এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > রাজ্যে আসার তোরজোড় শুরু হতেই বড় ধাক্কা খেতে হল আসাদউদ্দিনকে, তীব্র জল্পনা

রাজ্যে আসার তোরজোড় শুরু হতেই বড় ধাক্কা খেতে হল আসাদউদ্দিনকে, তীব্র জল্পনা



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – রাজ্যের বুকে ক্রমশ জমে উঠেছে একুশের নির্বাচনী লড়াই। রাজ্যের প্রতিটি ছোট বড় দল ময়দানে নেমে পড়েছে। প্রত্যেকেরই নিজস্ব সমীকরণ অনুযায়ী লড়াইয়ের ঘুঁটি সাজানো চলছে। পাশাপাশি রাজ্যের শাসক দল তৃণমূলকে বাংলা থেকে উৎখাত করতে মরিয়া যেমন বিজেপি, তেমনই শাসক দল তৃণমূলও জোরদার লড়াই চালাচ্ছে। অন্যদিকে বাম কংগ্রেস জোট বেঁধে নেমে পড়েছে তৃণমূল ও বিজেপিকে ঠেকাতে। তাঁদের সঙ্গে হাত মিলিয়েছে নতুন দল ইন্ডিয়ান সেকুলার ফ্রট। পাশাপাশি এবার তৃণমূলের সংখ্যালঘু শক্তিতে ভাঙন ধরাতে রাজ্যে পা দিয়েছে আসাদউদ্দিন ওয়েইসির মিম। মিমের নজর পড়েছে বাংলায় প্রথম থেকেই।

মিমের লক্ষ্য বাংলায় আধিপত্য বিস্তার করা। আর সেই সূত্রেই আজ মেটিয়াবুরুজে মিমের সভা করার কথা ছিল। কিন্তু শুরুতেই খেতে হয় তাঁদের বড়সড় ধাক্কা। বাংলার বুকে 2021 এর এর আগে প্রথম সভা ছিল মিম প্রধান আসাদউদ্দিন ওয়েইসির। রাজ্য প্রশাসনের অনুমতি না মেলায় সেই সভা বাতিল হয়ে গেল এবার। যথারীতি মিমের পক্ষ থেকে প্রশাসনের এই সিদ্ধান্তে ব্যাপক ক্ষোভ প্রকাশ করা হয়েছে। পাশাপাশি এদিন সংবাদমাধ্যমে মিম এর পক্ষ থেকে জামেরুল জানিয়েছেন, সভা করার 10 দিন আগে প্রশাসনের অনুমতি চাওয়া সত্ত্বেও দেওয়া হয়নি।


ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

আর সে কারণেই এবার তৃণমূল নেত্রীর বিরুদ্ধে সুর চড়াতে শুরু করেছে মিম। মিম এর পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, ক্ষমতার অপব্যবহার করছে এ রাজ্যের মমতা সরকার। প্রসঙ্গত রাজনৈতিক মহলের অনেকেই মনে করছেন, মেটিয়াবুরুজ অঞ্চলটি প্রধানত সংখ্যালঘু-অধ্যুষিত। আর সেখানে মিমের সভা যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছিল এবারের নির্বাচনের পরিপ্রেক্ষিতে। কিন্তু প্রশাসনের অশান্তি আটকাতেই এই সিদ্ধান্ত। অন্যদিকে সংখ্যালঘু ভোটব্যাংক তৃণমূলের অন্যতম শক্তি।

আর এবারের বিধানসভা নির্বাচনে সেই শক্তির গুরুত্ব এখন থেকেই বোঝা যাচ্ছে। ওয়াকিবহাল মহলের মতে, মিমকে রাজ্যের শাসক দল বিজেপির বি টিম বলেই ব্যাখ্যা করেন সবসময়। সেক্ষেত্রে একুশের বিধানসভা নির্বাচনের আগে মিমের এ রাজ্যে এসে সভা সংখ্যালঘু ভোটব্যাঙ্কে ভাঙন তৈরী নিশ্চিত ছিল। একইসাথে গেরুয়া শিবিরের রাস্তাও যে অনেকটাই পরিষ্কার হত, সে কথা বলাই বাহুল্য। আর তাই হয়ত রাজ্য প্রশাসন আগেভাগেই এই পরিকল্পনা রুখে দিল।

 

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!