এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > রাজ্যপালের সামনেই চলল তারস্বরে মাইক বাজানো, প্রশাসন নিশ্চুপ

রাজ্যপালের সামনেই চলল তারস্বরে মাইক বাজানো, প্রশাসন নিশ্চুপ



সম্প্রতি শুরু হয়েছে মাধ্যমিক পরীক্ষা। মাধ্যমিক পরীক্ষার কথা মাথায় রেখেই প্রশাসনের তরফ থেকে কড়া নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে মাইক ও বক্স ব্যবহারে। কিন্তু প্রশাসনকে বুড়ো আঙ্গুল দেখিয়ে মাধ্যমিক পরীক্ষার মধ্যেই উলুবেড়িয়ায় তারস্বরে বেজে উঠল মাইক, বক্স ও ডিজে। অন্যদিকে জানা গেছে, এই মেলাতে বক্তব্য রেখেছেন স্বয়ং পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর। আর এই ঘটনাকে কেন্দ্র করেই শুরু হয়েছে বিতর্ক। প্রশ্ন উঠেছে, মাধ্যমিক পরীক্ষা চলাকালীন এভাবে বক্স ও ডিজে কিভাবে বাজলো? উপরন্তু সেখানে রাজ্যপালের উপস্থিতিতে এ ধরনের ঘটনা কি করে ঘটলো, তা নিয়ে বিভিন্ন মহলে সমালোচনা শুরু হয়েছে।

মাধ্যমিক পরীক্ষা শুরু হয়েছে সবে মাত্র তিন দিন হল। পরীক্ষার আগে প্রতিবারের মত এবারেও প্রশাসনের তরফে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয় মাইক ব্যবহারের ওপর। কিন্তু প্রশাসনের নির্দেশ না মেনে এদিন উলুবেড়িয়ার এক মেলায় তারস্বরে মাইক ও বক্স এবং ডিজে বাজলো। উল্লেখ্য, এই মেলায় উপস্থিত ছিলেন স্বয়ং রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর। ঘটনা সামনে আসতেই তুমুল সমালোচনা শুরু হয়েছে রাজনৈতিক মহলে। অন্যদিকে, শিক্ষা মহল থেকেও প্রশ্ন উঠেছে রাজ্যপালের উপস্থিতিতে এ ধরনের ঘটনা কীভাবে ঘটল!

প্রসঙ্গত, উলুবেড়িয়ার এই মেলাটি যেখানে হচ্ছে তার কিছুটা দূরেই অনন্তপুর হাইস্কুল এবং বেলপুকুর হাই স্কুল। দু দুটি স্কুল হওয়ায় স্বাভাবিকভাবেই প্রচুর পরীক্ষার্থী সেখানে আছে বলেই মনে করা হচ্ছে। সুতরাং বলাই বাহুল্য এই শব্দ দৈত্যের জেরে তুমুল অসুবিধায় পড়ে সেখানকার মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীরা। জানা গেছে, বুধবার উলুবেড়িয়ার শ্যামপুরের অনন্তপুর মিল মাঠে একটি মেলা শুরু হয় আর সেই মেলার উদ্বোধনেই হাজির হয়েছিলেন সস্ত্রীক রাজ্যপাল। যথারীতি রাজ্যপালের সামনেই মাইক বাজতে শুরু করে। স্থানীয় বাসিন্দারা অভিযোগ তুলেছেন, যথেচ্ছভাবে মাইক ব্যবহার করার জন্য যথেষ্ট অসুবিধায় পড়েছেন এলাকার মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীরা।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

অন্যদিকে এই অনুষ্ঠান মঞ্চে রাজ্যপালের উপস্থিতিতে যথেচ্ছভাবে মাইক ব্যবহারের ঘটনায় তুমুল বিতর্ক শুরু হয়েছে। জানা গেছে, রাজ্যপালের বক্তব্য যাতে আরো বেশি করে শোনা যায় সে কারণে উচ্চঃস্বরে মাইক বাজাতে শুরু করেন অনুষ্ঠানের আয়োজকরা। কিন্তু ঘটনায় অভিযোগের তীর উঠেছে রাজ্যপালের দিকেই। রাজনৈতিক মহলের অনেকের প্রশ্ন, রাজ্যপাল নিজে যেখানে সবসময় সংবিধান মেনে চলার কথা বলেন সেখানে তাঁর উপস্থিতিতে মাধ্যমিক পরীক্ষার সময় কিভাবে এত তারস্বরে মাইক বাজলো, এবং তিনি সেখানে দাঁড়িয়ে বক্তৃতা রাখলেন!

এই ঘটনার রেশ যথারীতি শিক্ষা মহল পেরিয়ে রাজনৈতিক আঙিনায় প্রবেশ করেছে। রাজ্যপালের উপস্থিতি হেতু এই ঘটনা ঘিরে আবারও উঠে এসেছে বরাবরের মত শাসক মহল বনাম রাজ্যপালের দ্বন্দ্ব। এদিন রাজ্যপালকে রীতিমতো কটাক্ষ করেন শ্যামপুরের তৃণমূল বিধায়ক কালিপদ মণ্ডল। অবশ্য এই পুরো ঘটনায় এখনও পর্যন্ত হাওড়ার পুলিশ বা প্রশাসনের কাছ থেকে কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি। অন্যদিকে, শ্যামপুর মেলা কর্তৃপক্ষ অবশ্য জানিয়েছেন, পুলিশের কাছ থেকে তাঁরা মেলা করার অনুমতি নিয়েছিলেন ঠিকই কিন্তু মাইক বা বক্স বাজানোর কোন অনুমতি তাঁদের কাছে ছিল না।

এই ঘটনায় অবশ্য মেলা কমিটি থেকে স্বীকার করা হয়েছে মাধ্যমিক পরীক্ষা থাকায় মাইক, বক্স, ডিজে বাজানো ঠিক হয়নি। স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, প্রতিবছরই এখানে মাধ্যমিক পরীক্ষার সময় এরকম ভাবেই অনুষ্ঠান করা হয়। তবে একাধিক স্থানীয় বাসিন্দা পুলিশের ভূমিকা নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন এদিন। অন্যদিকে মেলাপ্রাঙ্গণে প্রচুর দোকান-পাটও বসেছে, যার ফলে প্রচুর হৈ-হুল্লোড় চলছে। তবে মাধ্যমিক পরীক্ষার মধ্যেই এ ধরনের মাইক বাজিয়ে মেলা করার জন্য যথেষ্ট সমালোচনার সৃষ্টি হয়েছে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!