এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > রাজকুমারের মৃত্যু রহস্য মামলায় নয়া মোর, বিশেষ নির্দেশ কলকাতা আদালতের

রাজকুমারের মৃত্যু রহস্য মামলায় নয়া মোর, বিশেষ নির্দেশ কলকাতা আদালতের



রাজ্যে সদ্য সমাপ্ত পঞ্চায়েত নির্বাচনে রহস্যজনক মৃত্যু হয় নির্বাচনকর্মী তথা রায়গঞ্জের শিক্ষক প্রিসাইডিং অফিসার রাজকুমার রায়’র। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে রাজ্য রাজনীতিতে অনেক হইচই হয়েছিলো। এই নির্বাচন কর্মীর রহস্যমৃত্যুর তদন্তভার সিআইডির হাতে দেওয়া হয়। এরপর বেশ কিছু দিন কেটে গিয়েছে। পরিস্থিতিও মোটামোটি শান্ত। এমন সময়েই কলকাতা হাইকোর্টে সিদ্ধান্তে এই রহস্য মৃত্যুর তদন্তে এলো নয়া মোড়। এদিন কলকাতা হাইকোর্ট এই ঘটনার সিআইডি তদন্তেরই রিপোর্ট পেশ করার নির্দেশ দিলো। আগামী ১৩ ই জুলাই এই তদন্তের অবস্থান অবস্থা এবং অগ্রগতি সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য সম্বলিত রিপোর্ট পেশের জন্যে সিডিআইডি কে  নির্দেশ দিলেন বিচারপতি তপোব্রত চক্রবর্তীর সিঙ্গল বেঞ্চ। 

প্রিয় বন্ধু বাংলার অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ – Priyo Bandhu Bengali

—————————————————————————————————————————————————-

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

এদিন মামলা চলাকালীন মামলাকারী রাজকুমার রায়ের মা অন্নদা রায়ের পক্ষের আইনজীবী উদয়শঙ্কর চট্টোপাধ্যায় আদালতে একপ্রকার অভিযোগের সুরেই বললেন, রাজকুমার রায়ের মৃত্যুর ঘটনার কোনও তদন্ত হয়নি। প্রসঙ্গতঃ গত ১৪ ই মে পঞ্চায়েত নির্বাচনের প্রস্তাবিত দিনে রায়গঞ্জের শিক্ষক প্রিসাইডিং অফিসার রাজকুমার রায়কে বুথ থেকে অপহরণ করে খুন করা হয়েছিল বলে অভিযোগ ওঠে। রাজ্য নির্বাচন কমিশন এ বিষয়ে কোনও অভিযোগ দায়ের করেনি বলেই জানা গিয়েছিলো। তবে পরদিন অর্থাৎ ১৫ ই মে নিহতের পরিবার স্থানীয় বিডিওর কাছে গিয়ে অভিযোগ জানায়। সেদিনই রায়গঞ্জ এলাকার রেল লাইনের পাশ থেকে রাজকুমারবাবুর ক্ষতবিক্ষত দেহ উদ্ধার করা হয়। এরপরে ১৬ ই মে তাঁর পরিবার  রায়গঞ্জ থানায় এফআইআর দায়ের করে। অভিযোগ ওঠে থানা এ বিষয়ে কোনও তদন্ত করছে না । এরপর তদন্তভার সিআইডির হাতে যায়। তবে গোটা ঘটনার প্রসঙ্গে সরকারি আইনজীবী অমিতেশ বন্দ্যোপাধ্যায় বললেন, “এটি খুন নয়, আত্মহত্যার ঘটনা। রায়গঞ্জ থানায় এফআইআর হয়েছে। সিআইডি তদন্তে নেমেছে। উভয়পক্ষের বক্তব্য শুনে পরবর্তী শুনানিতে সিআইডিকে তদন্তের রিপোর্ট পেশ করতে বলেন বিচারপতি।”

 

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!