এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > রাজ্যপালের পদক্ষেপে তাঁর ‘রুচি-ভদ্রতা’ নিয়েই উঠে গেল প্রশ্ন! কি বলছেন জগদীপ ধনকর নিজে?

রাজ্যপালের পদক্ষেপে তাঁর ‘রুচি-ভদ্রতা’ নিয়েই উঠে গেল প্রশ্ন! কি বলছেন জগদীপ ধনকর নিজে?



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট –  অষ্টমীর সন্ধ্যায় রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের বাড়িতে গিয়েছিলেন রাজ্যপাল জাগদীপ ধনকার। আর প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করে বেরিয়ে এসে নিজের টুইটার হ্যান্ডেলে সেই সাক্ষাতের একটি ছবি প্রকাশ করেন পশ্চিমবঙ্গের সাংবিধানিক প্রধান। যেখানে দেখা যাচ্ছে যে, বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য অত্যন্ত অসুস্থ।

আর একজন অসুস্থ মানুষের সঙ্গে দেখা করতে গিয়ে যেভাবে রাজ্যপাল তার ছবি পোস্ট করলেন সোশ্যাল মিডিয়ায়, তা নিয়ে প্রথম থেকেই তার রুচি এবং ভদ্রতার ব্যাপারে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। ইতিমধ্যেই সিপিএমের পক্ষ থেকে রাজ্যপালের ওই কর্মকাণ্ডকে কুরুচিপূর্ণ বলে দাবি করা হয়েছে। তবে নানা মহল থেকে এই ব্যাপারে রাজ্যপাল সমালোচনার শিকার হলেও, তিনি যে তার অবস্থান থেকে সরে আসবেন না, তা কার্যত স্পষ্ট করে দিলেন জগদীপ ধনকর।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গত অষ্টমীর দিন সন্ধ্যায় রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর সস্ত্রীক রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের বাসভবনে গিয়ে উপস্থিত হন। যেখানে তাদের সঙ্গে দেখা করে রাজ্যপাল জানিয়ে দিয়েছিলেন, তিনি ভট্টাচার্য্য পরিবারকে পূজোর শুভেচ্ছা জানাতে এবং বুদ্ধদেববাবুর শারীরিক কুশল কামনা করতে এসেছিলেন। কিন্তু সেখানেই একটি ছবি তুলে তা সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেন রাজ্যপাল। যেখানে দেখা যাচ্ছে, বিছানার সামনে দুটো চেয়ার। যার মুখোমুখি বসে আছেন রাজ্যপাল এবং তার স্ত্রী। আর আরেকটি ছবিতে রয়েছেন বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের সহধর্মিণী।

অন্যদিকে আরেকটি ছবিতে রয়েছে রাজ্যপালের হাতে গোলাপের তোড়া। কিন্তু কোনো ছবিতেই বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যকে সেভাবে বিছানায় উঠে বসে দেখা যায়নি। স্বাভাবিক ভাবেই নাকে অক্সিজেন লাগানো অবস্থায় প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী অসুস্থতা অনুভব করলেও, তার সামনে এভাবে ছবি তুলে তা সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করা রাজ্যপালের কোন রুচির পরিচয়, তা নিয়ে সিপিএমের পক্ষ থেকে তোলা হয়েছে প্রশ্ন।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

ইতিমধ্যেই সিপিএমের পক্ষ থেকে এই ব্যাপারে টুইট করে বলা হয়েছে, “কমরেড ভট্টাচার্যের আন্তর্জাতিক স্তরে পরিচিতি এবং খ্যাতি রয়েছে। তিনি বহু দশক ধরে নিবেদিতপ্রাণ হয়ে আমাদের রাজ্যের সেবা করেছেন। গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় তার ছবি তোলা এবং সেগুলো সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশ করা দুনিয়া জুড়ে সিপিএমের শুভানুধ্যায়ী এবং হিতৈষী শুধু নয়, সাধারণ মানুষকেও গভীরভাবে আহত করেছে। এই ছবিগুলো তুলে নেওয়া হলে আমরা খুশি হব।”

স্বভাবতই সিপিএমের পক্ষ থেকে যখন এই ব্যাপারে প্রশ্ন তোলা হচ্ছে তখন আশা করা হয়েছিল রাজ্যপাল হয়তোবা সেই ছবি তুলে নেবেন কিন্তু তেমন কিছুই করতে দেখা গেল না রাজ্যের সাংবিধানিক প্রধান কে। বরঞ্চ সেই ছবিগুলো নিজের সোশ্যাল মিডিয়ায় রেখে এদিন টুইট করে রাজ্যবাসীকে তাদের “প্রথম সেবক” হিসেবে বিজয়া দশমীর শুভেচ্ছা জানিয়েছেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর। এই সমস্ত কিছু দেখে সিপিএমের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, আসলে রাজ্যপাল কোনো নিয়ম নীতির ধার ধারেন না। নিজের মতো করে চলা পছন্দ করছেন।

স্বাভাবিকভাবেই বুদ্ধদেববাবুর অসুস্থ ছবি প্রকাশ করা হলে এবং তা নিয়ে সমালোচনা হলেও, তিনি নিজের অবস্থানে অনড় থেকে বুঝিয়ে দিলেন যে, তার কাছে কোনো সহানুভূতির বিন্দুবিসর্গ নেই বলে অভিযোগ করতে শুরু করেছেন মার্কসবাদী কমিউনিস্ট পার্টি। সব মিলিয়ে রাজ্যপালের এই ধরনের ছবি পোস্ট এবং তার পরিপ্রেক্ষিতে সিপিএমের পক্ষ থেকে সমালোচনা হলেও, নিজের অবস্থানে অনড় থাকলেন রাজ্যের সাংবিধানিক প্রধান। সব মিলিয়ে গোটা পরিস্থিতি কোথায় গিয়ে দাঁড়ায়, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!