এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > সংবিধান রক্ষা করতে রাজ্যপালের দরবারে বিজেপি! মুখ্যমন্ত্রীকে ‘সরাতে’ কোন পদক্ষেপ রাজভবনের?

সংবিধান রক্ষা করতে রাজ্যপালের দরবারে বিজেপি! মুখ্যমন্ত্রীকে ‘সরাতে’ কোন পদক্ষেপ রাজভবনের?



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট –করোনা ভাইরাসের সংকটকালে এবার রাজস্থানে রাজনৈতিক টানাপোড়েন তীব্রভাবে অব্যাহত।ইতিমধ্যেই কংগ্রেসের পক্ষ থেকে রাজ্যপালের কাছে ধর্না দেওয়া হয়েছে। আর এবার বিজেপি বিধায়কদের দল রাজভবনে গিয়ে সাক্ষাত করে এল সেই রাজ্যপালের সঙ্গে। যেখানে বিজেপির পক্ষ থেকে রাজস্থানে কংগ্রেসের মুখ্যমন্ত্রীকে সরানোর দাবি জানানো হয়।

বস্তুত, রাজস্থানের রাজনৈতিক পরিস্থিতি যে দিকে এগোচ্ছে, তাতে কংগ্রেসের সরকার টিকে থাকা নিয়ে তীব্র সংশয় তৈরি হয়েছে। এমতাবস্থায় বিধানসভায় নিজেদের সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণ করতে প্রয়োজনীয় অধিবেশন ডাকার কথা বলছেন কংগ্রেসের অশোক গেহলট।

তবে রাজ্যপাল অবশ্য সেই অধিবেশন কোনোমতেই ডাকতে রাজি হননি। আর এই পরিস্থিতিতে তীব্র টানাপোড়েন চলছে শাসক দল বনাম রাজ্যপালের মধ্যে। ইতিমধ্যেই কংগ্রেসের অশোক গেহলট রীতিমত রাজ্যপালের উদ্দেশ্যে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন। তিনি বলেন, “রাজ্যপাল যদি তাদের দাবি মেনে না নেয়, তাহলে তারা প্রয়োজনে দিল্লিতে রাষ্ট্রপতি ভবনের সামনে গিয়ে ধর্নায় বসবেন।”


ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, কংগ্রেসের শচীন পাইলট এবং 18 জন কংগ্রেস বিধায়কের বিরুদ্ধে সম্প্রতি দলবিরোধী কার্যকলাপের অভিযোগ তুলে রাজস্থান বিধানসভার স্পিকার একটি নোটিশ পাঠিয়েছিলেন। আর সেই নোটিশের পরিপ্রেক্ষিতেই শচীন পাইলট এবং 18 জন বিধায়ক হাইকোর্টে চলে যান।

এরপরের বিধানসভার বিষয়ে হাইকোর্ট কোনমতেই হস্তক্ষেপ করতে পারে না বলে জানিয়ে দেন রাজস্থান বিধানসভার স্পিকার। পরবর্তীতে তার এই আবেদনটি খারিজ করে দেয় শীর্ষ আদালত। যেখানে জানিয়ে দেওয়া হয়, রাজস্থান হাইকোর্ট এই ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেবে। সেই মত শুক্রবার সকালে শুনানি শুরু হয়। জয় হয় শচীন পাইলটের।

আর এর পরেই নিজেদের সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণ করবার জন্য উঠে পড়ে লেগেছেন কংগ্রেসের মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলট। স্বভাবতই এমন পরিস্থিতি যখন সারা রাজ্য জুড়ে তৈরি হয়েছে, ঠিক তখনই অশোক গেহলট রাজ্যপালকে হুঁশিয়ারি দেওয়ার পরই এবার বিজেপির পক্ষ থেকে সেই রাজভবনে রাজ্যপালের সঙ্গে সাক্ষাৎ করা হল।

অর্থাৎ বিজেপি যে এখন এই সরকার ভাঙতে ব্যাপকভাবে ময়দানে নেমে পড়েছে, তা তাদের এই আচরণেই স্পষ্ট হয়ে গেছে রাজনৈতিক মহলের কাছে। এখন গোটা পরিস্থিতি কোথায় গিয়ে দাঁড়ায়, কংগ্রেস রাজস্থানে তাদের সরকার টিকিয়ে রাখতে কতটা সক্ষম হয়, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!