এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > রাজ্যসভা থেকে সাসপেন্ড হতেই ‘বিদ্রোহ’ ভুলে অবশেষে ‘দোষ’ স্বীকার করে নিলেন হেভিওয়েট সাংসদ!

রাজ্যসভা থেকে সাসপেন্ড হতেই ‘বিদ্রোহ’ ভুলে অবশেষে ‘দোষ’ স্বীকার করে নিলেন হেভিওয়েট সাংসদ!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – সম্প্রতি কেন্দ্রীয় সরকারের কৃষি বিল নিয়ে বিতর্কিত সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে সংসদ চত্বর হয়ে উঠেছে উত্তাল। দীর্ঘদিন পর বাদল অধিবেশনের হাত ধরে সংসদ খোলে এবং এই কয়েক দিনের মধ্যেই কেন্দ্র পাস করিয়ে নিল কৃষি ও কৃষি ক্ষেত্র সংক্রান্ত বিল। বিরোধিতার নজিরবিহীন ঘটনা প্রবাহের মধ্যে দিয়ে রাজ্যসভায় পাস হয়েছে দুটি কৃষি বিল। এই নিয়েই শুরু হয়েছে সরকার ও বিরোধী তরজা। বিরোধিতা এতটাই চরমে ওঠে, যেখানে সংবিধানের নিয়ম ভেঙে বিরোধীরা ডায়াসে উঠে আসেন এবং ভাঙচুর শুরু করেন।

যার ফলে বিরোধীদের কড়া শাস্তির মুখোমুখি হতে হয়েছে। ইতিমধ্যে সংসদের চেয়ারম্যান বেঙ্কাইয়া নাইডু তৃণমূল সহ অন্যান্য বিরোধী দলের মোট আটজন সাংসদকে সাত দিনের জন্য সাসপেন্ড করেছেন বলে জানা গেছে। কিন্তু বিরোধীরা এই শাস্তিকে কোনোমতেই মেনে নেয়নি। তাঁরাও পাল্টা শুরু করেছেন সংসদ চত্বরে ধরনা। কিন্তু তার মধ্যেই দিল্লির এক সাংসদ সঞ্জয় সিং এদিন মেনে নিলেন ডেপুটি চেয়ারম্যানের টেবিলে তিনি উঠেছিলেন এবং মাইক ভেঙেছিলেন।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

তবে তিনি আত্মপক্ষ সমর্থনে বলেছেন, গণতন্ত্রকে রক্ষা করার জন্যই তাঁর এই পদক্ষেপ। অন্যদিকে তার বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগকে পুরোপুরি অস্বীকার করেছেন তৃণমূল সাংসদ ডেরেক ও’ব্রায়েন। পাল্টা তিনি বলেছেন, তাঁর প্রতি অভিযোগ প্রমাণিত হলে তিনি সাংসদ পদ থেকে সরে দাঁড়াবেন। ঠিক বিপরীত অবস্থানে দাঁড়িয়ে তাঁর প্রতি ওঠা অভিযোগ কার্যত স্বীকার করে নিয়েছেন আপের বিধায়ক সঞ্জয় সিং। পাল্টা সরকারের দিকে অভিযোগের আঙুল তুলে তিনি বলেন, সরকারকে এই বিলের কারণে ক্ষমা চাইতে হবে এবং ফিরিয়ে নিতে হবে তাঁদের কৃষি বিল।

অন্যদিকে জানা গেছে, রবিবারের আচরণের জন্য এখনো পর্যন্ত কোনো সাংসদ কেন অনুতাপ করলেন না, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন বেঙ্কাইয়া নাইডু। যদিও তাই নিয়ে সঞ্জয় সিং পরিষ্কার জানিয়ে দিয়েছেন, বিরোধী সাংসদরা সংসদের দায়িত্বপ্রাপ্ত সদস্য। সাংসদরা কেউ মানসিক ভারসাম্যহীন নন যে শুধু শুধু তাঁরা বিরোধিতা করবেন। তাঁর দাবি সাংসদরা বিল পাস করার জন্য ভোটের কথা বললেও সরকার তা মেনে নেয়নি। বিশেষজ্ঞদের মতে, সাংসদ সঞ্জয় সিং এর প্রতি যে অভিযোগ উঠেছিল কেন্দ্রীয় তরফে, তা কিন্তু তিনি কার্যত নিজেই স্বীকার করে নিয়েছেন। এর ফলে কেন্দ্রীয় সরকারের আত্মপক্ষ সমর্থনের জন্য কিছুটা শক্তি বাড়ল বলে মনে করা হচ্ছে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!