এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > দুর্গাপুজোর আবহে এবার মুখোমুখি আলোচনায় বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য ও রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর, জেনে নিন

দুর্গাপুজোর আবহে এবার মুখোমুখি আলোচনায় বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য ও রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর, জেনে নিন



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট- মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আর রাজ্যপালের সম্পর্ক মধুর না হলেও ক্ষমতায় আসার পর প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে কিন্তু তিনি সম্পর্ক ভালো রাখারই চেষ্টা করেছেন বলেই দেখা গেছে। করোনা পরিস্থিতিতে তাই প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর অবস্থার খবর নিতে তাঁর বাড়িতে উপস্থিত হতে দেখা গেল রাজ্যপালকে। অন্য বছরের থেকে এ বছর দুর্গা পুজোর আমেজ কিছুটা আলাদা। সেলিব্রিটি হোক কি সাধারণ মানুষ অথবা রাজনৈতিক নেতা মন্ত্রীদের কথাই হোক, সকলেই এবছরের পুজো কাটাচ্ছেন অন্যভাবে।

তবে সম্প্রতি জানা গেছে, রাজ্যের রাজ্যপাল জগদীপ ধনগড় সস্ত্রীক পৌঁছে গিয়েছিলেন প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের বাড়িতে।তথ্য সূত্রে জানা গেছে, অষ্টমীর দিন সন্ধ্যাবেলা সকলকে চমকে দিয়ে রাজ্যপাল জগদীপ ধনগড় সস্ত্রীক পৌঁছে যান প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের বাড়িতে। সেইসঙ্গে সেখানে বেশ কিছুক্ষণ সময় কাটান এবং ফিরে এসে বাইরে অপেক্ষারত সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলেন বলেও জানা যায়।

আর এই কথপোকথনে বিজেপি-তৃণমূল সম্পর্কের মধ্যে সংঘাত বাড়বে না কমবে সেই আশঙ্কা করছেন অনেকেই। যদিও এই ঘটনা প্রথম নয়, রাজ্যপাল পদে আসার পরই জগদীপ ধনগড়কে বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের বাড়িতে যেতে দেখা গিয়েছিল। এই সময়ে অবশ্য তাঁর শরীর অসুস্থ থাকায় তাঁর শারীরিক অবস্থার খোঁজ নিতেই তিনি সেখানে গিয়েছিলেন এমনটাই জানা গিয়েছিল তখন।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

তবে গতকালের যাওয়া সেই উপলক্ষে নয়। বিজেপি তৃণমূল সম্পর্ক নিয়ে রাজ্যপালকে ভালোমতো প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর কটাক্ষ শুনতে হয়েছে বলেই মনে করছেন অনেকে। এদিন, প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর বাড়ির বাইরে তাঁর স্ত্রী মীরা ভট্টাচার্য রাজ্যপালের অপেক্ষায় ছিলেন বলে দেখা যায় ।গাড়ি থেকে নেমে জগদীপ ধনগডের স্ত্রী তাঁকে ফুল দিয়ে অভিবাদন করেন।

এরপরই তাঁরা বাড়ির ভিতর প্রবেশ করেন। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, সম্প্রতি ভট্টাচার্যের শরীর বেশ ভালো নেই বলেই জানা গেছে। তাঁর অক্সিজেন চলছে। তবে রাজ্যপালের সাথে যে তাঁর কথা হয়েছে সে কথাও জানা যায়। বুধবার সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন রাজ্যপাল জানান, একজন জীবন্ত কিংবদন্তী রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব হিসেবে বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের পরামর্শ ও উপদেশ পাওয়া তাঁর কাছে সৌভাগ্যের বিষয়।

বস্তুত, তিনি শারদীয়া শুভেচ্ছা জানাতেই এখানে এসেছিলেন। কিন্তু তাঁদের মধ্যে অনেক রাজনৈতিক কথা হয়েছে বলেও জানিয়েছেন তিনি। তবে সেক্ষেত্রে কি রাজনৈতিক কথা হয়েছে তা কিন্তু জানা যায়নি। তাঁর কথায় প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর শারীরিক অবস্থার খোঁজ নেওয়ার জন্য রাজ্যপাল প্রায়ই যোগাযোগ রাখতেন বলে জানা গেছে। আর সেই সময়েই এখানে আসার কথা ঠিক করেন বলেও জানিয়েছেন তিনি।

তাঁর সাথে রাজ্যপালের বর্তমান সময় নিয়ে অনেক কথা হয়েছে এবং অতীতেরও কিছু বিষয়ে কথা বলেছেন হলেও তিনি জানিয়েছেন। সেইসঙ্গে ওনার দীর্ঘায়ু কামনা করেছেন রাজ্যপাল। ২১শের ভোট হতে আর বেশী দেরী নেই এবং রাজ্যে ভোট যাতে সুষ্ঠুভাবে হয় সেই চেষ্টায় রয়েছেন রাজ্যপাল। রাজ্য প্রশাসন যাতে নিরপেক্ষভাবে কাজ করে, সেই চেষ্টা চালিয়ে যাবেন সেই কথাই শোনা গেছে তাঁর মুখে। তবে এরই মাঝে তৃণমূল এবং বিজেপির রাজনৈতিক কার্যকলাপ সম্পর্কে তাঁকে যে প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী কথা শুনিয়েছেন সে কথা বলাই বাহুল্য।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!