্বাচন কমিশনার জানিয়েছেন। রাজ্য মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিক দপ্তর থেকে জানা গিয়েছে, উপ নির্বাচন কমিশনার আধা সামরিক বাহিনীকে কাজে লাগানোর নির্দেশ দিয়েছে। জানা গিয়েছে, অতি স্পর্শকাতর ও স্পর্শকাতর এলাকাগুলোতে নিয়মিত কেন্দ্রীয় বাহিনীর টহল চলবে। পাশাপাশি জানা গেছে, আগামী সপ্তাহেই পরিস্থিতি খতিয়ে দেখার জন্য রাজ্যে আসতে চলেছেন উপ নির্বাচন কমিশনার সুদীপ জৈন স্বয়ং। প্রতিটি জেলার সার্বিক প্রস্তুতি সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য যাচাই করছে উপ নির্বাচন কমিশনার। তবে জানা গিয়েছে, কয়েকটি বুথ সংক্রান্ত কিছু সমস্যা থাকলেও রাজ্যের ভোট প্রস্তুতিতে আপাতত খুশি নির্বাচন কমিশন।

কিন্তু আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি যথারীতি সমস্যার উদ্রেক করছে। আর এই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে কমিশন চাইছে। রাজ্যে ইতিমধ্যেই 125 কোম্পানি বাহিনী পৌঁছে গিয়েছে, তাঁদেরকে কিভাবে ব্যবহার করা হবে জেলা প্রশাসনগুলিকে উপ নির্বাচন কমিশনার নির্দেশ দিয়েছেন বলে জানা গিয়েছে। পাশাপাশি ব্লক, গ্রাম পঞ্চায়েত এবং প্রত্যেক ভোটারের বাড়ি গিয়ে প্রশাসনিক আধিকারিকদের নম্বর পৌঁছে দিয়ে আসার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। সবমিলিয়ে বোঝাই যাচ্ছে বাংলার বিধানসভা নির্বাচন নিয়ে ইতিমধ্যেই উত্তেজনার পারদ চড়ছে। হয়তো আজকেই জানা যাবে নির্বাচনের দিনক্ষণ। আর তারপরেই শুরু হয়ে যাবে বাংলার রাজনৈতিক দলগুলির লাস্ট টাইম রিভিশন।

 

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!