এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > রাজ্যে গেরুয়া শিবিরের বেহাল অবস্থা সামাল দিতে রাজ্য থেকে পরপর তলব নেতাদের কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের, জল্পনা রাষ্ট্রপতি শাসন নিয়েও

রাজ্যে গেরুয়া শিবিরের বেহাল অবস্থা সামাল দিতে রাজ্য থেকে পরপর তলব নেতাদের কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের, জল্পনা রাষ্ট্রপতি শাসন নিয়েও



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – বিজেপির এ রাজ্যে ভোটে পরাজয়ের পর গেরুয়া শিবিরের ব্যাপক অন্তর্কলহ এবং অন্তর্দ্বন্দ্ব প্রকাশ্যে এসেছে। পাশাপাশি দলে ভাঙনের গুঞ্জন ক্রমশ জোরালো হচ্ছে। এই অবস্থায় দিল্লি থেকে ডেকে পাঠানো হয়েছে বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীকে। খুব স্বাভাবিকভাবেই রাজ্যজুড়ে রাষ্ট্রপতি শাসন জারি নিয়ে ইতিমধ্যেই শুরু হয়েছে বিতর্ক। তাই এবার রাজ্য বিজেপির আরো তিন সাংসদকে ডেকে পাঠানো হলো দিল্লিতে। তাঁদের মধ্যে অন্যতম হলেন নিশীথ প্রামাণিক, অর্জুন সিং এবং সৌমিত্র খাঁ।

প্রসঙ্গত রাজনৈতিক মহলের অনেকেই মনে করছেন, শুভেন্দু অধিকারীকে দিল্লিতে ডেকে পাঠানো নিয়ে নতুন করে গেরুয়া শিবিরে যাতে কোনো অশান্তি না শুরু হয়, তা বুঝেই দুদিন পরে ডেকে নেওয়া হল এই তিন সাংসদকে। ইতিমধ্যেই শুভেন্দু অধিকারী কে দিল্লীতে কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের তলব নিয়ে রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ কিছু জানেন না বলে জানিয়েছেন। স্বাভাবিকভাবেই গেরুয়া শিবিরের দ্বন্দ্ব প্রকাশ্যে এসে পড়েছে। আর তাই বাংলা্র দলীয় ভাঙন রুখতে উদ্যোগী হয়েছে দিল্লি বলে মনে করা হচ্ছে।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

অন্যদিকে মুকুল রায়ের সঙ্গে রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষের দূরত্ব ক্রমেই বাড়ছে। এ প্রসঙ্গে উল্লেখ করা যায়, মুকুল রায়ের স্ত্রীকে দিলীপ ঘোষের দেখতে যাওয়ার পর উদ্ভূত বিতর্কের। মুকুল রায়ের দলীয় অবস্থান নিয়েও প্রশ্ন থেকে যাচ্ছে। মুকুল রায় দলে নিঃশ্চুপ হয়ে যাওয়ায় তাঁর অনুগামীরাও একে একে সরতে শুরু করেছেন। পাশাপাশি তৃণমূল থেকে আগত বহু বিজেপি নেতা সুর পাল্টেছেন। সবমিলিয়ে পরিস্থিতি যে যথেষ্টই উদ্বেগজনক, তা পরিষ্কার হয়ে গিয়েছে কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের কাছে। রাজ্য বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এবং কেন্দ্রীয় বিজেপি সভাপতির সঙ্গে ক্রমান্বয়ে বৈঠক করে চলেছেন দিল্লীতে।

সেক্ষেত্রে জানা গেছে, তিনি রাজ্যের ভোট পরবর্তী হিংসা পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা চালিয়েছেন এবং শুভেন্দু নিজেই ইঙ্গিত দিয়েছেন রাজ্যে রাষ্ট্রপতি শাসন জারি হওয়া নিয়ে। পাশাপাশি খবর, শুভেন্দু ঘরছাড়া বিজেপি কর্মীদের ঘরে ফেরানোর আবেদন রেখেছেন কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের কাছে। বিশেষজ্ঞদের মতে, এই মুহূর্তে গেরুয়া শিবিরের পরিস্থিতি যথেষ্ট স্পর্শকাতর এই রাজ্যে। তবে পরিস্থিতি সামাল দিতে গিয়ে যদি রাজ্যে রাষ্ট্রপতি শাসন জারি করা হয়, তা হলে হিতে বিপরীত হওয়ার আশঙ্কা থেকে যাচ্ছে। এখন দেখার কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব রাজ্য বিজেপি নেতাদের সঙ্গে কথা বলে কি সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন।

আপনার মতামত জানান -

ট্যাগড
Top
error: Content is protected !!